ঢাকা, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩২

প্রিন্ট

ডেঙ্গু থেকে রক্ষায় ঈদ জামাতে বিশেষ মোনাজাত

ডেঙ্গু থেকে রক্ষায় ঈদ জামাতে বিশেষ মোনাজাত
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীসহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু জ্বর। এতে আক্রান্ত হয়েছে অসংখ্য মানুষ। অনেকে মারাও গেছেন। কেউ কেউ আবার ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামেও যেতে পারেননি। অনেক পরিবারের ঈদের খুশি ডেঙ্গুতে ম্লান হয়ে গেছে। মানুষের কাছে এখন এক আতঙ্কের নাম ডেঙ্গু। তাই ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে ঈদের প্রধান জামাতে বিশেষ দোয়া করা হয়।

সোমবার ঈদের প্রধান জামাত রাজধানীর হাইকোর্টসংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের জ্যেষ্ঠ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।

দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ শেষে সমগ্র মুসলিম উম্মাহসহ দেশ ও জাতির কল্যাণ, সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত হয়।এসময় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে যারা মারা গেছেন তাদের সবাইকে শাহাদাতের মর্যাদা দিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করার জন্য মহান আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ জানানো হয়। সেইসঙ্গে সারাদেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীর রোগমুক্তি কামনা ও ডেঙ্গুর প্রকোপ কমানোর জন্যও দোয়া করা হয়।

জামাতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হাসান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, সংসদ সদস্য, সুপ্রিম কোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি, রাজনৈতিক নেতা, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন মুসলিম দেশের কূটনীতিকসহ সর্বস্তরের হাজারো মানুষ অংশ নেন। নামাজ শেষে রাষ্ট্রপতি উপস্থিত সবার সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এর আগে, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ঈদগাহে পৌঁছলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন তাকে স্বাগত জানান।

জামাতে নারী ও বিদেশি কূটনীতিকদের নামাজ আদায়ে বিশেষ ব্যবস্থা ছিল। মুসল্লিদের জন্য ওযুধ, খাবার পানি ও মোবাইল টয়লেটের ব্যবস্থা ছিল।

জাতীয় ঈদগাহে সুষ্ঠুভাবে ঈদ জামাত অনুষ্ঠানে নেওয়া হয় তিন স্তরের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ঈদগাহে সব প্রবেশ পথ এবং ভিভিআইপি ও ভিআইপিদের নামাজের স্থানসহ ঈদগাহ মাঠের গোটা প্যান্ডেলে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়। মুসল্লিদের ঈদগাহে প্রবেশের আগে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশির পর আর্চওয়ে দিয়ে প্যান্ডেলে প্রবেশ করতে হয়।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এবার ৫৬৮টি স্থানে ঈদ জামাতের আয়োজন করেছে। দক্ষিণ সিটির ৭৪টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে ৪টি করে। জাতীয় ঈদগাহ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠসহ মোট ২৯৮টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। উত্তর সিটি করপোরেশনের ৫৪টি ওয়ার্ডে ৫টি করে মোট ২৭০টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ডিপি/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত