ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:২৭

প্রিন্ট

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়ার ঘোষণায় ট্রাম্প-মোদি

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়ার ঘোষণায় ট্রাম্প-মোদি
অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে রোববার ‘হাউডি মোদি: শেয়ার্ড ড্রিমস, ব্রাইট ফিউচার’ জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে ইসলামি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্প। অনেকটা একই ধরনের বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রে সফররত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর পরস্পরের প্রতি সৌহার্দ্য আর আন্তরিকতা প্রকাশে কোনোই কার্পণ্য করেনি দুই নেতা।

মোদির যুক্তরাষ্ট্র সফর উপলক্ষে প্রবাসী ভারতীয়দের আয়োজিত ওই সভায় ট্রাম্প বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে নিরাপত্তাই সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্র দু’দেশই বোঝে দেশের মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে সীমান্ত সুরক্ষা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। সীমান্ত সুরক্ষা যেমন আমেরিকার কাছে গুরুত্বপূর্ণ, তেমনই ভারতের জন্যও জরুরি। কেননা দু’দেশেই রয়েছে অনুপ্রবেশের সমস্যা। মেক্সিকো সীমান্তে অনুপ্রবেশ রুখতে ইতিমধ্যেই উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সুতরাং এই অনুপ্রবেশকারীদের কড়া হাতে নিয়ন্ত্রণ করে ইসলামি সন্ত্রাস প্রতিরোধ করতে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করবে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত। ইসলামি সন্ত্রাসের হাত থেকে নিরীহদের রক্ষা করতে ভারত এবং আমেরিকা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

পরে সন্ত্রাস প্রশ্নে মোদির বক্তব্যেও ট্রাম্পের সেই কড়া অবস্থানেরই প্রতিফলন দেখা যায়। পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করে মোদি বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াইয়ে আমাদের পাশে আছেন ট্রাম্প। ভারতের প্রতি বিদ্বেষ থেকে সন্ত্রাসে মদত দিচ্ছে একটি দেশ। সেই দেশকে বিশ্ব চেনে।’

ভাষণের শুরুতেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট মোদিকে ‘হোয়াইট হাউসের প্রকৃত বন্ধু’ ও ‘আমার সবচেয়ে বিশ্বস্ত বন্ধু’বলে প্রচুর প্রশংসা করেন। একই সঙ্গে চলতি বছরে অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে জয়ের জন্য অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি মোদিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছাও জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

মোদি সরকারের প্রশংসা করে ট্রাম্প বলেন, ‘মোদির নেতৃত্বে ভারতে দারিদ্র‌্য দূরীকরণে উল্লেখযোগ্য সাফল্য এসেছে। অসামান্য কাজ করেছেন মোদি। তার নেতৃত্বে ভারতীয়রা এগিয়ে চলেছে।’

শুধু তাই নয়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও জানান, শীঘ্রই ‘টাইগার ট্রায়াম্ফ’নামে একটি যৌথ প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীও হতে চলেছে। আগের তুলনায় ইন্দো-মার্কিন নিরাপত্তা আরও জোরদার হয়েছে। ভারতে কাঁচা তেল রপ্তানি ৪০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, রেকর্ড হারে বেড়েছে গ্যাস রপ্তানিও। আবার ভারতীয় সংস্থা জেএসডব্লু স্টিলও আমেরিকায় ৫০০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে বলে ঘোষণা করেছে। এর পাশাপাশি আমেরিকায় ভারতীয়দের কর্মসংস্থানও বাড়ছে বলে মন্তব্য করেন ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জানান, মহাকাশে আধিপত্য বিস্তারে ভারত-আমেরিকা যৌথভাবে কাজ করবে।

ট্রাম্প এদিন মোদির কাছে ভারত সফরে আসারও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

ট্রাম্প বলেন, ‘খুব শীঘ্রই ভারতে অনুষ্ঠিত হবে এনবিএ বাস্কেটবল। আগামী সপ্তাহে মুম্বইয়ে হবে প্রথম এনবিএ গেম। প্রধানমন্ত্রী, আমি কি নিমন্ত্রিত?’

মোদির মুখে হাসি দেখে ট্রাম্পের বক্তব্য ,‘আমি যদি এসে পড়ি অবাক হবেন না যেন!সতর্ক থাকবেন কিন্তু! আমি আসতে পারি।’

সমাবেশের আগেই টুইট করে ‘হাউডি মোদি’অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য উৎসুক হয়ে রয়েছেন বলে জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মোদিকে বন্ধু বলে সম্বোধন করে তিনি বলেন, খুব সুন্দর একটা সময় কাটবে বলে আশা করছেন তিনি।

জবাবে রিটুইট করে মোদি লেখেন, ‘অবশ্যই খুব সুন্দর সময় কাটাব। আপনার সঙ্গে দেখা করার জন্য উৎসুক হয়ে রয়েছি।’

প্রসঙ্গত, এমন এক সময়ে মোদি ও ট্রাম্প সন্ত্রাসবাদ নিয়ে একাত্মতা প্রকাশ করে এইসব বিবৃতি দিলেন যখন কাশ্মীর ইস্যুকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে প্রতিবেশী দুই দেশ ভারত ও পাকিস্তান। গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের ওপর থেকে বিশেষ ব্যবস্থা তুলে নেয়ার পর থেকে সেখানে চলছে চরম মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা। এ নিয়ে নানা প্রতিবেদন প্রকাশ করে চলেছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো। নিন্দা জানিয়েছে আন্তর্জাতক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকেও। কাশ্মীর ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সমর্থন জোগাড়ের জোর চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। যদিও এ ব্রাপারে তারা খুব একটা সফল হতে পারেনি বলেই মনে হয়। এ অবস্থায় সোমবার নিউইয়র্কে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরন খানের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হতে চলেছেন ট্রাম্প।

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত