ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ৯ মিনিট আগে

কথা বলছেন সালমান রুশদি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০২২, ১১:০৩

কথা বলছেন সালমান রুশদি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ঔপন্যাসিক সালমান রুশদির ভেন্টিলেটর খুলে নেয়া হয়েছে। তিনি এখন কথা বলতে পারছেন। সালমান রুশদির এজেন্ট অ্যান্ড্রু ওয়াইলির বরাত দিয়ে বিবিসির খবরে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিকে সালমান রুশদির ওপর হামলায় লেবানিজ বংশোদ্ভূত হাদি মাতার (২৪) নামের এক মার্কিন নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি ‘পূর্বপরিকল্পিতভাবে হামলা’ করেছেন বলে অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে হাদি মাতার হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার কথা অস্বীকার করেছেন।

বিবিসি বলছে, শরীরে গুরুতর আঘাত নিয়ে সালমান রুশদি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শুক্রবার নিউইয়র্কে শিটোকোয়া ইনস্টিটিউটে সাহিত্যবিষয়ক একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার আগে সালমান রুশদির ওপর এ হামলা হয়।

তার পেট ও ঘাড়ে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। আহত রুশদিকে হেলিকপ্টারে করে পেনসিলভানিয়ার একটি হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তাঁর অস্ত্রোপচার হয়।

রুশদির ওপর চালানো এই হামলায় বিশ্বের অনেকে শোক জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। রুশদির হামলাকারী হাদি মাতারের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কর্মকান্ড দেখে তাঁকে কট্টরপন্থী শিয়া মতাবলম্বী এবং ইরানের ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ডের প্রতি সহানুভূতিশীল বলে মনে করা হচ্ছে।

৭৫ বছর বয়সী সালমান রুশদির জন্ম ভারতের মুম্বাইয়ে। রুশদি ১৯৮১ সালে তার লেখা দ্বিতীয় বই ‘মিডনাইটস চিলড্রেন’ দিয়ে খ্যাতি অর্জন করেন। কিন্তু ১৯৮৮ সালে তার চতুর্থ বই ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’ প্রকাশের পর মুসলিমদের ক্ষোভের মুখে পড়েন তিনি এবং নিজেকে প্রায় ৯ বছর আড়াল করে রাখেন।

‘স্যাটানিক ভার্সেস’ উপন্যাসটি প্রকাশের পর থেকে রুশদি হত্যার হুমকি পেয়ে আসছিলেন। বইটি প্রকাশের এক বছর পর ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি ১৯৮৯ সালে রুশদিকে হত্যার আহ্বান জানিয়েছিলেন। ইরানের একটি ধর্মীয় সংস্থা খোমেনির ফতোয়া বাস্তবায়নকারীকে ২৭ লাখ ডলার পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দেয়। ২০১২ সালে সেই পুরস্কারের অর্থ বাড়িয়ে করা হয় ৩৩ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ জার্নাল/মনির/এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত