ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ২ মিনিট আগে
শিরোনাম

দুই হাজার নারীর কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করলো ‘এস আর ড্রিম আইটি’

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ২৯ অক্টোবর ২০২২, ১৬:২২

দুই হাজার নারীর কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করলো ‘এস আর ড্রিম আইটি’
জার্নাল ডেস্ক

দেশে বেকারত্বের হার কমাতে এখন ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিকল্প নেই। যে কেউ চাইলেই ঘরে বসে মুহূর্তেই উপার্জন করতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিভিন্ন সেক্টরের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম ডিজিটাল মার্কেটিং। এ মাধ্যমে ছেলেরা অনেকটা এগিয়ে থাকলেও মেয়েরা অনেক পিছিয়ে। তবে সময়ের পরিক্রমায় মেয়েরাও এখন ফ্রিল্যান্সিংয়ে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন এবং নিজেকে এ মাধ্যমে যুক্ত হয়ে সফল হয়ে উঠছেন।

তাই মেয়েদের আরো একধাপ সামনে নিয়ে যাওয়ার জন্যে এস আর ড্রিম আইটি নিজস্ব অর্থায়নে এই ২০০০ মেয়েদের ট্রেইনিং দিয়ে যাচ্ছে। এখানেই শেষ নয়, বেস্ট ৩ জনকে দেয়া হবে ল্যাপটপ এবং স্মার্টফোন,জব প্লেসমেন্ট সহ আরো অনেক কিছু! আর প্রতিটি নারী শিক্ষার্থী পাবে প্রফেশনাল সার্টিফিকেট যা তাদের ভবিষ্যতে কাজে লাগবে।

সম্প্রতি ফ্রিল্যান্সিংয়ে জনপ্রিয় প্লাটফর্ম ‘এস আর ড্রিম আইটি’প্রায় ২ হাজারের বেশি মেয়েদের জন্য ফ্রিতে ট্রেনিং করার বিশেষ সুযোগ প্রদান করে। যেখানে দক্ষ প্রশিক্ষক দ্বারা প্রতিদিন ১১-১৪ ঘন্টা করে অনলাইন লাইভ সাপোর্ট এবং ২৪ ঘন্টা অনলাইন সাপোর্ট দিয়েছেন ট্রেইনিদের। যার মাধ্যমে অল্প সময়েই মেয়েরা নিজেকে প্রস্তুত করে মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে আগ্রহ পাচ্ছে,এর ফলে একদিকে তারা ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার সুযোগ পাচ্ছে আবার অন্যদিকে নিজের স্টার্টআপ বিজনেস কিংবা দেশে বিদেশে চাকরি করার মত দক্ষ কারিগর হয়ে উঠছে।

প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ট্রেইনিরা এরইমধ্যে ৫ লক্ষাধিক ডলারেরও বেশি আয় করেছেন, যা খুবই বিরল। প্রতিষ্ঠানটি তাদের ট্রেইনিদের ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার জন্যে শুধুমাত্র ডিজিটাল মার্কেটিং এর ট্রেইনিং দিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। বাংলাদেশে যেসকল প্রতিষ্ঠান ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর ট্রেইনিং দিয়ে থাকে তাদের মধ্যে এস আর ড্রিম আইটির রেটিং সর্বোচ্চ।

প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক শুভ আহমেদ জানান, শুরুর দিকে মেয়েদের আগ্রহটা কম থাকলেও এখন সেটা বাড়তে শুরু করেছে। নিজেকে স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তুলতে মেয়েরা এ মাধ্যমে কাজ শুরু করে উপার্জন করতে সক্ষম হচ্ছে। আমরা তাদের সঠিক গাইডলাইন দেওয়ার চেষ্টা করেছি সবসময়, আগামীতেও যেকোন সমস্যায় তারা সবসময় আমাদের কাছ থেকে সাপোর্ট পাবে।

তৃতীয় বছরে পা রাখা এ প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রায় ছয় হাজারেরও এর বেশি স্টুডেন্ট ট্রেইনিং নিয়েছেন। আয় করেছেন লক্ষ্যাধিক টাকা।

শুভ আহমেদ বলেন, ‘আমার স্বপ্ন ছিল এমন একটি প্লাটফর্ম তৈরি করার, যেখানে সবাই সবথেকে কম মূল্যে সবথেকে বেশি স্কিল ডেভেলপ করে নিজেকে একজন প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার দাবি করতে পারবে। আর সেই লক্ষ্যেই আমরা শুরু থেকে অটল ছিলাম। যার কারণে আজ ‘এস আর ড্রিম আইটি’ শতভাগ পজিটিভ রিভিউপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান। আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হচ্ছে বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে স্কিলড প্রজন্ম বানানো যেন কাউকে বেকার বসে থাকতে না হয়।’

এই প্রজেক্ট থেকে কিছু শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বললে তারা নিজের মতামত জানান এস আর ড্রিম আইটি সম্পর্কে। ফারজানা চৌধুরী বলেন, এস আর ড্রিম আইটি তে ভর্তি হওয়া ছিলো আমার জীবনের বেস্ট ডিসিশান। অনলাইন সাপোর্ট এর স্যাররা ও ভীষণ হেল্পফুল। আমি প্রায় সময় অনলাইন সাপোর্টে এ যাই। তখন স্যাররা অনেক ভালো ব্যাবহার করেন। আর শুভ আহমেদ স্যার কে অনেক অনেক ধন্যবাদ এতো আন্তরিকভাবে আমাদের ক্লাস গুলো করানোর জন্যে। আমি বলবো যে আমরা অনেক ভাগ্যবান যে আমরা স্যার এর মত একজন ট্রেইনার পেয়েছি।

সাদিয়া নিপা বলেন, তাদেরকে ধন্যবাদ দিয়ে শেষ করা যাবে না, প্রতিটি বিষয় অনেক সহজ ও সুন্দর করে বুঝান। লাইভ এ অনেকসময় অ্যাটেন্ড থাকতে পারিনা, রেকর্ডেড ক্লাস গুলো থেকে অনেক অনেক কিছু শিখতে পারছি।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত