ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে
শিরোনাম

রেজা নুরের কাব্যগ্রন্থ ‘নিরীহ হাওয়ার নদী’র মোড়ক উন্মোচন

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ০৬ এপ্রিল ২০২২, ০২:০০

রেজা নুরের কাব্যগ্রন্থ ‘নিরীহ হাওয়ার নদী’র মোড়ক উন্মোচন
জার্নাল ডেস্ক

প্রকৃত লেখক নিজের তাড়নায় লেখালেখি করে। তবে কেউ কেউ সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেও লেখেন। আবার কেউ লেখেন মনের আনন্দে। কবি ও কথাসাহিত্যিক রেজা নুর মনের আনন্দে সরল অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে স্বদেশ ও বিশ্বের অনন্য সৌন্দর্য কবিতায় তুলে ধরেন। এমন মন্তব্য বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বলেছেন বক্তারা।

মাইকেল মধুসূদনের মতো প্রবাসে থেকেও রেজা নুর স্বদেশ ভাবনায় প্রতিনিয়ত বিভোর থাকেন। বাস্তবে প্রবাসী হলেও মননে একজন কবি। ‘নিরীহ হাওয়ার নদী’ কাব্যগ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন হয় শুক্রবার (১লা এপ্রিল) স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টার, গুলশান-১।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জিনাত রেহানা লুনা, নিউজ প্রেজেন্টার বাংলাদেশ বেতার ও জেনারেল ম্যানেজার এক্সিলেন্ট কর্পোরেশন। লেখকের বড় ভাই বায়োফার্মা লি.-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চিকিৎসক মো. মিজানুর রহমান এর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হক বাচ্চু প্রিন্সিপাল অফিসার সোনালী ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডিরেক্টর রবিউল হাসান।

অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও কথাশিল্পী জব্বার আল নাঈম, কথাশিল্পী ফিরোজ আশরাফ, কথাশিল্পী শামি সাইদ, কবি ও নাট্যকার বীরেশ মুখ্যই, কবি ও কথাশিল্পী রাসকেল রায়-হান ও কবি সামি ইসলাম নীলা।

বক্তারা কবি রেজা নুর ও তাঁর কাব্য প্রতিভায় উচ্চ প্রশংসা করেন। তাঁর বিষয়ভিত্তিক কবিতা, বাক্যের গঠন ও বিন্যাস, শব্দের প্রয়োগ ও প্রজ্ঞার ছাপ স্পষ্ট।

নিজের লেখালেখি নিয়ে বলতে গিয়ে কবি রেজা নুর বলেন, লেখার অভ্যাসটা দীর্ঘদিনের। তাই প্রবাসে গিয়েও ভুলতে পারি না। কারণ, লেখার নেশা রক্তের সঙ্গে মিশে আছে। কবিতা কখনই ছাড়া যাবে না। কবিতা আমাকে অনুপ্রেরণা দেয়। পৃথিবীর যে প্রান্তেই যাব না কেনও, আমাকে থাকতে হবে লেখার সঙ্গে। বইটা মেলায় করার পরিকল্পনা ছিল। বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে তা হয়ে ওঠে না। এটি আমার ষোলো-তম প্রকাশিত গ্রন্থ হলেও চতুর্থ কাব্যগ্রন্থ। আমার বিশ্বাস এই কাব্যগ্রন্থের কবিতা সত্যিকার পাঠকের হৃদয় আলোকিত করবে।

পাঁচ ফর্মার বইটি ধ্রুব এষের আঁকা প্রচ্ছদে প্রকাশনা সংস্থা রণন থেকে প্রকাশিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সিফাত সালাম।

বাংলাদেশ জার্নাল/কেএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত