ঢাকা, বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ৭ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৬ মার্চ ২০২১, ১৭:১৬

প্রিন্ট

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভিন্ন পথচলা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভিন্ন পথচলা
ছবি: সংগৃহীত

তারুণ্য ডেস্ক

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে না পড়লে জীবন ব্যর্থ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে কি করবে?- এ জাতীয় কথাবার্তা সমাজে বহুল প্রচলিত। বর্তমান সমাজে এ ধারণা বদলে দিতে জন্ম ‘হাউজ অফ এনইউবিডিয়ানস’র। বিভিন্ন সুযোগ সুবিধায় পিছিয়ে পড়া জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মতোই গড়ে তুলতে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছে হাউজ অফ এনইউবিডিয়ানস নামক এ সংগঠনটি। এটি এমন একটি প্লাটফর্ম যেটি কাজ করছে সম্পূর্ণ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীদের ঘিরে।

কথাপ্রসঙ্গে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মো. পলাশ হোসাইন সকাল জানান, ‘চাকরি কিংবা যেকোনো স্থানেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় নামটা শুনলে অনেকেই অবহেলা করে, কোনো পড়ালেখাই কিন্তু অবহেলার নয়, মূলত তাদের আত্মোন্নয়নের লক্ষে কাজ করতেই আমাদের পথচলা।’

কীভাবে শুরু হয়েছে পথচলা, জানতে চাইলে পলাশ শোনান সংগঠনটির পথচলার গল্প।

পলাশের আপন ভাই আকরাম। পড়াশোনা করছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ না পাওয়ার পর শুনতে হয়েছিলো হাজারো টিপ্পনী। সমাজের বিভিন্ন অংশে হতে হয়েছে একপ্রকার মানসিক নির্যাতনের শিকার। নিজের ভাইকে দেখে পলাশ বুঝতে পারলেন এরকম লাখ লাখ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হয়ত এরকম মানসিক চাপের মধ্যে যেতে হচ্ছে নিয়মিত। তখনই পরিকল্পনা করলেন এমন প্লাটফর্ম নিয়ে কাজ করবেন যেটি কাজ করবে শুধুমাত্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ঘিরেই।

পরিকল্পনাটি সম্পর্কে জানালেন কাছের বড় ভাই ‘তারেক আহমেদ বাবলু’কে। সব ধরণের সহযোগিতা করার আশ্বাস দিলেন তিনি। পলাশের সঙ্গে শুরু করলেন সংগঠনটির পথচলা। তারেক আহমেদ বাবলু যোগ করেন, ‘পূর্বে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আলাদাভাবে এমন কোনো বৃহৎ প্লাটফর্ম ছিলো না যেটি তাঁদের মানসিকভাবে সহযোগিতার পাশাপাশি চাকরিক্ষেত্রে দক্ষতার উন্নয়ন ঘটাতে সহযোগিতা করবে। ফলে অল্প সময়েই প্লাটফর্মটিকে পূর্ণ রূপ দিতে সফল হয়েছি আমরা।

নাম দেয়ার ক্ষেত্রে বাছাই করা হয়েছে ‘এনইউবিডিয়ানস’-কে। নামটি দেয়ার কারণটিও মজার। বুয়েটের ছাত্রকে সকলে যেমন বুয়েটিয়ান বলি, চুয়েটের ছাত্রকে চুয়েটিয়ান কিংবা ঢাবির ছাত্রকে ঢাবিয়ান, তেমনিভাবেই আমরা NUbdiansনামটা দিয়েছি যেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা সকল শিক্ষার্থী নিজেদের এ নামে পরিচয় দিতে পারে। নামটি দেয়ার প্রস্তাব করেছিলেন আমাদের প্লাটফর্মটির উপদেষ্টা খালেদ মাহমুদ স্যার।

প্রতিষ্ঠানে ঢুকলেই দেখা যাবে একমনে কাজ করছেন প্রায় অর্ধশত তরুণ। কেউ করছে ভিডিও কনটেন্ট তৈরির কাজ কেউবা তৈরি করছে প্রেজেন্টেশন স্লাইড বা কেউ পড়ে আছে নোট লেকচার নিয়ে। এদের মধ্যে হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া বাকি সকলেই কাজ করছে সম্পূর্ণ বিনা পারিশ্রমিকে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে। প্লাটফর্মের অধীনে মিলবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যবই অনুসারে ক্লাসের সুযোগ। পড়ালেখার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধিতেও ক্রমাগত কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রশাসনিক কার্যনির্বাহী জুয়েল বলেন, ‘পড়ালেখার পাশাপাশি এনইউবিডিয়ানস এখন শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে কাজ শুরু করেছে যেন আর কোনো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অন্যদের থেকে পিছিয়ে পড়তে না হয়। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্পোরেট জগতের সফল মানুষদের সাহায্যে মার্কেটিং, ব্যবসায় উদ্যোগ কিংবা উন্নত বিশ্বে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণের সুযোগে পরিকল্পনা তৈরিতে নানা ধরণের সহযোগিতাসহ বিভিন্ন ধরণের সহশিক্ষামূলক ভিডিও নিয়ে কাজ করছি আমরা। এছাড়াও দক্ষতার উপর অভ্যস্ততা বজায় রাখতে সাপ্তাহিক কুইজ, টেস্টসহ নানান কার্যক্রমের উপর কাজ চলছে নিয়মিত। প্রতি বৃহস্পতিবার নিজেদের ফেসবুক গ্রুপে লাইভে কমিউনিকেশন স্কিল, ব্যবসায় উদ্যোগ, ইংরেজি, মার্কেটিং, জব ইন্টারভিউ, সিভি রাইটিং'র উপর ক্লাস নেয়া হচ্ছে, আর এসব ক্লাস নিচ্ছেন সফল ব্যক্তিত্বগণ।’

ভবিষ্যতে নিজেদের প্লাটফর্মটিকে আরও বড় আকারে নিয়ে যেতে অত্যন্ত আশাবাদী পলাশ হোসাইন। বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনেকক্ষেত্রেই আত্মবিশ্বাসহীনতা, নেতৃত্ব কিংবা যোগাযোগ ইত্যাদির কমতিতে ভোগে। আমাদের কার্যক্রমের মাধ্যমে আমরা চেষ্টা করছি এসব শিক্ষার্থীদের নতুন করে স্বপ্ন দেখাতে। আমরা চাই আমাদের প্লাটফর্মটিকে আরও বড় আকারে তৈরি করে পুরো দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে। অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনেও কার্যক্রম বৃদ্ধিতে পরিকল্পনা করছি আমরা যেনো প্রতিটি প্রত্যন্ত অঞ্চলেও পৌঁছে দিতে পারি আমাদের এ কার্যক্রম।’

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত