ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯, ১৩:৫৯

প্রিন্ট

বগুড়ার উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি

বগুড়ার উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি
নিজস্ব প্রতিবেদক

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার সন্ধ্যায় ২০-দলীয় জোটের বৈঠকে শরিকদের এ কথা জানিয়েছেন তিনি। সংরক্ষিত নারী আসনে দলের একজন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হবে বলেও এ বৈঠকে শরীকদের জানানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ২০ দলের শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ।

তিনি বলেন, সংরক্ষিত নারী আসন এবং বগুড়া-৬ আসনের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী দেবে বলে বৈঠকে আমাদের জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মো. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচন এবং সংরক্ষিত আসনের মনোনয়নের ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই বিএনপি এ ব্যাপরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

সোমবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ২০ দলীয় জোটের বৈঠকের পর জোটের শরীক ডেমোক্রেটিক লীগের মহাসচিব সাইফুদ্দিন মনি বলেন, বৈঠকের শেষ দিকে বিএনপি মহাসচিব আমাদের বলেছেন, একটা বিষয় বলতে ভুলে গিয়েছিলাম। বগুড়া-৬ আসনে যে উপ-নির্বাচন হবে সেখানে আমরা অংশ নেওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেবো। বিষয়টি আপনাদের জানিয়ে রাখলাম।

জোটের অন্য নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিএনপির পাঁচ এমপির শপথকে কেন্দ্র করে জোটে যে অবিশ্বাস তৈরি হয়েছিল সোমবারের বৈঠকের পর তা অনেকটা দূর হয়েছে। এ বিষয়ে বিএনপির ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হয়েছে জোটের শরীক দলগুলোর নেতারা।

সূত্র জানায়, বৈঠকের শুরুতে শরিক দলের নেতারা বিএনপি নেতাদের কাছে জানতে চান- একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আমরা প্রত্যাখ্যান করলাম, শপথ না নেওয়ারও সিদ্ধান্ত ছিল। পরে জোটের সঙ্গে আলোচনা না করে কেন শপথের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। আবার অন্য এমপিরা শপথ নিলেও মহাসচিব কেন নিলেন না।

জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা কৌশলগত কারণে শপথ নিয়েছি। আমার শারীরিক অসুস্থতার কারণে আমি নিজে শপথ নেইনি। আমি বাইরে থেকে কাজ করতে চাই। আমরা পার্লামেন্টে কথা বলবো, আবার বাইরেও বলবো। পার্লামেন্টে গিয়েই বিএনপির এমপি হারুন-অর রশিদ নির্বাচনকে অবৈধ, সরকারকে অবৈধ বলেছেন। পরে সার্বিক পরিস্থিতিতে বিএনপির ব্যাখ্যায় সন্তোষ প্রকাশ করেন শরিক দলগুলো। ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে ভবিষ্যতে ঐক্যবদ্ধ থাকার প্রতিশ্রুতি দেন তারা। একই সঙ্গে বিএনপির পক্ষ থেকেও গুরুত্বপূর্ণ যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে শরিকদের মতামত নেওয়া হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ছাড়াও জামায়াতের মাওলানা আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির (জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জাগপার খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, বাংলাদেশ ন্যাপের এমএন শাওন সাদেকী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

তবে এলডিপির সভাপতি অলি আহমদ এবং জোট ছেড়ে যাওয়া আন্দালিব রহমান পার্থ বৈঠকে যোগ দেননি। বিকাল ৪টায় শুরু হওয়া এ বৈঠক শেষে জোট নেতাদের নিয়ে ইফতার করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

প্রসঙ্গত, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ না নেওয়ায় শূন্য ঘোষিত বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচন আগামী ২৪ জুন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন ৮ মে এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। এর আগে মির্জা ফখরুল শপথ না নেওয়ায় ৩০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্পিকার।

বাংলাদেশ জার্নাল/জেডআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close