ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৮ মিনিট আগে
শিরোনাম

চীনে বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে বিবিসির সাংবাদিক গ্রেপ্তার

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৫:০৮  
আপডেট :
 ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৬:১২

চীনে বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে বিবিসির সাংবাদিক গ্রেপ্তার
বিক্ষোভ রুখতে কঠোর অবস্থানে চীনা পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চীনে সরকারের কোভিড-শূন্য নীতির বিরুদ্ধে পথে নেমেছেন সাধারণ মানুষ। রোববার দেশটির সবচেয়ে জনবহুল শহর সাংহাইয়ে রাস্তায় শত শত মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেন, যেখানে সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। সেখানে খবর সংগ্রহ করতে গেলে ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা বিবিসির এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাকে পুলিশি হেফাজতে মারধর করার অভিযোগও উঠেছে।

রোববার বিবিসির এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চীনে কতর্ব্যরত আমাদের সাংবাদিক এড লরেন্সকে গ্রেপ্তার করে চীনা পুলিশ। সাংহাইয়ে সরকার-বিরোধী বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন তিনি। প্রথমে তাকে খবর সংগ্রহ করতে বাধা এবং পরে হাতকড়া পরিয়ে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিবিসি জানিয়েছে, লরেন্সকে গ্রেপ্তারের পর বেশ কয়েক ঘণ্টা আটক করে রাখা হয়েছিল। এরআগে পুলিশি হেফাজতে তাকে মারধর করা হয়েছে বলে দাবি বিবিসির।

বিবিসি তাদের বিবৃতিতে আরও জানিয়েছে, আমাদের কর্তব্যরত সাংবাদিককে যে ভাবে আক্রমণ করা হয়েছে, তাতে আমরা আতঙ্কিত। চীন সরকারের তরফে আমদের কাছে এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কেউ ক্ষমা চায়নি, দুঃখপ্রকাশ করা হয়নি। উল্টে পুলিশ দাবি করেছে, জনগণের ভিড়ে থেকে সাংবাদিকের দেহে কোভিড সংক্রামিত হয়ে যেতে পারত। সেই সম্ভাবনা এড়াতেই নাকি পুলিশ সেখান থেকে তাকে সরিয়ে নিয়ে গিয়েছে।

এদিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার বলেছে যে সপ্তাহান্তে সাংহাইতে একটি বিক্ষোভে গ্রেপ্তার হওয়া একজন বিবিসি সাংবাদিক নিজেকে সাংবাদিক হিসাবে পরিচয় দেননি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, লরেন্স নিজেকে একজন সাংবাদিক হিসাবে পরিচয় দেননি এবং স্বেচ্ছায় তার প্রেস প্রমাণপত্র উপস্থাপন করেননি। এছাড়াও আন্তর্জাতিক মিডিয়াকে চীনে থাকাকালীন চীনা আইন অনুসরণ করার আহ্বান জানিছেন।

সূত্র: এনডিটিভি

চীনে বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে বিবিসির সাংবাদিক গ্রেপ্তার

চীনে সরকারের কোভিড-শূন্য নীতির বিরুদ্ধে পথে নেমেছেন সাধারণ মানুষ। রোববার দেশটির সবচেয়ে জনবহুল শহর সাংহাইয়ে রাস্তায় শত শত মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেন, যেখানে সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। সেখানেই খবর সংগ্রহ করতে গেলে ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা বিবিসির এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাকে পুলিশি হেফাজতে মারধর করার অভিযোগও উঠেছে।

রেববার বিবিসির এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চীনে কতর্ব্যরত আমাদের সাংবাদিক এড লরেন্সকে গ্রেপ্তার করে চীনা পুলিশ। সাংহাইয়ে সরকার-বিরোধী বিক্ষোভের খবর সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন তিনি। প্রথমে তাকে খবর সংগ্রহ করতে বাধা এবং পরে হাতকড়া পরিয়ে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিবিসি জানিয়েছে, লরেন্সকে গ্রেপ্তারের পর বেশ কয়েক ঘণ্টা আটক করে রাখা হয়েছিল। এরআগে পুলিশি হেফাজতে তাকে মারধর করা হয়েছে বলে দাবি বিবিসির।

বিবিসি তাদের বিবৃতিতে আরও জানিয়েছে, আমাদের কর্তব্যরত সাংবাদিককে যে ভাবে আক্রমণ করা হয়েছে, তাতে আমরা আতঙ্কিত। চীন সরকারের তরফে আমদের কাছে এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কেউ ক্ষমা চায়নি, দুঃখপ্রকাশ করা হয়নি। উল্টে পুলিশ দাবি করেছে, জনগণের ভিড়ে থেকে সাংবাদিকের দেহে কোভিড সংক্রামিত হয়ে যেতে পারত। সেই সম্ভাবনা এড়াতেই নাকি পুলিশ সেখান থেকে তাকে সরিয়ে নিয়ে গিয়েছে।

এদিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার বলেছে যে সপ্তাহান্তে সাংহাইতে একটি বিক্ষোভে গ্রেপ্তার হওয়া একজন বিবিসি সাংবাদিক নিজেকে সাংবাদিক হিসাবে পরিচয় দেননি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, লরেন্স নিজেকে একজন সাংবাদিক হিসাবে পরিচয় দেননি এবং স্বেচ্ছায় তার প্রেস প্রমাণপত্র উপস্থাপন করেননি। এছাড়াও আন্তর্জাতিক মিডিয়াকে চীনে থাকাকালীন চীনা আইন অনুসরণ করার আহ্বান জানিছেন।

সূত্র: এনডিটিভি

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত