ঢাকা, রোববার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ৪৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৫:২৬

প্রিন্ট

দ্বিতীয় ধাপে পৌর নির্বাচন

আওয়ামী লীগের জয় জয়কার

আওয়ামী লীগের জয় জয়কার

জার্নাল ডেস্ক

দ্বিতীয় ধাপে দেশের ৬০টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গণনা শেষে বেসরকারিভাবে বেশিরভাগ পৌরসভার ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। যার অধিকাংশ আওয়ামী লীগের প্রার্থীরাই জয়ী হয়েছেন।

নাটোর: গোপালপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রোখসানা মোর্তজা ৬ হাজার ৫৭৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনজুরুল ইসলাম পেয়েছেন ৫ হাজার ১৫২ ভোট।

নলডাঙ্গা পৌরসভায় ৩ হাজার ৬৩০ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী মো. মনিরুজ্জামান বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকট প্রার্থী বিএনপির আব্বাছ আলী পেয়েছেন এক হাজার ৮০৯ ভোট।

বগুড়া: সারিয়াকান্দীতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. মতিয়ার রহমান ৬ হাজার ৫৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আলমগীর শাহী সুমন পেয়েছেন ২ হাজার ৭৯৬ ভোট।

সন্তাহার পৌরসভায় ৭ হাজার ৭৮৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন বিএনপির প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদন্দ্বী আওয়ামী লীগের আশরাফুল ইসলাম মন্টু পেয়েছেন সাত হাজার ৪০২ ভোট।

শেরপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী জানে আলম খোকা ৮ হাজার ৭৬৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হযেছেন। নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগের আব্দুস সাত্তার পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৮৬ ভোট।

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মতলুবর রহমান বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৯৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ারুল সারওয়ার পেয়েছেন সাত হাজার ৯৭০ ভোট।

সুন্দরগঞ্জে জাতীয় পার্টির (জাপা) আবদুর রশিদ রেজা সরকার দুই হাজার ৭০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রার্থী আওয়ামী লীগের আব্দুল্যাহ-আল-মামুন পেয়েছেন ২ হাজার ৫৫৮ ভোট।

নোয়াখালী: বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১০ হাজার ৭৩৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির কামাল উদ্দিন চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ৭৭৮ ভোট।

ফেনী: দাগনভূঁঞায় আওয়ামী লীগের ওমর ফারুক খান আট হাজার ২৩৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের কাজী সাইফুর রহমান স্বপন ৯৩৯ ভোট পেয়েছেন।

নেত্রকোণা: কেন্দুয়া পৌরসভায় নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আসাদুল হক ভুঁইয়া। তিনি পেয়েছেন ৯ হাজার ১৭৬ ভোট আর তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শফিকুল ইসলাম পেয়েছেন দুই হাজার ২৫৬ ভোট।

ঝিনাইদহ: শৈলকুপায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী কাজী আশরাফুল আজম ১০ হাজার ৮৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী তৈয়বুর রহমান খান পেছেন সাত হাজার ২৮১ ভোট।

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের নাদের বখত। তিনি পেয়েছেন ২১ হাজার ৬৬৯ ভোট। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির মুর্শেদ আলম পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৮৮৫ ভোট।

জগন্নাথপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী আক্তারুজ্জামান আক্তার ৮ হাজার ৩৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকট প্রার্থী আওয়ামী লীগের মিজানুর রহমান ভূঁইয়া নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৮ হাজার ১৮ ভোট। বিএনপির প্রার্থী হারুনুরুজ্জামান পেয়েছেন ৮১৭ ভোট।

মাগুরা: মাগুরা পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী খুরশিদ হায়দার টুটুল নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৪৬৭ ভোট। তার নিকট প্রার্থী বিএনপির ইকবাল আখতার খান কাফুর পেয়েছেন ৬ হাজার ৭৩ ভোট।

মোংলা: আওয়ামী লীগের শেখ আব্দুর রহমান ১২ হাজার ১২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। আর বিএনপির মো. জুলফিকার আলী পেয়েছেন ৫৯২ ভোট।

পাবনা: ফরিদপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী খ ম কামরুজ্জামান মাজেদ নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৫ হাজার ২৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এনামুল হক পেয়েছেন ৩ হাজার ৩১২ ভোট।

