ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ১৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৭ মে ২০১৯, ১১:১৫

প্রিন্ট

মোদির মুখে বাঙালি গৃহবধূ রিনা সাহার কথা

মোদির মুখে বাঙালি গৃহবধূ রিনা সাহার কথা
নরেন্দ্র মোদি, ইনসেটে রিনা সাহা
অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচনে বিপুল আসনে জয়ের পর নিজ রাজ্য গুজরাটে সভা করেছেন নরেন্দ্র মোদি। সভায় মোদি মমতার বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে কথা বলেছেন। তার মুখে আরো উঠে এসেছে ফেসবুকে ঝড় তোলা বাঙালি নারী রিনা সাহার কথা।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ইতিহাস তৈরি করেছে মোদির দল বিজেপি। উত্তরপ্রদেশের পর সারা দেশে বিজেপি সব চেয়ে বেশি ভোট পেয়েছে এই রাজ্যে। ৪২ আসেনর মধ্যে ১৭টিই গেছে মোদির দখলে।

এই পরিস্থিতিতে মোদি তার ভাষণে তুলে এনেছেন রায়গঞ্জের রিনা সাহার কথা। এই গৃহবধূর হিন্দি টিভি সাক্ষাৎকারের ভিডিয়ো ইতিমধ্যেই ভাইরাল। যেখানে ভাঙা ভাঙা হিন্দিতে তাকে বলতে শোনা গিয়েছিল, ‘২২ দিন গুজরাত ঘুরকে আয়া হ্যায়। গুজরাত মে বিকাশ হুয়া হ্যায় মানে স্বর্গ হুয়া হ্যায়! মোদি সরকারনেই তো করতা হ্যায়। কাজেই মোদি সরকারকে হাম সাপোর্ট করতা হ্যায়।’

রিনাদেবী আরো বলেছিলেন, বাংলায় গুজরাতের মতো ‘স্বর্গ’ তৈরি হতে একশো বছর লাগবে। কারণ এই রাজ্যে সরকারের টাকা নেতারা ‘খেয়ে নেন’।

রোববার মোদি ওই প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলার এক বয়স্কা বোনের সাক্ষাৎকার দেখেছি। মোদি মোদি করে বাংলায় কথা বলছিলেন। তিনি বলেছেন, ‘আমি গুজরাটে গিয়েছি। দেখেছি স্বর্গ হয়েছে, স্বর্গ!’

যদিও তিনি ভোট কাকে দেবেন জানতে চাওয়া হলে বলেন, ‘কমিউনিস্ট পার্টিকে।’

বঙ্গের ওই বধূকে অনেকেই বলছেন, ‘গুজরাটের মডেলের নতুন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর’। কারণ আজই উন্নয়নের সেই গুজরাত মডেলের কথা বহু দিন পরে শোনা গিয়েছে মোদির মুখে।

গুজরাতের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মোদি বলেন, ‘২০১৪ সালে গুজরাটকে জানার সুযোগ পেয়েছিল দেশ। সামনে এসেছিল গুজরাট বিকাশের মডেল। দেশের ইতিহাসে ১৯৪২-৪৭ সালের মতোই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে আগামী পাঁচটা বছর। লক্ষ্য হবে সার্বিক উন্নয়ন। বিশ্বের দরবারে পুরনো আসন ফিরিয়ে দিতে হবে ভারতকে।’

মোদি আরো বলেন, ষষ্ঠ দফা ভোটের পরে তিনি যখন তিনশো আসন পেরোনোর কথা বলেছিলেন, তখন হেসেছিলেন অনেকে। কিন্তু মানুষ শক্তিশালী সরকারই চেয়েছে। সারা বিশ্বের সমর্থন পেয়েছেন তিনি।

সভায় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ প্রথমে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘এত জোরে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলুন, যাতে বাংলা পর্যন্ত আওয়াজ পৌঁছায়।’

পরে মাতৃভাষায় মোদি নিজের বক্তৃতা শেষ করেছেন ‘ভারত মাতা কি জয়’ স্লোগান তুলেন। এসময় তিনি জনতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘যে ভাবে সভাপতি বললেন, সে ভাবে বলুন। যাতে বাংলায় আওয়াজ পৌঁছায়।’

সূত্র: আনন্দবাজার

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত