ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৬ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:২৮

প্রিন্ট

রাস্তায় কেনা খাবারে মৃত্যু হতে পারে আপনার!

রাস্তায় কেনা খাবারে মৃত্যু হতে পারে আপনার!
রাস্তা থেকে কেনা জুস খেয়ে মারা যান ময়মনসিংহের ত্রিশালের মেধাবী ছাত্রী সুস্মিতা হোম চৌধুরী মন্টি।
জার্নাল ডেস্ক

রাজধানীর ট্রাফিক জ্যামে কোনো গাড়িতে বসে আছেন। এসময় জানালা দিয়ে ঠাণ্ডা পানি, জুস অথবা বিভিন্ন রকমের কাটা ফল নিয়ে বিক্রেতারা আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। আপনিও গরম আবহাওয়া থেকে কিছুটা শান্তির জন্য সেইসব খাবার কিনেও নিচ্ছেন। এভাবেই আমাদের অনেকেই রাস্তা পথে হকারদের কাছ থেকে খাবার কিনে খেতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে।

কিন্তু আপনি জানেন কি? এই রাস্তার কেনা খাবারে আপনার মৃত্যুও হতে পারে। সম্প্রতি ‘বাস থেকে কেনা জুস খেয়ে মেধাবী ছাত্রীর মৃত্যু’ এমন শিরোনামের একটি সংবাদ দেখে এ বিষয়ে লেখার ইচ্ছা হলো।

গত ৩ অক্টোবরের বেশকিছু পত্রিকার এ সংবাদের বর্ণনায় বলা হয়েছে, সুস্মিতা হোম চৌধুরী নামের ছাত্রীটিকে অচেতন করে মালামাল লুট করার জন্য ছিনতাই চক্রের কাজ ছিল এটা। ওরা দুটো শিশুকে দিয়ে মানবিক আবেদন করে জুস বিক্রি করে। পরবর্তীতে বাসায় ফিরে সে জুস খেলে চেতনানাশক ওষুধ মিশ্রিত থাকায় বিষক্রিয়ায় তার মৃত্যু ঘটে।

এমন ঘটনা আপনার আশে-পাশে নিয়মিতই ঘটে চলেছে। হয়তোবা এই ছাত্রীর মতো অন্যদের মৃত্যু ঘটে না; কিন্তু এমন সব বিষাক্ত খাবারগুলো সারা জীবনের জন্য শরীরে বিভিন্ন রোগ হিসেবে বাসা বেঁধে ফেলে। ডায়রিয়া, আমাশয়, চর্মের সংক্রমণ, শ্বাস-প্রশ্বাস ও পরিপাকতন্ত্রের সমস্যাসহ প্রাণঘাতী রোগ মেনিনজাইটিস ও সেপ্টেসেমিয়া হতে পারে। এছাড়াও লিভারের ক্ষতি এবং কিডনিও ড্যামেজ হয়ে যেতে পারে।

কিছু পরামর্শ-

১. যানবাহন চলমান থাকায় অনেক হকারই কম টাকায় মেয়াদোত্তীর্ণ পানি অথবা জুস অথবা বিভিন্ন খাবার কিনে বিক্রি করে থাকে তাই কেনার আগে অবশ্যই মেয়াদ দেখে নিন।

২. রাস্তাপথে পিপাসা লাগার সম্ভাবনা থাকলে বাসা থেকেই বোতলে পানি নিয়ে বের হতে পারেন।

৩. খোলা পরিবেশের কাটা ফল কেনা থেকে বিরত থাকুন।

যদিও অনেকেই এভাবে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন কিন্তু এর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ আপনার স্বাস্থ্য ও জীবন। আশা করছি সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল ব্যাক্তিগণ এসব নিয়ে ভাববেন ও নীতিমালা প্রয়োগ করে মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি কমাতে এগিয়ে আসবেন।

লেখক: কামরুজ্জামান নাবিল

ছাত্র, ডক্টর অব মেডিসিন, ইস্পাহান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ইরান

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত