ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৭ মিনিট আগে
শিরোনাম

বাজারে এল বিশ্বের সবচেয়ে দামি ওষুধ, এক ডোজ ৩৫ কোটি টাকা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৩২  
আপডেট :
 ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৪৬

বাজারে এল বিশ্বের সবচেয়ে দামি ওষুধ, এক ডোজ ৩৫ কোটি টাকা
প্রতিকী ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বাজারে এল বিশ্বের সবচেয়ে দামি ওষুধ। চলতি সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ নিয়ামক সংস্থা ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) ‘হেমজেনিক্স’ নামের এই ওষুধের অনুমোদন দিয়েছে। এটি হিমোফিলিয়া-বি রোগের ওষুধ। যার একটি ডোজের দাম ৩৫ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৩৫ কোটি টাকারও বেশি।

ওষুধটি প্রস্তুতকারী সংস্থা সিএসএল বেহরিং-এর দাবি, এককালীন এই ওষুধটি জিনগত ভাবে হিমোফিলিয়া বি রোগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। তাই বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ওষুধ হলেও সামগ্রিক ভাবে চিকিৎসার খরচ অনেকটাই কমবে।

প্রস্তুতকারী সংস্থা আরও দাবি করেছে, নতুন এই ওষুধটি চিকিৎসাশাস্ত্রের দিক থেকে যুগান্তকারী। এই ওষুধের মাধ্যমে রোগীর লিভারে একটি বিশেষ জিন ঢুকিয়ে দেয়া হয়। আর তার পর থেকে দেহেই রক্ততঞ্চনকারী প্রোটিন উৎপন্ন হয়। ফলে দাম আকাশছোঁয়া হলেও ওষুধটি চিকিৎসার সামগ্রিক খরচ কমাতে এবং রোগীদের জীবন বাঁচাতে কাজে লাগাতে পারে।

চিকিৎসকদের মতে, হিমোফিলিয়া এমন একটি রোগ, যাতে রোগীর রক্ততঞ্চনে সমস্যা হয়। অর্থাৎ, দেহের কোনও স্থানে রক্তপাত শুরু হলে আর রক্ত জমাট বাঁধতে পারে না। মানুষের দেহে ফ্যাক্টর নাইন নামের একটি বিশেষ উপাদানের ঘাটতি হলে এমন ঘটে। এত দিন পর্যন্ত রক্তের মাধ্যমে বাইরে থেকে এই প্রোটিনটি সরবরাহ করা হয়। সেই চিকিৎসাও যথেষ্ট ব্যয়বহুল। হিমোফিলিয়া বি আরও বিরল। মোট হিমোফিলিয়া রোগীর মধ্যে ১৫ শতাংশ মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হন।

এফডিএ জানিয়েছে, প্রতি চল্লিশ হাজার মানুষের মধ্যে এক জন এই রোগে আক্রান্ত হন। নারীদের থেকে পুরুষদের এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

সূত্র: আনন্দবাজার

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত