ঢাকা, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ আপডেট : ৭ মিনিট আগে

ফ্যাশনে জামদানি, নতুনত্বে ‘হালুম ক্রাফট’

  সুরাইয়া নাভা তরু

প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০২১, ১৮:২১  
আপডেট :
 ১৭ আগস্ট ২০২১, ১৮:৪৪

ফ্যাশনে জামদানি, নতুনত্বে ‘হালুম ক্রাফট’
পোশাক: হালুম ক্রাফট
সুরাইয়া নাভা তরু

জামদানি, শব্দটার সাথে বাংলার মেয়েরা খুব ভালো করেই পরিচিত। বাংলার ঐতিহ্য বহন করে আনছে এই যুগের পর যুগ এই জামদানি। ঐতিহ্যবাহী নকশা ও বুননের কারণে ২০১৬ সালে জামদানিকে বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ইউনেস্কো।

অন্যদিকে, ২০১৯ সালে জামদানি উৎসব জাতীয়ভাবে উদযাপিত হয়েছে। কঠিন পাথরের রত্ন নয়, বরং নরম তুলোয় তৈরি এক অমূল্য ধন। মানুষের সৃজনশীলতার ইতিহাসে আজ অবধি এ এক অপার বিষ্ময়! জ্বি , বলছিলাম ‘জামদানি’-র কথা। জামদানি বলতে কেবল শাড়ি বুঝি?

এই জামদানি দিয়ে চমৎকার রুচিসম্মত ড্রেস তৈরী করা যায় জানেন কি?

আমরা বাঙালি, আমাদের ১২ মাসে ১৩ পর্বণ। আবার আমাদের আবহাওয়া এক এক ঋতুতে একেক রকম। কিন্তু আমাদের সাজগোজ তো চলতে থাকবেই। এর উপর আসছে বিয়ের মরশুম। কিন্তু আমরা তো আবার আরামের দিকটা শত ভাগ লক্ষ্য করি। আপনাদের আরাম, রুচি, সৌন্দর্য্য, দৃষ্টিনান্দনিকতা আর শোভাবর্ধক সব কিছুকে চিন্তায় এনে, আমি ফ্যাশন ডিজাইনার সুরাইয়া নাভা তরু এনেছি জামদানির কিছু নতুনত্ব। জামদানির এমন সব ডিজাইনার কালেশন এনেছেন যেগুলো আপনাকে হালকা সাজেও করে তুলবে অনন্য।

অনেকেই শাড়ি পরতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন না, তাদের জন্য এই নান্দনিক ফ্যাশন ডিজাইনারের এই একই ম্যাটারিয়াল ব্যাবহার করে নতুন কিছু তৈরীর প্র‍য়াস। হ্যাঁ, জামদানির ডিজাইবান ড্রেস এর কথাই বলা হচ্ছে।দেশিয় পণ্যকে নতুনত্ব দিয়ে ভিন্ন আঙিকে নিয়ে এসেছেন তিনি। জামদানি কেনো শাড়ির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। এর দ্বারা তৈরী পোশাকের সৌন্দর্য্য সত্যিই নজারকারা।

জামদানির এই ডিজাইনার ড্রেস আপনি যে কোনো অনুষ্ঠানে ক্যারি করতে পারবেন। সামনেই আসছে পূজা, বাঙালিয়ানা ব্যাপারটা ধরে রাখতে পারবেন এবং এই গরমে আধুনিকতার সাথে ফ্যাশন হবে আরামের সাথে। বিয়ে বাড়ি থেকে শুরু করে যেকোনো কালচারাল প্রোগ্রামে জামদানি ড্রেস আপনাকে এলিগেন্ট করে তুলতে পারে।

জামদানি বরাবরই ঐতিহ্যের বাহক। নতুনত্ব আনায় এর সৌন্দর্য্য আরোও বিমোহিত হয়েছে। আধুনিকতার সাথে নিজেকে সুন্দরভাবে সজেই উপস্থাপন করা যাবে এই জামদানি ডিজাইনার ড্রেসগুলো দিয়ে।

এককালের হারিয়ে যাওয়া বুনন শিল্প বাংলায় ফিরে এসেছে। ঠিকমতো তুলে ধরা হলে এর বিসৃতি বৃদ্ধি পাবে অনেক। জামদানির চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই চেনা জিনিসের নতুনত্ব আমাদেরই ধরে রাখতে হবে।

সুরাইয়া নাভা তরু, প্রতিষ্ঠাতা : Halum craft

বাংলাদেশ জার্নাল

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত