ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১৮

প্রিন্ট

ফের শাটডাউন ঝুঁকির মুখে যুক্তরাষ্ট্র

ফের শাটডাউন ঝুঁকির মুখে যুক্তরাষ্ট্র
অনলাইন ডেস্ক

কোনো চুক্তি ছাড়াই শেষ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান ও বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের সদস্যদের মধ্যকার আলোচনাটি। সীমান্ত নিরাপত্তা নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছানো ও মার্কিন সরকারের আরেকটি শাটডাউন বা অচলাবস্থা এড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে তারা ওই আলোচনায় মিলিত হয়েছিলেন।

দু পক্ষের আলোচকরা সোমবারের মধ্যে একটি চুক্তিতে পৌঁছে শুক্রবারের মধ্যে সেটি প্রস্তাবাকারে পাস করাতে চেয়েছিলেন। কেননা যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা অচলাবস্থা অবসানে গত মাসে হওয়া তিন সপ্তাহের চুক্তিটির সময়সীমা শুক্রবার শেষ হচ্ছে।

ফলে শুক্রবারের মধ্যে নতুন কোনো সমঝোতা চু্ক্তি স্বাক্ষর না হলে ফের আংশিক অচলাবস্থায় পড়বে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

এর আগে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দকে কেন্দ্র করে একটানা ৩৫ দিন অচল ছিলো ট্রাম্প প্রশাসন।

রয়টার্স জানাচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবিকৃত অর্থ বরাদ্দ নিয়ে এখনও কোনো সমঝোতায় পৌঁছুতে পারেনি রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট কংগ্রেস সদস্যরা।

অভিবাসীদের আটক করার নীতি নিয়ে ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাদের মধ্যে বিরোধের পর চলমান আলোচনা থমকে যায় বলে রোববার রিপাবলিকান সিনেটর রিচার্ড শেলবি জানিয়েছেন। এ আলোচনায় তিনি রিপাবলিকানদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

ডেমোক্র্যাটরা চায় মার্কিন ইমিগ্রেশন এন্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের (আইসিই) ডিটেনশন সেন্টারগুলোর শয্যা সংখ্যা কমাতে। এছাড়া তারা আরো চায় ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও যারা যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছে তাদের বদলে যেসব অভিবাসীর বিরুদ্ধে অপরাধের রেকর্ড আছে কেবল তাদেরই আটক করা হউক।

এসব শর্তের বিনিময়ে রিপাবলিকানদের সীমান্ত দেয়ালের জন্য কিছু অর্থ ছাড়ের প্রস্তাব দিয়েছে তারা। কিন্তু ওই প্রস্তাবে তারা দেয়াল নির্মাণের জন্য যে পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ দিতে চাইছে তা ট্রাম্পের প্রস্তাবিত বরাদ্দ থেকে অনেক কম। মেক্সিকো সীমান্তে প্রস্তাবিত দেয়াল নির্মাণ বাবদ ৫৭০ কোটি ডলার দাবি করেছেন ট্রাম্প।

এ প্রসঙ্গে রোববার ফক্স নিউজকে শেলবি বলেছেন, ‘আমরা নতুন কোনো চুক্তিতে পৌঁছুতে পারব বলে মনে হচ্ছে না। চুক্তির সম্ভাবনা ৫০-৫০।’

এদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অভিযোগ করে বলেছেন, ডেমোক্র্যাট নেতারা মধ্যস্থতাকারীদের একটি সমঝোতায় পৌঁছুতে বাধা দিচ্ছেন।

নতুন করে ফের অচলাবস্থা শুরু হলে যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি, পররাষ্ট্র, কৃষি ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ফের অর্থ সংকটে পড়বে। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রায় আট লাখ কর্মচারী মাসোহারা থেকে বঞ্চিত হবেন।

সূত্র: রয়টার্স

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close