ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৯, ১১:১৮

প্রিন্ট

কাশ্মীরে গেরিলা হামলায় ৫ ভারতীয় জওয়ান নিহত

কাশ্মীরে গেরিলা হামলায় ৫ ভারতীয় জওয়ান নিহত
ফাইল ফটো
অনলাইন ডেস্ক

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলায় বিচ্ছিন্নতাবাদী গেরিলাদের গুলিতে কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফের কর্মকর্তাসহ পাঁচ জওয়ান নিহত হয়েছেন। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর পাল্টা হামলায় এক গেরিলাও নিহত হয়েছে।

দু’পক্ষের গোলাগুলিতে আরশাদ আহমেদ খান নামে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের এক কর্মকর্তা ও স্থানীয় এক বাসিন্দা আহত হয়েছেন।

হামলার দায় স্বীকার করেছে মুস্তাক আহমেদ জ়ারগারের জঙ্গি সংগঠন আল উমর মুজাহিদিন। কাশ্মীরে অমরনাথ যাত্রার আগে এই হামলা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে।

পুলিশের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, বুধবার বিকাল পাঁচটা নাগাদ অনন্তনাগে কেপি রোডে জেনারেল বাস স্ট্যান্ডের কাছে মোতায়েন সিআরপিএফ ও পুলিশের যৌথ দলের উপরে হামলা চালায় গেরিলারা। প্রথমে গ্রেনেড ছোড়া হয়। তার পরে শুরু হয় গুলিবর্ষণ। জবাব দেন জওয়ানেরাও। ঘটনার খবর পেয়ে অতিরিক্ত বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে যান অনন্তনাগ সদর থানার ওসি ইরশাদ আহমেদ।

দু পক্ষের সংঘর্ষে ইরশাদ-সহ আট জওয়ান আহত হয়। তাদের প্রথমে অনন্তনাগ জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ইরশাদ-সহ তিনজনকে নিয়ে যাওয়া হয় শ্রীনগরে। আহতদের মধ্যে তিন সিআরপিএফ জওয়ান হাসপাতালে পৌঁছনোর আগেই মারা যান বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। পরে হাসপাতালে আরও দুই জওয়ানের মৃত্যু হয়। নিহত জওয়ানেরা হলেন এএসআই নীরু শর্মা, কনস্টেবল সীতেন্দ্র কুমার, কনস্টেবল এম কে কুশওয়া, এএসআই রমেশ কুমার ও কনস্টেবল মহেশ কুমার।

অনন্তনাগ থানার ওসি ইরশাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গুলি বিনিময়ে স্থানীয় এক নারীও আহত হন। এ ঘটনায় একজন গেরিলাও নিহত হয়েছে। তবে তার পরিচয়ও এখনও জানা যায়নি। ভারতীয় বাহিনীর ধারণা, দ্বিতীয় জঙ্গি পালিয়েছে। ওই হামলার পর গোটা এলাকা ঘিরে তল্লাশি শুরু করেছে সেনা, পুলিশ ও সিআরপিএফের যৌথ বাহিনী।

এদিকে আগামী ৩ জুলাই থেকে জম্মু-কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতির শাসনের মেয়াদ আরও ছ’মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। তবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই চলতি বছরে ওই রাজ্যে বিধানসভা ভোট করার প্রস্তুতি শুরু করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জঙ্গি নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

পহেলা জুলাই থেকে অমরনাথ যাত্রা শুরু হওয়ার কথা। এই পরিস্থিতিতে অনন্তনাগের হামলা মোদী-শাহকে নতুন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে বলে মনে করছেন অনেকে।

সূত্র: আনন্দবাজার

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত