ঢাকা, বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৮ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:৪৭

প্রিন্ট

স্বপ্নে কোরআন তেলাওয়াত করতে দেখলে যা হয়

স্বপ্নে কোরআন তেলাওয়াত করতে দেখলে যা হয়
জার্নাল ডেস্ক

মানুষের চিন্তার অনেক বিষয় স্বপ্নে প্রতিফলিত হয়। আবার এতে অনেক নেক কাজের ইঙ্গিতও বহন করে মানুষের স্বপ্ন। স্বপ্ন সম্পর্কে জানার আগ্রহ রয়েছে অনেকের।

মানুষের জন্য ইঙ্গিত বহন করে এমন স্বপ্ন দেখার রয়েছে কিছু সময় ও অবস্থা। কোনো ব্যক্তি যদি ওজুর সঙ্গে ঘুমানোর পর শেষ রাতে ডান কাতে কোনো স্বপ্ন দেখে, সে স্বপ্নে মানুষের জন্য থাকে বিশেষ কিছু ইঙ্গিত। যা পরবর্তীতে প্রতিফলিত হয়।

তবে যে কেউ স্বপ্নের ব্যাখ্যা করতে পারে না। তবে আল্লাহভিরু ও জ্ঞানী ব্যক্তি মাত্রই স্বপ্নের ব্যাখ্যা করতে পারেন। যদি কেউ পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করা বা শোনা সম্পর্কিত কোনো স্বপ্ন দেখেন তবে এর মর্মার্থ কী দাঁড়ায়? এর ব্যাখ্যা বা তাবিরই বা কী?

এ সম্পর্কে জ্ঞানীদের পক্ষ থেকে কিছু ব্যাখ্যা এসেছে। আর তা হলো-

কোরআন দেখে দেখে তেলাওয়াত- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখেন যে, তিনি দেখে দেখে কোরআন তেলাওয়াত করছেন, তবে তার ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তির মর্যাদা বেড়ে যাবে এবং জীবনে খুশি নেমে আসবে।

কোরআন মুখস্ত তেলাওয়াত করতে দেখলে- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখেন যে, তিনি মুখস্ত কোরআন তেলাওয়াত করছেন, তবে তার ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তি কোনো বিচার ফয়সালার মুখোমুখি হবেন এবং সেখানে তার দাবি সঠিক হবে; সে সত্যবাদি পরিচিতি পাবেন; তিনি নরম হৃদয়ের অধিকারী হবেন, সৎ কাজের আদেশ দেবেন এবং অসৎ কাজে বাধা দেবেন।

কোরআন খতম করতে দেখলে- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে কোরআন খতম করতে দেখেন তবে তার ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তির বড় কোনো সফলতা আসবে। আল্লাহ তাকে অনেক সাওয়াব দান করবেন।

কোরআন মুখস্ত করতে দেখলে- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখেন যে তিনি কোরআন মুখস্ত করেছেন। তার ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তি পরিস্থিতি অনুযায়ী শক্তি বা মর্যাদার অধিকারী হবেন।

কোরআন পড়তে দেখেছেন কিন্তু কোন অংশ পড়ছেন তা মনে নেই- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে কোরআন পড়ছেন দেখছেন, কিন্তু কোন অংশ বা আয়াত পড়েছেন তা স্মরণ নেই, তাহলে এর ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তি যদি অসুস্থ থাকে, তবে তিনি সুস্থ হয়ে যাবেন। আর যদি সে ব্যবসায়ী হয় তাহলে তার বড় মুনাফা হবে।

কোরআন তেলাওয়াত শুনতে দেখছেন- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখেন যে তিনি কোরআন তেলাওয়াত শুনছেন, তবে তার ব্যাখ্যা হলো- তার শক্তি বৃদ্ধি পাবে এবং তার সব কাজের ফলাফলও সুন্দর হবে এবং ষড়যন্ত্রকারীর ষড়যন্ত্র থেকে মুক্তি পাবেন।

অন্য ব্যক্তি তার কুরআন তেলাওয়াত শুনছেন- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখেন যে, তার কোরআন তেলাওয়াত অন্য ব্যক্তিরা শুনছেন তবে এর ব্যাখ্যা হলো- লোক সমাজে তার কথা মান্য হবে।

কোরআন বিকৃত করে পড়তে দেখলে- কোনো ব্যক্তি যদি স্বপ্নে দেখে যে কোরআন বিকৃত করে পড়ছে কিংবা কোরআন নিয়ে বিতর্ক করছে, তবে তার ব্যাখ্যা হলো- ওই ব্যক্তির জন্য এ স্বপ্ন দুর্দশা লক্ষণ হবে। তার জন্য কোনো দুর্দশা বা ক্ষতি অপেক্ষা করছে।

পরিশেষে…

স্বপ্ন যেমনই হোক, তা দেখার পর মানুষের রয়েছে কিছু করণীয়। ভালো স্বপ্ন দেখলে যেমন আল্লাহর প্রশংসা করতে হবে তেমনি খারাপ স্বপ্ন দেখলেও আল্লাহর সাহায্য কামনা করতে হবে। আর তা হলো-

ভাল স্বপ্ন দেখলে- ‘আলহামদুলিল্লাহ’ পড়া। স্বপ্নেপ্রাপ্ত সুসংবাদ গ্রহণ করা। প্রিয় ব্যক্তির কাছে বর্ণনা করা। যে ব্যক্তি স্বপ্ন সম্পর্কিত ভালো জ্ঞান রাখে তার কাছে স্বপ্নের কথা প্রকাশ করা। স্বপ্নে শুকরিয়াস্বরূপ বেশি বেশি দান করা।

মন্দ স্বপ্ন দেখলে- ‘আউজুবিল্লাহি মিনাশ শায়ত্বানির রাঝিম’ ৩বার পড়া। বাম দিকে তিন বার থু থু ফেলা। পার্শ্ব পরিবর্তন করে ঘুমানো। কারও কাছে স্বপ্নের কথা প্রকাশ না করা। স্বপ্নে দুর্দশা থেকে মুক্ত থাকতে গরিবদের দান করা।

আর এ দোয়াটি পড়া- أَعُوذُ بِكَلِمَاتِ اللَّهِ التَّامَّةِ مِنْ غَضَبِهِ وَعِقَابِهِ وَشَرِّ عِبَادِهِ وَمِنْ هَمَزَاتِ الشَّيَاطِينِ وَأَنْ يَحْضُرُونِ

উচ্চারণ : ‘আউজু বিকালিমাতিল্লাহিত তাম্মাতি মিন গাদাবিহি ওয়া ইক্বাবিহি ওয়া শাররি ইবাদিহি ওয়া মিন হামাযাতিশ শায়াত্বিনি ওয়া আঁই-ইয়াহ্‌দুরুন।’ (তিরমিজি, আবু দাউদ)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে স্বপ্নে ইঙ্গিতে প্রতি যথাযথ খেয়াল রাখার তাওফিক দান করুন। আমিন।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত