ঢাকা, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬ অাপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৯, ১৯:৫৫

প্রিন্ট

বিচারক নিজেই আইন ভাঙলেন

বিচারক নিজেই আইন ভাঙলেন
অনলাইন ডেস্ক

অস্ত্র মামলার আসামিকে আইনের নির্ধারিত সর্বনিম্ন সাজার চেয়ে কম সাজা দেওয়ার ঘটনায় নাটোরের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক বেগম রুবাইয়া ইয়াসমিনের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি এএনএম বশির উল্লাহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. তাহেরুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আমিনুল ইসলাম ও আনোয়ারা শাহজাহান এবং সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ফাতেমা রশিদ।

অস্ত্র মামলার আসামি নাটোর সদরের কাঠালবাড়িয়া গ্রামের মো. লোকমান ভুঁইয়ার ছেলে মো. রাজ্জাককে অস্ত্র মামলায় দেওয়া সাত বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আসামির করা আপিলের ওপর শুনানিকালে বিষয়টি আদালতের নজরে আসে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৭ জুলাই পিস্তলসহ মো. রাজ্জাককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। একই দিন তার বিরুদ্ধে নাটোর সদর থানায় মামলা হয়। এই মামলায় বিচার শেষে গত ২৮ মার্চ রাজ্জাককে সাত বছরের কারাদণ্ড দেন নাটোরের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক বেগম রুবাইয়া ইয়াসমিন। ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ক ধারায় এ সাজা দেয়া হয়। অথচ আইনের এই ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং সর্বনিম্ন সাজা ১০ বছর। পরে আসামি হাইকোর্টে আপিল করেন। বৃহস্পতিবার আদালত তার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে নথি তলব করেছেন। একইঙ্গে দণ্ডের বিষয়টি নজরে আসায় ওই বিচারকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছেন হাইকোর্ট। আইনের কোন কর্তৃত্ববলে এ আদেশ দিয়েছেন তা আগামী ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে। ওই দিন এই মামলার পরবর্তী আদেশ দেবেন আদালত।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close