ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে

রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করবে মিয়ানমার

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০২২, ১৭:৪৭

রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করবে মিয়ানমার
ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সরবরাহ ঘাটতি ও ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে রাশিয়া থেকে পেট্রোল এবং জ্বালানি তেল আমদানির পরিকল্পনা করছে মিয়ানমার। বৈশ্বিক তীব্র জ্বালানি সংকটের মাঝে অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের মতো মিয়ানমার এই পরিকল্পনা করছে বলে জান্তা সরকারের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা দখলের পর থেকে পশ্চিমা দেশগুলোর বিভিন্ন ধরনের নিষেধাজ্ঞার কবলে রয়েছে মিয়ানমার। অন্যদিকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান পরিচালনার দায়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধেও পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে পশ্চিমাদের নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা উভয় দেশের মাঝে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। এছাড়াও মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর কাছে অস্ত্রের অন্যতম প্রধান সরবরাহকারী হচ্ছে রাশিয়া।

এদিকে রাশিয়ার জ্বালানি তেলের অন্যতম বৃহৎ গন্তব্য ইউরোপ হলেও পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞায় ওই অঞ্চলে মস্কোর জ্বালানি রপ্তানিতে ভাটা পড়েছে। যে কারণে রাশিয়া এখন এশিয়ায় তার জ্বালানির নতুন নতুন গ্রাহক খুঁজছে।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র জ্য মিন তুন বলেছেন, আমরা রাশিয়ার কাছ থেকে পেট্রোল আমদানির অনুমতি পেয়েছি। রাশিয়ার পেট্রোলের গুণগত মান এবং তুলনামূলক কম দামের কারণে মিয়ানমার আমদানির এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, আগামী সেপ্টেম্বর থেকে রাশিয়ার জ্বালানি তেলের সরবরাহ মিয়ানমারে পৌঁছাতে শুরু করবে। মিয়ানমার এখন সিঙ্গাপুরের মাধ্যমে জ্বালানি আমদানি করছে।

জ্য মিন তুন বলেছেন, গত মাসে রাশিয়া সফরের সময় তেল এবং গ্যাসের বিষয়ে আলোচনা করেন জান্তা প্রধান মিন অং হ্লেইং।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত বিবৃতি অনুযায়ী, জান্তা প্রধান মিন অং হ্লেইংয়ের ঘনিষ্ঠ একজন মিত্রের নেতৃত্বে মিয়ানমারের সরকার রাশিয়ার তেল কেনা বিষয়ক একটি কমিটি গঠন করেছে। এই কমিটি মিয়ানমারের চাহিদার ভিত্তিতে যৌক্তিক মূল্যে রাশিয়া থেকে তেল ক্রয়, আমদানি এবং পরিবহন কাজ তত্ত্বাবধান করবে।

জান্তাবিরোধী সহিংসতা ও রাজনৈতিক অস্থিরতা বিরাজ করছে মিয়ানমারে। তার মধ্যে দেশটি জ্বালানি তেলের দাম ব্যাপক বৃদ্ধি পাওয়ায় জনসাধারণের মাঝে নতুন করে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। জ্বালানির সংকটের কারণে দেশটির সরকার লোড শেডিং ঘোষণা করেছে। এছাড়াও স্থানীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সংকটের কারণে গত সপ্তাহে দেশটির বিভিন্ন প্রান্তে অনেক পেট্রোল স্টেশন বন্ধ হয়ে গেছে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সেনাবাহিনী ক্ষমতায় আসার পর থেকে মিয়ানমারে প্রত্যেক লিটার পেট্রোলের দাম প্রায় সাড়ে ৩০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ২ হাজার ৩০০ থেকে ২ হাজার ৭০০ কিয়াটে (প্রায় ১ ডলার) দাঁড়িয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ব্যবহারের জন্য রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সামরিক সরকার।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত