ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৩২ মিনিট আগে

দেশের মানুষ ভালো থাকলে বিএনপির মন খারাপ হয়: কাদের

  গাজীপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৯ মে ২০২২, ১৮:৩২

দেশের মানুষ ভালো থাকলে বিএনপির মন খারাপ হয়: কাদের
ফাইল ফটো
গাজীপুর প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক প‌রিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পদ্মা সেতু হয়ে গোলো, মানুষ খুশি। দেশের মানুষ ভালো আছে। কিন্তু ফখরুল সাহেবের মন খারাপ। দেশের মানুষ ভালো থাকলে বিএন‌পির সকলের মন খারাপ হয়, বিশেষ করে বিএন‌পির নেতাকর্মীদের।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সততার সোনালী সকাল এই পদ্মা সেতু। বাংলাদেশের সামর্থের স্মারক এই পদ্মা সেতু। আজ পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। শতভাগ সততার সা‌থে পদ্মা সেতু নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। এজন্য বিএনপি নানা অপবাদ দিচ্ছে। যারা দুর্নী‌তির অপবাদ দেন, তাদের বিশ্ব ব্যাংকের বক্তব্যের দিকে নজর দিতে হবে। বিশ্ব ব্যাংক অবশেষে স্বীকার করেছে, তারা পদ্মা সেতু প্রকল্প থেকে সরে গিয়ে ভুল করেছে।

বৃহস্পতিবার গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

বিএনপির উদ্দেশ্যে সেতুমন্ত্রী বলেন, গত ১৩ বছরের আন্দোলনে তারা ব্যর্থ, তাদের আন্দোলন হবে আর কোন বছর? তারা নির্বাচনে ব্যর্থ, এখন পদ্মা সেতু দেখে বিএনপির গাত্রদাহ হয়েছে। আজকে বিআরটি প্রকল্প হয়ে যাচ্ছে, মেট্রোরেল হয়ে যাচ্ছে, কর্ণফুলী টানেল হয়ে যাচ্ছে। সামনে ভোট, বিএনপির মাথা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ বিরোধীদের মাথা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। আজকে ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব সারা দুনিয়ায় হয়েছে। জিনিসপত্রের দাম ফুয়েলের ওপর, জ্বালানির ওপর সারা দুনিয়ায় এর প্রভাব পড়েছে। বাংলাদেশ কোনো বিচ্ছন্ন দ্বীপ নয়। এ দেশেও তার প্রভাব পড়েছে। এ নিয়েও তারা ফায়দা লুটতে চচ্ছে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, সম্মেলনে আমি দেখতে পাচ্ছি হাজার হাজার মানুষ ঐক্যবদ্ধ এবং তারা দলে দলে এই সম্মেলনে এসেছে। আপনারা আজ এই সম্মেলন থেকে শপথ নিন। সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে আপনাদেরকে শুধু বলবো ঐক্যবদ্ধ থাকতে। সকলে অন্তর্কলহ বিরোধ মিটিয়ে ফেলুন। শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র চলছে এই ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে ইনশাল্লাহ ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ নিয়ে আগামী নির্বাচনে আমরা বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবো।

সেতুমন্ত্রী বিগত উপজেলা প‌রিষদসহ অন্যান্য নির্বাচনে যারা নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন তাদের বাদ দিয়ে তৃণমূল নেতা কর্মীদের নিয়ে ক‌মি‌টি গঠনের জন্য উপ‌স্থিত কেন্দ্রীয় নেতাদের আহ্বান জানান।

বিআরটিসহ দেশের মেগা প্রকল্প নিয়ে সেতুমন্ত্রী আরও বলেন, বিআরটি প্রকল্প চলাকালে আমি জানি গাজীপুর থেকে ঢাকা পর্যন্ত অনেক ভোগান্তি হয়েছে। গাজীপুর থেকে ঢাকা যাতায়াতে তিন থেকে পাঁচ ঘণ্টা সময় লেগেছে। আমি আপনাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই, বিআরটির ৭৫ ভাগ কাজ শেষ হয়ে গেছে। বাস র‍্যাপিড ট্রানজিটের নিচের দিকে আর দুর্ভোগ হওয়ার সুযোগ নাই। আমরা খুব কাছাকাছি এসে গেছি, কাজ সমাপ্তের পথে। আপনারা হাফ-এন-অওয়ারের মধ্যে ঢাকা থেকে গাজীপুর চলে আসবেন।

পদ্মা সেতু নির্মাণ করা নিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, পদ্মা খরস্রোতা নদী। এর জন্য ফেরি চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়। আগে পদ্মা পার হতে দুই থেকে আড়াই ঘণ্টা সময় লাগত। এখন ৬ থেকে ৭ মিনিটের মধ্যে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলে যাবেন। এটি ৩০ হাজার ৮৯৩ কোটি টাকার একটি মেগা প্রকল্প। পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করাই ছিল এক দুষ্কর ব্যাপার। একদিকে কাজ শুরু হয় সামনের দিকে এগিয়ে যেতে, আবার পেছন দিকে ভাঙে।

গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজের পরিচালনায় সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন কৃ‌ষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা আজম, আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি, সিমিন হোসেন রিমি এমপি, শামসুন্নাহার ভূঁইয়া এমপি, আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, কেন্দ্রীয় সদস্য আনোয়ার হোসেন, মো. সাহাবুদ্দিন ফরাজী, ইকবাল হোসেন অপু এমপি, মোহাম্মদ সাইদ খোকন, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, ডাকসুর সাবেক ভিপি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক আখতার উজ্জামান প্রমুখ।

১৯ বছর পরে বৃহস্প‌তিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গাজীপুরের ভাওয়াল রাজবা‌ড়ি মাঠে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এ সম্মেলন উ‌দ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

এর আগে গাড়িবোঝাই করে জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও এলাকা থেকে বাদ্য বাজিয়ে নেতাদের ছবিযুক্ত ব্যানার ও পোস্টার বহন করে দলের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সম্মেলনস্থলে যায়। মুহূর্তেই গাজীপুর নগরী লোকারণ্য হয়ে যায়। দুপুর হওয়ার আগেই সম্মেলনস্থল মানুষে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত