ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:৫৮

প্রিন্ট

‘বাণিজ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে মানুষ অতিষ্ঠ’

‘বাণিজ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে মানুষ অতিষ্ঠ’
নিজস্ব প্রতিবেদক

বানিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সীর বক্তব্য ও বিবৃতিতে মানুষ এখন অতিষ্ঠ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

পিঁয়াজের দাম স্থিতিশীল হতে আরও কিছুটা সময় লাগবে- বানিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সীর এই বক্তব্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বানিজ্যমন্ত্রীকে বলতে চাই- বৈশাখ গেল, জৈষ্ঠ্য গেল, দেখতে দেখতে পৌষ-মাঘ সবই গেল, কিন্তু পিঁয়াজের দাম কমলো না। এখন শীতকাল, পিঁয়াজসহ শাকসবজির সময়। অথচ শুধু পিঁয়াজই নয়, সকল শাকসবজির দামই লাগামহীন ঘোড়ার মতো মানুষের নাগাল থেকে ছুটে চলছে। শাকসবজি ছাড়াও নিত্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্যের মূল্য জনগণের ক্রয়ক্ষমতার নাগালের বাইরে। অথচ বানিজ্যমন্ত্রী নিঃসঙ্কোচে বললেন, পিঁয়াজের দাম স্থিতিশীল হতে আরও কিছুটা সময় লাগবে।’

রিজভী বলেন, ‘কথাই কি এই সরকারের উন্নয়ন? কাদের উন্নয়ন কিংবা কাদের জন্য উন্নয়ন? আসলে পর্বত-প্রমান দুর্নীতিই এদের উন্নয়ন। বাস্তবতা হলো, এই স্বাধীন দেশে এখন জনগণ পরাধীন। তাই জনগণের স্বাধীনতার জন্য আজ আমাদের শ্লোগান ‘টেক ব্যাক বাংলাদেশ’।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশে এখন অনিয়মই নিয়মে পরিণত হয়েছে। গণতন্ত্র নেই, মানুষের বাক ও ব্যক্তিস্বাধীনতা নেই, নেই মানবিক মর্যাদা। দেশে সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় এখন চুড়ান্ত পর্যায়ে। নারী ধর্ষণ, শিশু ধর্ষণ এখন নৈমিত্তিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি, দেশজুড়ে নানা অপরাধের মধ্যে প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ধর্ষিতা হচ্ছে নারী ও শিশু। অপরাধীদের অধিকাংশই ক্ষমতাসীনদের লোক।’

রাষ্ট্র ও সমাজের সবখানেই এখন অনিয়ম আর দুর্নীতি বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

বিএনপির এই সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘অপ্রিয় হলেও সত্য, দুর্নীতি-লুটপাট-টাকা পাচার-ব্যাংক ডাকাতি, অনাচার-অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নৈতিক কিংবা সৎ সাহস কোনটিই এই সরকারের নেই। কারণ, যেভাবে রডের বদলে বাঁশ দিয়ে এই সরকার সেতু কিংবা ভবন নির্মাণ করছে ঠিক তেমনি এই সরকারটিও বারবার জন্ম নিচ্ছে প্রশাসনের সহায়তায় রাতের অন্ধকারে জনগণের ভোট ছাড়া।’

রিজভী বলেন, ‘সরকারের অর্থমন্ত্রী নিজেকে বিশ্বের এক নম্বর অর্থমন্ত্রী দাবি করেন তখন জনগণের বুঝতে বাকি থাকেনা যে, এই সরকারের সবটাই শুভঙ্করের ফাঁকি। মহালুটপাট হরিলুটের কোন প্রতিকার বা প্রতিরোধ হচ্ছে না। কোন বিচার বা শাস্তিও হচ্ছেনা।’

বাংলাদেশ জার্নাল/কেএস/কেআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত