ঢাকা, বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮ আপডেট : ১২ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১০ জুন ২০২১, ১৯:৩৩

প্রিন্ট

চোরাই মোটরসাইকেল বর্ডার ক্রস বলে বিক্রি করতো সিন্ডিকেট

চোরাই মোটরসাইকেল বর্ডার ক্রস বলে বিক্রি করতো সিন্ডিকেট

মো.ফরহাদ উজজামান

রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে বর্ডার ক্রস মোটারসাইকেল বলে বিক্রি করতো একটি সিন্ডিকেট। বাইকগুলোতে নতুন পলি স্টিকার লাগিয়ে নতুন গাড়ির মতোই চকচকে করে ক্রেতাদের আকর্ষন বাড়াতো। এমন সংঘবদ্ধ মোটরসাইকেল চোর চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগ। এই সময় চুরি হওয়া ১৭ মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে।

রাজধানী ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেপ্তার করার বিষয়টি বাংলাদেশ জার্নালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মধুসূদন । তিনি বলেন, উদ্ধার মোটরসাইকেল গুলোর ইঞ্জিন ও চেসিস নং দেখে খুজেঁ নিতে পারবেন প্রকৃত মালিকেরা।

গ্রেপ্তাররা হলো- মো. আবুল কালাম আজাদ, মো. রুবেল, মো. সাগর মিয়া ওরফে ভাষানী, মো. বাবু, মো. আফজাল হোসেন, মো. রাশেদুল ইসলাম ওরফে রাসেল, মো. ফারুক হোসেন ও মো. হেলাল হোসেন। এসময় তাদের কাছ থেকে ১৭ টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মধুসূদন বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, হাতিরঝিল মধুবাগ এলাকায় গাড়ি চোর চক্রের কয়েকজন সদস্য চোরাই মোটরসাইকেল ক্রয়-বিক্রয়ের জন্যে অবস্থান করছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত ৮ জুন সন্ধায় অভিযান চালিয়ে আবুল কালাম, রুবেল, সাগর, বাবু, আফজাল ও রাশেদুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৫টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, গ্রেপ্তারদের দেয়া তথ্য মতে ধারাবাহিক অভিযানে কুমিল্লা জেলার মুজাফফরগঞ্জ এলাকা হতে ফারুক ও হেলালকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকেও ১২ টি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য সম্পর্কে তিনি বলেন, গ্রেপ্তাররা চোরাই মোটর সাইকেল ক্রয়-বিক্রয় সিন্ডিকেড চক্রের সদস্য। তারা চোরাই গাড়ি নিজেরা ড্রাইভিং করে চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তী এলাকায় দিয়ে আসে। এরপর এ চক্রের দলনেতা গ্রেপ্তার ফারুক চোরাই মোটরসাইকেলের আকৃতি প্রকৃতি পরিবর্তন করে চাঁদপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় বিক্রয় করে।

মোটরসাইকেল চুরির এলাকা

ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানা, খিলগাও, মোহাম্মাদপুর, হাতিরঝিল, মিরপুর থানা এলাকাসহ ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি করে ঢাকার বাইরের জেলাগুলোতে পাঠিয়ে দেয় চোর চক্রের সদস্যরা।

চোরাই মোটরসাইকেল বিক্রির কৌশল

এসি মধুসূদন বলেন, চোরাই মটরসাইকেল গুলো বর্ডার ক্রস মোটরসাইকেল বলে বিক্রি করতো চক্রগুলো। বাইকগুলোতে নতুন পলি স্টিকার লাগিয়ে নতুন গাড়ীর মতো করে ক্রেতাদের আকর্ষন বাড়াতো। যেন ক্রেতাদের নজরে আসে বলে জানান ডিবির এই কর্মকর্তা।

তিনি আরো বলেন, চোরাই মোটরসাইকেল গুলো কখনো কাস্টম’স নিলাম বলে বিক্রি করতো তারা। কাস্টম’স নিলামের স্টিকার, ভুয়া কাগজ তৈরী করে, ভুয়া কাস্টমস নম্বর ও জি আর নম্বর করে প্রতারণা করতো।

চুরির কৌশল

রাতের বেলায় যেসব বাসায় দারোয়ান থাকে না এমন তথ্য আগে থেকে তারা সংগ্রহ করতো। এরপর বাসার তালা ভেঙ্গে মটরসাইকেলের লক ভেঙ্গে সেল্ফ র্স্টাটের তার ব্যাটারীর তারের সঙ্গে লাগিয়ে মোটরসাইকেল স্টাট করে চুরি করে নিয়ে যায় সহজেই।

এছাড়া দিনের বেলা মাস্টার কি’ কি অথবা সেল্ফ এর তারের তারের সঙ্গে লাগিয়ে মোটরসাইকেল স্টাট করে চুরি করতে পারে। এ চক্রের সদস্যরা চুরির উদ্দেশ্য বিভিন্ন বাসার দারোয়ান বা কেয়ার টেকারের চাকরি নেয়। তারা আশে পাশের এলাকার বাসা ভাড়া নিয়েও সুযোগ বুঝে রাতের বেলা চুরি করতো।

উদ্ধার মোটরসাইকেলগুলোর ইঞ্জিন ও চেসিস নং

১. লাল রংয়ের একটি এপাচি আরটি আর ১৫০ সিসি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MD624HC10G2N44263,

২. লাল রংয়ের একটি পালসার ১৫০ সিসি মোটর সাইকেল। যার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেটে বগুড়া-ল-১২-১২৫২ এবং চেসিস নং- MD2A11CZ0FWE94588,

৩. নীল রংয়ের একটি পালসার এনএস রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং-MD2A820Z2GCK02990,

৪. নীল রংয়ের একটি পালসার ১৫০ সিসি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল। যাহার চেসিস নং-MD2A11CY5HWA89112,

৫. কালো রংয়ের একটি সুজকি ১৫০ সিসি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল। যাহার চেসিস নং- NG4BW-110426, যাহা ঝালাই এর কারণে অস্পষ্ট। ইঞ্জিন নং- BGA1-662080

৬. লাল রংয়ের একটি হিরো গ্লামার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MBLJA06EZCGK00162,

৭. নীল ও কালো রংয়ের একটি বাজাজ ডিসকভার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MD2A14AZ8EWK05490

৮. নীল রংয়ের একটি হিরো হোন্ডা গ্লামার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MBLJA06ANGGM10575

৯. কালো রংয়ের একটি সুজকি জিক্সার ১৫০ সিসি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MB8NG4BAAF8130356,

১০. লাল ও কালো রংয়ের একটি বাজাজ ভিসকভার ১২৫ সিসি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- PSUB44BY3LTM58623,

১১. সাদা রংয়ের একটি ইয়ামাহা ফেজার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং-2CL31404889,

১২. কালো রংয়ের একটি বাজাজ প্লাটিনা রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MD2A18AZ4FWK78896,

১৩. কালো রংয়ের একটি ইয়ামাহা ভারসন-৩ আর-ওয়ান-১৫ (R-15) রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MH3RG4710LK142730 ,

১৪. কালো ও সাদা রংয়ের একটি আরটিআর টিভিএস এপ্যাচি রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- MD634KE47F2F52838,

১৫. কালো ও লাল রংয়ের একটি বাজাজ পালসার রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, যাহার চেসিস নং- PSUA11CY8MTA88687,

১৬. একটি টিভিএস এপ্যাচি আরটিআর রেজিষ্ট্রেশন নম্বর প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল, ইঞ্জিন ও চেসিস নম্বর পাঞ্চিং।

বাংলাদেশ জার্নাল- এনই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত