ঢাকা, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৩ মিনিট আগে

আঘাত এলে পাল্টা আঘাত করতে হবে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২৫ মে ২০২২, ১৮:৪৭

আঘাত এলে পাল্টা আঘাত করতে হবে
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, এখন থেকে যেখানে আঘাত আসবে, সেখানে পাল্টা প্রতিরোধ এবং আঘাত করতে হবে। এই আঘাত করার জন্য আমাদেরকে সব সময় প্রস্তুত থাকতে হবে।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসব কথা বলেন তিনি।

‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসের নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রত্যাহার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কমানোর দাবিতে’ এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

গয়েশ্বর বলেন, মঙ্গলবার ছাত্রদল মার খেয়েছে। তার জন্য মর্মাহত। কিন্তু ধন্যবাদ ও সংগ্রামী অভিনন্দন জানাই যে, তারা পাল্টা প্রতিরোধ করেছে। সুতরাং এখন থেকে যেখানে আঘাত আসবে সেখানে পাল্টা প্রতিরোধ এবং আঘাত করতে হবে। এই আঘাত করার জন্য আমাদেরকে সব সময় প্রস্তুত থাকতে হবে।

নেতা কর্মীদেরকে উদ্দেশ্য করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, এখন থেকে মাইর দেয়ার অভ্যাস করতে হবে। আমরা পাকিস্তানকে পরাজিত করেছি। এখন যারা লাফালাফি করে তাদেরকে পরাস্ত করতে বেশি সময় লাগবে না।

ক্ষমতাসীনদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, আমাদের উপর হাত তুলেন, তুলেন- কিন্তু আমাদের হাত আর পকেট থাকবে না। প্রতিবাদ করার অধিকার আমাদের আছে। সাংবিধানিকভাবে গণতন্ত্রের জন্য আমরা লড়াই করেছি।

নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশ্য গয়েশ্বর বলেন, এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবো না। আর নির্বাচনও হবে না। সুতরাং চুপচাপ বসে থাকেন। কারো ইচ্ছা বাস্তবায়ন করার সুযোগ আপনাদেরকে দেয়া হবে না। কারণ শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচনে আমরা যাবো না। ওদের সাহস থাকলে নির্বাচন করুন। আর আমাদের ক্ষমতা থাকলে আমরা প্রতিরোধ করবো।

মানববন্ধনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতসহ সংগঠনটির নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত