ঢাকা, শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ২৬ মিনিট আগে

এই ৫ রুটে ট্রেন ভ্রমণ আপনাকে মুগ্ধ করবে

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৬ মে ২০২২, ১৬:১৮  
আপডেট :
 ১৬ মে ২০২২, ২০:০২

এই ৫ রুটে ট্রেন ভ্রমণ আপনাকে মুগ্ধ করবে
ছবি: জি নিউজ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জম্মু-বারামুলা এশিয়ার দীর্ঘতম রেল নেটওয়ার্ক রয়েছে ভারতে। রয়েছে অজস্র রুট। কোনটা উচ্চতার জন্য, কোনটা সমুদ্রের জন্য, কোনটা আবার তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য বিখ্যাত। এরকম একটি রুট হল কাশ্মীরের জম্মু-বারামুলা। জম্মুর সঙ্গে কাশ্মীর উপত্যকাকে যোগ করছে এই জম্মু-বারমুলা রেলপথ। মোট দৈর্ঘ ৩৫৬ কিলোমিটার। শীতে এই রেললাইনে ভ্রমণ শুধু চিত্তকার্ষক নয়, চ্যালেঞ্জিংও।

মুম্বাই-গোয়া মুম্বাই-গোয়া রুটে কোঙ্কন রেলের এই যাত্রাপথে পড়বে অজস্র টানেল, ঝর্না, লেক, সেতু আর অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। বর্ষার সময়ে এই রুটে ভ্রমণের মজাই আলাদা।

নিউ জলপাইগুড়ি-দার্জিলিং টয় ট্রেন টানা ৮৮ কিলোমিটার এই ট্রেনের যাত্রাপথে ছড়িয়ে রয়েছে হিমালয়ের অপরূপ সৌন্দর্য। পাহাড়ের কোল বেয়ে উঠে যাচ্ছে ট্রেন। সঙ্গে স্টিম ইঞ্জিনের শব্দ। সবেমিলিয়ে এত অপূর্ব অনুভূতি।

কালকা-সিমলা রেল বরফের মধ্যে গিয়ে কালকা থেকে সিমলা পর্যন্ত এই ট্রেনে যাত্রা করা যে কোনও মানুষের স্মৃতিতে একটা অ্যাসেট। ৯৬ কিলোমিটার এই পথ থেকে টয়ট্রেন সময় নেয় ৫ ঘণ্টা। কিন্তু লম্বা এই যাত্রাপথ একেবারেই বোরিং নয়। রাস্তায় পড়বে ৮০০ সেতু, ১০৩টি টানেল আর অজস্র গুহা।

মেট্টুপালায়-উটি এই পথেক দৈর্ঘ ৪৬ কিলোমিটার। টানা ৪ ঘণ্টারও বেশি এই ট্রেন পাহাড়ে চড়ে আবার সাড়ে তিন ঘণ্টারও বেশি সময় করে এটি আবার নামে। যাত্রাপথে রয়েছে ১০৮টি গুহা, ১৬টি টানেল ও ২৫০টি ব্রিজ। কখনও সবুজ উপত্যকা, কখনও ঘন বন, কখনও আবার চা বাগানের মধ্যে দিয়ে ছুটে চলে এই হেরিটেজ ট্রেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত