ঢাকা, শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬ অাপডেট : ৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১৯:৫৯

প্রিন্ট

সন্তুষ্ট কামাল, সংশয়ী ফখরুল

সন্তুষ্ট কামাল, সংশয়ী ফখরুল
অনলাইন ডেস্ক

ইসির সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে দুরকম কথা শোনা গেলে জোটের দুই নেতার কাছ থেকে। দুই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে কামাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আলোচনায় আমরা সন্তুষ্ট। আমাদের দাবিগুলো বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে। ভোটের বাকি সময়ে একই রকম সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করি।

আলোচনায় আশ্বস্ত হয়েছেন কি না- সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিএনপি মহাসচিব ফখরুল সরাসরি উত্তর এড়িয়ে বলেন, আমি সামগ্রিকভাবে একটা কথা বলি, আমাদের নির্বাচনে থাকা না থাকা নির্ভর করছে নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচনকালীন সরকারের আচরণের ওপর।

ড. কামাল বলেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে করা বিভিন্ন দাবি পূরণের জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পক্ষ থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা সন্তুষ্ট। ভোটের বাকি সময়ও এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করি।

এছাড়া বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিরোধী দল নির্বাচনে টিকে থাকবে কি না, তা নির্বাচন কমিশন (ইসি) ও নির্বাচনকালীন সরকারের আচরণের ওপর নির্ভর করছে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের বিভিন্ন দাবি ইসি’র কাছে তুলে ধরেছি। তারা সবকিছুই শুনেছেন, আশ্বাসও দিয়েছেন। তারা সবসময় আশ্বাস দেন। সেই আশ্বাস কতটা বাস্তবায়ন হবে, সেটাই দেখার বিষয়।

ব্রিফিংয়ে ফখরুল বলেন, আমরা তিন সপ্তাহ নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছি ইসির কাছে। তারা আমাদের দাবি শুনছেন এবং আশ্বাস দিয়েছেন, কমিশন বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেবে।

ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র বলেন, আমরা আগামী সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) একেবারেই ব্যবহার না করার কথা বলেছি। কমিশন আমাদের বলেছে, তারা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অল্প কিছু স্থানে ইভিএম ব্যবহার করে ভালো ফল পেয়েছে। এই ইভিএম ব্যবহার করে ভোটে ম্যানিপুলেশন করা যায়, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ থাকলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম মেশিন ব্যবহার করা হবে না বলে জানিয়েছে।

ইসির সঙ্গে বৈঠকে নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে সেনামোতায়েনের দাবি জানিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট। এছাড়া জনপ্রশাসন ও পুলিশে রদবদলের বিষয়েও বলেছে। মির্জা ফখরুল বলেন, ইসি আমাদের জানিয়েছে, স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নির্বাচনে সেনামোতায়েন করার সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছে। তবে প্রতিটি কেন্দ্রে সেনামোতায়েন করা হবে কি না, সে বিষয়টি বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছে। জনপ্রশাসন ও পুলিশে রদবদলের বিষয়েও আমাদের আশ্বাস দিয়েছে ইসি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা নেতাকর্মীদের হয়রানি ও গায়েবি মামলা প্রত্যাহারের কথা বলেছি। তারা এ বিষয়ে শুনেছেন এবং খতিয়ে দেখবেন বলে জানিয়েছেন। ভোটকেন্দ্রে এজেন্টদের নিরাপত্তার বিষয়ে বললে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলেও জানিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত