ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

৭৪০ বিলিয়ন ডলারের বিলে স্বাক্ষর করেছেন বাইডেন

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০২২, ১২:৩৬  
আপডেট :
 ১৭ আগস্ট ২০২২, ১২:৫৫

৭৪০ বিলিয়ন ডলারের বিলে স্বাক্ষর করেছেন বাইডেন
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রায় ৭৪০ বিলিয়ন ডলারের একটি জলবায়ু পরিবর্তন, স্বাস্থ্যসেবা এবং ট্যাক্স বিলে স্বাক্ষর করেছেন। আনুমানিক ৭৪০ বিলিয়ন ডলারের প্যাকেজটির মধ্যে ৪৪০ বিলিয়ন নতুন ব্যয় এবং ৩০০ বিলিয়ন মুদ্রাস্ফীতি হ্রাসে ব্যয় করা হবে।

বুধবার এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি ও আল-জাজিরা।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে একটি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে, কার্বন নিঃসরণ কমানো ও রেকর্ড বিনিয়োগের জন্য মুদ্রাস্ফীতি হ্রাস আইনের ঘোষণা করে বাইডেন বলেন, এই বিলটি জলবায়ু নিয়ে সবচেয়ে বড় পদক্ষেপ।

পরিকল্পনার অধীনে,বিলটিতে প্রায় ৩৭০ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে দূরে সরে নবায়নযোগ্য জালানিতে উৎসাহিত করা জন্য। অবশ্য ক্লাইমেট অ্যাকশন ট্র্যাকারের সঙ্গে যুক্ত বিজ্ঞানীদের একাংশের মতে, এই বিলটি ভবিষ্যতের গ্লোবাল ওয়ার্মিং মোকাবিলায় যথেষ্ট নয়।

এদিকে এই আইনে প্রেসক্রিপশন ওষুধের দাম কমানোর জন্য কংগ্রেসের কয়েক দশকের প্রতিশ্রুতি কার্যকর করার ব্যবস্থাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। মূলত ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের জন্য মেডিকেয়ার স্বাস্থ্য বীমা কর্মসূচির অধীনে কিছু প্রেসক্রিপশন ওষুধের দাম কমানোর বিষয়ে আলোচনার সুযোগ রয়েছে।

মুদ্রাস্ফীতি হ্রাসে এই বিলটিতে কর্পোরেশনগুলোর জন্য ন্যূনতম ১৫ শতাংশ কর নির্ধারণ করেছে। যাদের আয় বছরে ৪ লাখ মার্কিন ডলারের নিচে যাদের উপার্জন, এই আইন তাদের জন্য কোনো কর বৃদ্ধি করবে না। তবে যেসব আমেরিকানরা বছরে ৪ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি আয় করে এই আইনের ফলে তারা অতিরিক্ত ২০ বিলিয়ন ডলার ট্যাক্স প্রদান করবে।

এছাড়া এই বিলে ক্যালিফোর্নিয়া এবং অ্যারিজোনার মতো পশ্চিমা মার্কিন রাজ্যগুলোতে রেকর্ড খরা মোকাবেলা করতে সাহায্য করার জন্য ৪ বিলিয়নেরও বেশি তহবিল অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

আগামী নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার পাশ হওয়া বিলটি আইনে পরিণত হওয়ার এই মধ্যবর্তী নির্বাচনের আগে ডেমোক্রেটিক পার্টিকে রাজনৈতিক সুবিধা দিতে পারে।

এদিকে রিপাবলিকান পার্টি প্রতিটি পদক্ষেপে এই আইনের তীব্র বিরোধিতা করেছে এবং কোনো রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা বিলটির পক্ষে ভোট দেননি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত