ঢাকা, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ৮ মিনিট আগে
শিরোনাম

বেহেশতে মিথ্যা বলা যায় না, পররাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যটাই বলে দিয়েছেন: রিজভী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০২২, ১৬:৪৪

বেহেশতে মিথ্যা বলা যায় না, পররাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যটাই বলে দিয়েছেন: রিজভী
নিজস্ব প্রতিবেদক

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন অনেক সময় নিজের অজান্তেই সত্য কথা বলে বসেন বলে মন্তব্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘বেহেশতে’ থেকে তো আর মিথ্যা কথা বলা যায় না তাই সত্যটাই বলে দিচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

‘ভারতে গিয়ে বলেছি, এই সরকারকে টিকিয়ে রাখতে হবে’- পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে রুহুল কবির রিজভী এসব কথা বললেন। এর আগে ‘বৈশ্বিক মন্দায় অন্যান্য দেশের তুলনায় আমরা বেহেশতে আছি’ এমন বক্তব্য দিয়ে বেশ আলোচনায় এসেছিলেন মন্ত্রী।

রিজভী বলেন, মন্ত্রীর কথা দেশের প্রত্যেক গণমাধ্যমে এসেছে। তার মানে কী জনগণের সমর্থন নেই? এই কথাটাই তো সত্য প্রমাণিত হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী অনেক সময় তার অজান্তেই সত্য কথা বলে বসেন। বর্তমান সরকার সম্পর্কে বিএনপি এবং দেশের মানুষের যে ধারণা সেটাই প্রমাণ করছেন মন্ত্রীরা। বেহেশত থেকে তো আর মিথ্যা বলা যায় না, তাই সত্যটাই বলে দিচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

শুক্রবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

রিজভী বলেন, আজকে দেশে গুম-খুনের রাজত্ব চলছে। মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই। কিন্তু এগুলো নিয়ে কর্ণপাত করে না সরকার। জনগণের ভিত্তির ওপর তো তারা দাঁড়িয়ে নেই। তারা দাঁড়িয়ে থাকতে চায় অন্যের শক্তির ওপর দিয়ে। সরকার যে দড়িটা ধরে আছে সেটা জনগণের দড়ি নয়, রশিটা হচ্ছে বাইরের। আজকে প্রকাশ্যে সেটা প্রকাশ করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, আমরা জনগণকে বিশ্বাস করি, জনগণকে মনে করি সব ক্ষমতার উৎস, যেটা আমাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান বলে গেছেন। আমাদের দড়ি অন্য কোথাও নেই। দেশের স্বাধীনতাকে বিপন্ন করে অন্যের শক্তির ওপর দিয়ে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় টিকিয়ে থাকতে চায় বলে উল্লেখ করেন রুহুল কবির রিজভী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এএইচ/এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত