ঢাকা, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ২ মিনিট আগে
শিরোনাম

যেভাবে দীর্ঘদিন ভালো থাকবে প্রিয় জামদানি শাড়িটি

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ২৬ মে ২০২২, ০৯:০৫

যেভাবে দীর্ঘদিন ভালো থাকবে প্রিয় জামদানি  শাড়িটি

জার্নাল ডেস্ক

ভালবাসার শাড়ির ভেতর জামদানির স্থানটা থাকে সবচেয়ে উপরে। জামদানির উপর আকর্ষণ ও টান স্বাভাবিকভাবেই বেশি থাকে তার অপূর্ব কারুকাজ সমন্বিত নকশা ও বৈচিত্রের জন্য। মিহি সুতার কাজে ফুটে ওঠা এক একটি শাড়ি যেন হাজারো গল্পের জন্ম দেয়।

তবে সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হল, জামদানি শাড়ি খুব সহজেই নষ্ট হয়ে যায়। অন্যান্য ঘরানার শাড়ির চাইতে জামদানি শাড়ির বুননে পার্থক্য থাকায় বাড়তি খেয়াল ও যত্নের প্রয়োজন হয় জামদানির শাড়ির রক্ষণাবেক্ষণে।

১. শাড়ি ব্যবহারের পর ভাঁজ করে অনেকদিন রেখে দিলে তা ভাঁজে ভাঁজে ফেটে যেতে পারে। আবার হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখলেও শাড়ি মাঝখানে ফেটে যায়। তাই জামদানী শাড়ি থান কাপড় রাখার রোলের মধ্যে পেঁচিয়ে রাখলে অনেক দিন পর্যন্ত ভালো থাকে। তবে রোল করা শাড়িটি এমনভাবে রাখতে হবে, যেনো অন্য কোন কিছুর চাপের উপর না পড়ে।

২. অনেকই জামদানি শাড়ি ব্যবহারের পর ধুয়ে ফেলেন, এটা হাফ সিল্ক জামদানীর জন্য মোটেও ভালো না। আপনি চাইলে ড্রাইওয়াশ করতে পারেন।

৩. জামদানী শাড়ি ব্যবহারের পরে ঘামে অথবা বৃষ্টির পানি লাগলে বাসায় এসে ফ্যানের নিচে শুকিয়ে নিবেন।

৪. কাঠের আলমারি থেকে স্টিলের আলমারিতে জামদানি শাড়ি বেশীদিন ভালো থাকে।

৫. মাঝে মাঝে বিকেলের রোদে শুকাতে দিতে পারেন।

৬. শাড়িটি একটু নরম হয়ে গেছে মনে হলে আপনি ৩০০-৪০০ টাকার বিনিময়ে কাঁটা করিয়ে নিবেন। আপনার জামদানি আবার প্রাণ ফিরে পাবে।

৭. জামদানি শাড়ির ব্লাউজ শাড়ির চেয়েও স্পর্শকাতর হতে পারে, যেহেতু একই কাপড় কেটে ব্লাউজ করা হয়। এক্ষেত্রে সবচেয়ে সঠিক উপায় হল, অন্য কাপড় দিয়ে ব্লাউজ তৈরি করে ব্লাউজ পিসের পাড়টা লেসের মতো হাতায় লাগিয়ে নেয়া।

বাংলাদেশ জার্নাল/স্বর্ণ/ওএফ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত