ঢাকা, সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ২৬ মিনিট আগে
শিরোনাম

চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন মারা গেছেন

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৪৮  
আপডেট :
 ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৭:৪৩

চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন মারা গেছেন
চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন। ফাইল ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন ৯৬ বছর বয়সে মারা গেছেন বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম। তিনি দীর্ঘ দিন ধরেই লিউকেমিয়া এবং একাধিক শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন।

সরকারী সিনহুয়া সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, সাংহাই শহরের নিজ বাড়িতে বুধবার দুপুর ১২:১৩ টায় মারা যান জিয়াং।

দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি, সংসদ, মন্ত্রিপরিষদ এবং সামরিক বাহিনী মৃত্যুর ঘোষণা করে চীনা জনগণের কাছে একটি চিঠি প্রকাশ করেছে । চিঠিতে বলা হয়েছে, কমরেড জিয়াং জেমিনের মৃত্যু আমাদের পার্টি এবং আমাদের সেনাবাহিনী এবং আমাদের সমস্ত জাতিগোষ্ঠীর জনগণের জন্য একটি অপূরণীয় ক্ষতি।

রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারকারী সিসিটিভি জানিয়েছে, জিয়াংয়ের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া ব্যবস্থা কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেই কমিটি ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে, বুধবার থেকে জিয়াংয়ের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার তারিখ পর্যন্তচীন এবং বিশ্বব্যাপী প্রধান চীনা কমিউনিস্ট পার্টি এবং সরকারী ভবনগুলিতে পতাকা অর্ধনমিত করা হবে। তবে এখনও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার তারিখ ঘোষণা করা হয়নি।

১৯৮৯ সালে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের উপর রক্তাক্ত তিয়ানআনমেনের ক্র্যাকডাউনের পরে জিয়াংকে চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি ও দেশটি প্রেসিডেন্টের নেতৃত্ব দেয়া হয়েছিল। এরপর দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে চীনের রাষ্ট্রপ্রধান এবং কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারপার্সন ছিলেন।

তার শাসনামলে জিয়াং ইতিহাস সৃষ্টিকারী পরিবর্তনের মাধ্যমে চীনকে অন্য পর্যায়ে নিয়ে গেছেন যার মধ্যে রয়েছে বাজার-ভিত্তিক সংস্কারের পুনরুজ্জীবন।তার আমলে দেশটি আগের তুলনায় অনেক বেশি উদার হয়েছিল, কূটনৈতিক বিচ্ছিন্নতা কাটিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কেরও উন্নতি ঘটেছিল। এছাড়াও ১৯৯৭ সালে ব্রিটিশ শাসন থেকে হংকংয়ের প্রত্যাবর্তন এবং ২০০১ সালে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় (ডব্লিউটিও) প্রবেশ করে বেইজিং।

যদিও অনেক পর্যবেক্ষক জিয়াং-এর রাজত্বকে ব্যাপক দুর্নীতির বীজ বপনের সময় বলেও বর্ণনা করেন। অনেকের ধারণা, তিনি রাজনৈতিক সংস্কারের পরিবর্তে একদলীয় শাসনের উপর জোর দিয়েছেন।

২০০২ সালের শেষের দিকে, জিয়াং তার উত্তরসূরি হু জিনতাওকে প্রথমে পার্টির চেয়ারম্যান এবং পরে প্রেসিডেন্ট হিসেবে খেতাব হস্তান্তর করেন। কিন্তু তিনি ২০০৫ সাল পর্যন্ত চীনের সামরিক প্রধান পদে ছিলেন।

এদিকে, আনুষ্ঠানিক অবসর গ্রহণের পরেও, চীনের বর্তমান নেতা শি জিনপিংয়ের নির্বাচন সহ পর্দার আড়ালে থেকে রাজনৈতিক প্রভাব অব্যাহত রেখেছিলেন জিয়াং।

জিয়াং এরপর ধীরে ধীরে জনসম্মখে আসা বন্ধ করে দেন। শেষবার বেইজিংয়ের তিয়ানানমেন গেটে ২০১৯ সালের সামরিক কুচকাওয়াজে পার্টির ক্ষমতায় ৭০ তম বার্ষিকী উদযাপনে প্রকাশ্যে উপস্থিত হয়েছিল। এছাড়াও গত মাসে পার্টি কংগ্রেসে অনুপস্থিত ছিলেন যেখানে প্রাক্তন নেতাদের তাদের পরিষেবার স্বীকৃতি হিসাবে আসন দেয়া হয়।

সূত্র: আলজাজিরা, সিএনএন

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত