ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল ২০২০, ০৯:১২

প্রিন্ট

লকডাউনে হাতের কাছে রাখুন এসব সামগ্রী

লকডাউনে হাতের কাছে রাখুন এসব সামগ্রী

Evaly

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। ইতিমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখের বেশি মানুষ। আর মারা গেছেন প্রায় ৮০ হাজার মানুষ। এ অবস্থায় করোনা থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় হচ্ছে নিজেকে গৃহবন্দি করে রাখা। যে কারণে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও চলছে লকডাউন।

এই অবস্থায় রোজ ব্যাগ নিয়ে প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে বাজারে ভিড় না করে একটু প্ল্যান করে নিন। তা হলেই সার্থক হবে লকডাউন, সুস্থ থাকবেন সকলে। জরুরি কোন কোন সামগ্রী এই সময় অবশ্যই কিনে রাখতে হবে। চলুন তাহেলে দেখে নেই কি কি প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে হবে হাতের কাছে।

১. খাবার

একেবারে সাধারণ কিছু খাবার বাড়িতে রেখে দিন। তবে সরকার থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের জোগান স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিছু সময়ের জন্য খোলা থাকছে বাজারও। তাই একেবারেই বেশি খাবার মজুত করবেন না।

২. ওষুধ

প্রত্যেক বাড়িতেই জরুরি কিছু সাধারণ ওষুধের প্রয়োজন। যেমন জ্বর-সর্দি-কাশি-পেটের সমস্যা, অ্যাসিডিটি। এই ধরনের কিছু সমস্যার ওষুধ হাতের কাছে থাকলে প্রয়োজনে বার বার বাড়ি থেকে বার হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।

৩. খাবার পানি

পানির জোগানে যেন কোনও অবস্থাতেই টান না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে যাদের বাড়িতে টিউবওয়েল বা পানীয় জলের সরবরাহের ব্যবস্থা নেই, অনেকটা দূর থেকে বয়ে আনতে হয়, তারা বাড়িতে একটু বেশি পরিমাণ পানি মজুত করে রাখুন বাড়িতে।

আর শহরে যারা ফিল্টারের পানি খান তারা দেখে নিন এর কোনও যন্ত্রাংশ বদলাতে হবে কিনা। কারণ হঠাৎ করে সমস্যা হলে আপনি ধারেকাছে নাও পেতে পারেন। আর যারা জারের পানি খান, তারা কিছু বেশি জার অর্ডার দিয়ে এনে রাখুন।

৩.ফার্স্ট এইড

রান্নাঘরে বা বাড়ির অন্যান্য কাজকর্ম করার সময় হাতে-পায়ে চোট লাগতেই পারে। তাই ফার্স্ট এইড কিট তৈরি রাখুন।

৪. বেবিফুড

বাড়িতে বাচ্চা থাকলে তাদের খাওয়া-দাওয়া এবং অন্যান্য জিনিসপত্রের প্রয়োজন হয়। তাই দুধসহ বেবি ফুড, বিস্কিট এবং বাচ্চার প্রয়োজনীয় দৈনন্দিন সামগ্রী কিনে রাখুন। কারণ দোকান খোলা থাকলেও, এই সময় বার বার বাইরে না বেরনোই সকলের জন্য মঙ্গল।

৫.মোমবাতি-দিয়াশলাই

গৃহবন্দি থাকার সময় যদি লোডশেডিং হয়? তার জন্য আগাম মোমবাতি বা বিকল্প আলোর ব্যবস্থা করে রাখুন। কিছু বাড়তি দেয়াশলাইও আনিয়ে রাখতে পারেন।

এছাড়া আপনার ফ্লাশলাইট, হিয়ারিং এইড, স্মোক ডিটেক্টর ইত্যাদি যে সমস্ত প্রয়োজনীয় সামগ্রী ব্যাটারিতে চলে, সেগুলোর জন্য অতিরিক্ত ব্যাটারি বাড়িতে রয়েছে কিনা দেখে নিন।না থাকলে অবশ্যই কিনে আনুন।

৬. বিনোদন

গৃহবন্দি থাকাকালীন নিজেকে অবসাদমুক্ত রাখার অন্যতম উপায় হল বিনোদন। তাই বিনোদনের ব্যবস্থা ঠিকঠাক রয়েছে কি না দেখে নিন আরও একবার। কিনে রাখতে পারেন নতুন কিছু বই আর সিডিও।

৭. গুরুত্বপূর্ণ নথি

এই সময় বাইরের সমস্ত কাজকর্ম বন্ধ ঠিকই, কিন্তু কখন কী প্রয়োজন পড়ে, তা কি আগে থেকে বলা সম্ভব? তাই নিজের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ নথি, যেমন পরিচয়পত্র, ব্যাঙ্কের চেকবই ইত্যাদি হাতের কাছে রাখুন।

৮. অন্যান্য

আপনি যদি নিয়মিত জিম করতে যান তাহলে বাড়িতেই কিছু ছোটখাট সামগ্রী কিনে নিন। এতে করে জিমে না যাওয়ার দিনগুলেঅতে ঘরে বসেই হয়ে যাবে জিমের কাজ।

এছাড়া বাথরুমে প্রয়োজনীয় শ্যাম্পু, সাবান, টয়লেট পেপার, পেস্টসহ যা যা আপনার নিয়মিত কাজে লাগে, সেগুলোও দেখে নিন সব যথেষ্ট পরিমাণে রয়েছে কি না।

এইসব জিনিসগুলো মনে করে হাতের কাছে থাকলে আপনাকে যখন তখন বাইরে বেরুতে হবে না। একইসঙ্গে থাকবেন চিন্তুামুক্ত।

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত