ঢাকা, শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৬ নভেম্বর ২০২০, ২০:১৩

প্রিন্ট

ফল বদলে দেওয়ার নামে অভিনব প্রতারণা

ফল বদলে দেওয়ার নামে অভিনব প্রতারণা
প্রতীকী ছবি
হৃদয় আলম

শিক্ষাবোর্ডের ভুয়া কর্মকর্তার পরিচয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত রাজধানীর সাত কলেজের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষার ফলাফল পরিবর্তন করে দেওয়ার নামে একদল প্রতারক চক্র বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। টাকা আদায় হলেই গাঁ ঢাকা দেয় এই দলের সদস্যরা।

যে সকল পরীক্ষার্থী আশানুরূপ ফলাফল পেতে ব্যর্থ হচ্ছেন, তাদের টার্গেট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চালানো হচ্ছে প্রচারণা।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, পরীক্ষার ফল পরিবর্তন করে দেওয়ার কথা বলা হলেও বাস্তবে টাকা নিয়ে হাওয়া হয়ে যায় এরা। কাঙ্ক্ষিত ফল তো পাওয়াই যায়না উল্টো বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাদের।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ধরনের বিজ্ঞাপনের ফাঁদে পা দেওয়া খারাপ মূল্যবোধের দৃষ্টান্ত। তাই অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। এ ছাড়া নিয়মিত অভিযান এবং আইনি প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকলে এ ধরনের প্রতারণা বন্ধ করা সম্ভব বলেও মনে করেন তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এবারের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষায় তার কয়েকটি দুটি বিষয়ে আশানুরূপ ফল না আসায় তিনি কিছুটা হতাশায় ভুগছিলেন। তাই ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেখে এই প্রতারক চক্রের সাথে যোগাযোগ করে চেষ্টা করেন।

‘অগ্রিম টাকা নেওয়ার পর আমাকে বলা হয়, ২টি সাবজেক্টের ফলাফল যা আছে তা পরিবর্তন করে দেওয়া হবে। আমাকে তারা আশ্বাস দেয় অর্ধেক টাকা কাজে আগে দিলেই হবে। বাকি টাকা দিতে হবে কাজ শেষ হওয়ার পর। তাদের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তার কথা হয়েছে। আমার পরীক্ষা খারাপ হওয়ায় স্বাভাবিকভাবে তাদের কথা বিশ্বাস করে ফেলি। টাকাও দিয়ে দেয় আমার বাবা। কিন্তু টাকা নেওয়ার পর তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। সেই নম্বর বন্ধ,’ বলেন ওই শিক্ষার্থী।

এরকম কয়েকটি অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, ফেসবুক কিংবা সামাজিক অ্যাপগুলোতে দুই ধরনের বিজ্ঞাপনদাতা পাওয়া যায়। একদল বিজ্ঞাপনদাতা কাজের আগে অগ্রিম টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যায়।

অপর একটি দল অগ্রিম পুরো টাকা না নিয়ে অর্ধেক টাকা নিয়ে বাকি টাকা রেজাল্টের পর নেওয়ার কথা বলে দিনের দিনের পর আশায় রাখে।

সূত্রমতে, ফেসবুকে এরকম প্রতারণার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত আছে কয়েকটি ফেসবুক আইডি, বিকাশ নম্বর ও মোবাইল নম্বর। এসব আইডি ও মোবাইল ফোন নম্বরের মালিকরা প্রতারণার মাধ্যমে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

এমনই এক প্রতারকের সাথে কথা হয় প্রতিবেদকের। তার ০১৭৯৬০***৭৮ নম্বরে যোগযোগ করা হলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, ‘ভাই, আপনি কে, আমার নম্বর কোথায় পেয়েছেন? আমি ফোনে কথা বলবো না। আপনি আমাকে মেসেজ করেন। ফল পরির্বতন করা যাবে, মেসেজ দেন।’

সর্বশেষ সোমবার ১৬ নভেম্বর ‘7 college’ নামের একটি ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করেন প্রতারক চক্রের এক সদস্য। তিনি তার পোস্টে লিখেন, ‘আপনারা কেউ কোনো সাবজেক্টে ফেল করে থাকলে আমাকে ইনবক্স করুন। ইনশাল্লাহ, সহায়তা করতে পারবো।’

‘রাশেদুল আলম’ নামের ওই ব্যক্তির ফেসবুক আইডিতে ঘুরে দেখা যায় নামের নিচেই লেখা রয়েছে, ‘এডুকেশন বোর্ড বাংলাদেশ’। এই আইডির ফলোয়ার সংখ্যা এক হাজারেরও অধিক। যার মধ্যে অনেকেই রাজধানীর সাত কলেজের শিক্ষার্থী।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যেন এসব ফাঁদে পা না দেয় সেদিকে অভিভাবকদের লক্ষ্য রাখতে হবে। একইসঙ্গে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের বোঝাতে হবে এই পথে হাঁটলে হবে না। আমরা কখনও চাইবো না আমাদের সন্তানেরা খারাপ মূল্যবোধ নিয়ে বড় হোক। অভিভাবকের মূল্যবোধ যদি নিচের দিকে থাকে তাহলে বাচ্চাদের কী অবস্থা হবে? ভালো তো হবে না, তাই না? এসব থেকে সবাইকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।’

আইন থাকলেও তা প্রয়োগের অভাব আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে অপরাধীদের মধ্যে একটা বিষয় আছে, সেটা হলো অপরাধ করে পার পেয়ে যাওয়া। এজন্য অপরাধের প্রবণতা আরো বাড়ে। আইনের সঠিক প্রয়োগ করে শাস্তির দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করতে পারলে এ ধরনের অপরাধ অনেকাংশে কমে আসবে।’

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. ওয়ালিদ হোসেন বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, এটি গুরুতর প্রতারণা। ভুক্তোভোগীরা আমাদের অভিযোগ জানালে আমরা গুরুত্বসহকারে বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করে থাকি। আমরা সব ধরনের প্রতারণা রোধে কাজ করে যাচ্ছি।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আমরা কোনো ধরনের অভিযোগ পেলে অভিযোগ আমলে নিয়ে ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। এ ধরনের প্রতারণার বিরুদ্ধে প্রশাসন সর্বদা সোচ্চার।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত