পতনের দ্বারপ্রান্তে মারিউপোল, এক হাজার ইউক্রেনীয় সেনার আত্মসমর্পণ

প্রকাশ : ১৮ মে ২০২২, ১৭:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পতনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে ইউক্রেনের বন্দরনগরী মারিউপোল। শহরটির একটি স্টিল কারখানায় অবস্থান নিয়ে শেষ প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন ইউক্রেনের সেনারা। সেই কারখানাটির নিয়ন্ত্রণও রুশ বাহিনীর হাতে চলে যাচ্ছে।

বুধবার আল জাজিরা এ খবর জানায়।

মস্কোর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, ইউক্রেনের আজবস্টল স্টিল কারখানায় অবরুদ্ধ থাকা প্রায় এক হাজার সেনা আত্মসমর্পণ করেছেন। তবে এখনও স্টিল কারখানাটির ভেতরে ইউক্রেনের কয়েকজন শীর্ষ কমান্ডার রয়ে গেছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

আগেই মারিউপোল শহরের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছিলেন রুশ সামরিক বাহিনীর সদস্যরা। তাদের আগ্রাসন ও ক্রমাগত চাপের মুখে শেষ পর্যন্ত আজবস্টল স্টিল কারখানায় আশ্রয় নিতে বাধ্য হন ইউক্রেনের সেনারা। তাদের সঙ্গে ছিলেন অনেক বেসামরিক লোকজনও। 

ক্রমে তাদেরকে উদ্ধার করে নেয়া সম্ভব হলেও ইউক্রেনের সেনারা কারখানার ভেতরে থেকেই প্রতিরোধ চালিয়ে যেতে থাকেন। এতে নজিরবিহীন এক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। এ সেনাদের কী পরিণতি হবে, তা নিয়ে উদ্বেগ বাড়তে থাকে। 

এ অবস্থায় ইউক্রেনের পক্ষ থেকে কিছু সেনাকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও বেশ কিছু সেনা রুশ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। আত্মসমর্পণ করা এ সেনাদের সংখ্যা কম করে দেখানো হলেও রাশিয়া বলছে, এ সংখ্যা প্রায় এক হাজার। 

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। দেশটির রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে গোলা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধে দুই পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানির খবর পাওয়া যাচ্ছে। জাতিসংঘ বলছে, যুদ্ধের কারণে ইতোমধ্যে ইউক্রেন ছেড়ে অন্য দেশে আশ্রয় নিয়েছেন ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ। আর অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন ৮০ লাখের বেশি লোক।

সূত্র জানায়, রাশিয়ার সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের শহরগুলো ঘিরে রেখেছে রুশ সামরিক বাহিনী; হামলা চলছে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভেও।

রাশিয়ার গোলা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় খারকিভ শহরেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির খবর পাওয়া যাচ্ছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/ টিটি