দিনাজপুর: বিএনপির প্রার্থী সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম ৪৪ হাজার ৯৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের রাশেদ পারভেজ পেয়েছেন ২৪ হাজার ২২৬ ভোট।

বীরগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফ হোসেন বাবুল ৩ হাজার ৯৯৩ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রার্থী আওয়ামী লীগের নূর ইসলাম পেয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ ভোট।

বিরামপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আক্কাস আলী ১৫ হাজার ৩৫৯ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী নূরুজ্জামন সরকার পেয়েছেন ৮ হাজার ৬৮৬ ভোট।

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আনোয়ার আলী ৬৬ হাজার ৫২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বশিরুল আলম চাঁদ পেয়েছেন ১৪ হাজার ৬১৩ ভোট।

ভেড়ামারায় জাসদ প্রার্থী আনোয়ারুল কবির টুটুল আট হাজার তিন ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের শামীমুল ইসলাম ছানা পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৬০১ ভোট।

ময়মনসিংহ: মুক্তাগাছায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগের বিল্লাল হোসেন সরকার ১৭ হাজার ৩২০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শহিদুল ইসলাম শহীদ পেয়েছেন ৫ হাজার ২৬১ ভোট।

ফুলবাড়িয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া ৫ হাজার ৬৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম মোস্তুফা জগ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪ হাজার ৪২৮ ভোট। বিএনপির চান মাহমুদ পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৩ ভোট।

মৌলভীবাজার: কমলগঞ্জে ৫ হাজার ২৫৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী জুয়েল আহমেদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. হেলাল মিয়া পেয়েছেন ২ হাজার ৮০৬ ভোট।

কুলাউড়ায় আওয়ামী লীগের সিপার উদ্দিন আহমদ বিজয়ী হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৪ হাজার ৮৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাজান মিয়া জগ প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৮৫ ভোট।

পাবনা: সাঁথিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহবুবুল আলম বাচ্চু নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সিরাজুল ইসলাম মল্লিক ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৭০ ভোট।

নওগাঁ: নজিপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রেজাউল কবির চৌধুরী ৭ হাজার ৬৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আনোয়ার হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ১৫০ ভোট।

শরীয়তপুর: আওয়ামী লীগের পারভেজ রহমান জন ২৩ হাজার ২৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোনের (চরমোনাই) প্রার্থী তানভির আহম্মেদ বেলাল পেয়ছেন ১ হাজার ৩৭৬ ভোট।

গাজীপুর: শ্রীপুর পৌরসভা আওয়ামী লীগের প্রার্থী আনিছুর রহমান জয়লাভ করেছেন। তিনি পেয়েছেন ২৩ হাজার ৪৮৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির কাজী খান পেয়েছেন ১০ হাজার ৯৬ ভোট।

ঢাকা: সাভারে আওয়ামী লীগ মনোনীত আব্দুল গণি ৫৬ হাজার ৮০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রেফাত উল্লাহ পেয়েছেন ৫ হাজার ৩৩০ ভোট।

নেত্রকোণা: মোহনগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রার্থী লতিফুর রহমান রতন নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৯ হাজার ৪৪৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তাহমিনা পারভীন পেয়েছেন চার হাজার ৩৮৪ ভোট।

কুড়িগ্রাম: নাগেশ্বরী পৌরসভায় নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ হোসেন ফাকু। পেয়েছেন ১১ হাজার ৯৭৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির আব্দুর রহমান পেয়েছেন নয় হাজার ৩০৭ ভোট।

কুমিল্লা: চান্দিনা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শওকত হোসেন ভূঁইয়া নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৯ হাজার ৪৫১ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম হোসেন জগ প্রতীকে ৩ হাজার ১৫৫ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শাহ মো. আলমগীর খান ধানের শীষ প্রতীকে ২ হাজার ৬৯৫ ভোট পেয়েছেন।

নীলফামারীতে মেয়র প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় সেখানে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। আর ৪ টি পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় সেখানে ভোটের দরকার পড়েনি। ফলে মেয়র পদে ভোট অনুষ্ঠিত হয় মোট ৫৬টি পৌরসভায়।

আরও পড়ুন- পৌর নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হয়নি

৬০ পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ ভোট হয়েছে

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত