ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ৮ চৈত্র ১৪২৬ অাপডেট : ৩৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ মার্চ ২০১৯, ১০:৪৫

প্রিন্ট

পরাজিত শোভন কেন একা?

পরাজিত শোভন কেন একা?
জয়দেব নন্দী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে পরাজিত ছাত্রলীগের সভাপতি রেজোয়ানুল হক শোভনকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছন ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি জয়দেব নন্দী। বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

জয়দেব নন্দী লিখেছেন- ডাকসু নির্বাচন শেষ। ফলাফল সবাই জানেন। ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে যারা ইতোমধ্যে নির্বাচিত হয়েছেন, তাদেরকে দু’একটি কথা বলার আছে আমার। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কর্মী হিসেবে তাদেরকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি কিছু কথা বলার অধিকারও রাখি নিশ্চয়।

একটা ছেলে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত। তার সাংগঠনিক কর্মদক্ষতা কেমন সবাই জানেন। ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের গোটা প্যানেলের জন্য ছেলেটি কি কি করেছে সেটিও জানেন নিশ্চয়। নিজেকে জলাঞ্জলি দিয়ে সবকিছু উৎসর্গ করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের জন্য সে কাজ করেছে। আমরা ছেলেটির কথা কি কেউ ভেবেছি? অভিনন্দন এর বন্যা নবাগত জিএস, এজিএস সহ অন্যান্যদের জন্য থাকবে সেটা স্বাভাবিক। কিন্তু যে নিজের ইচ্ছা, নিজের আকাঙ্ক্ষা সহযোদ্ধাদের জন্য উৎসর্গ করে; তার প্রতি সহযোদ্ধাদের ভালবাসার বন্যা বয়ে যাওয়ার কথা! নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা না করে সংগঠনের জন্য যে সহযোদ্ধাদের আবেগ-উৎকণ্ঠায়-শঙ্কায়-ক্রন্দনে পাশে থাকে, নিজেকে ছাড়িয়ে যায়, তার পাশে যেভাবে থাকার কথা সেভাবে কি আমরা থাকতে পেরেছি? পারি নাই।

এখানে প্রাসঙ্গিকভাবেই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ভিপি প্রার্থী শোভনের কথা আসে। শোভন বিজয়ী হতে পারেনি; কেন বিজয়ী হতে পারেনি, সে বিতর্কে যাবো না। শোভন ভিপি না হয়ে অন্য কেউ ভিপি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কর্মী হিসেবে শোভনের নির্বাচিত না হওয়াটা আমাকে যন্ত্রণা দিয়েছে, ব্যথিত করেছে, কষ্ট দিয়েছে। ধারণা করি সাবেক-বর্তমান অনেকেরই সেটা হয়েছে। সবাইকে ছুঁয়ে গেছে। শোভন ভিপি হিসেবে নির্বাচিত হতে পারেনি; তার যে অন্তর্দহন/অন্তর্ক্রন্দন, সেটা অনেকেই ধারণ করতে পারেনি, যেটি বর্তমানদের ধারণ করা উচিত ছিল। আপনারা সেটি ধারণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন বলেই তার চরম কষ্টের সময়ে পাশে থাকেননি।

শোভন ভিপি হতে পারেনি (যে কারণেই হোক) বলে ছাত্রলীগের অনুসারীরা বিক্ষুব্ধ ছিল। তাদেরকে সান্ত্বনা দিতে শোভন একা কেন ছুটে আসবে? তাদেরকে হলে ফিরিয়ে নিতে কি নব নির্বাচিতদের আসা উচিত ছিল না? ব্যক্তি শোভন ভিপি পদে লড়েছে, কিন্তু ভিপি পদটি কি শুধুই ব্যক্তির? শোভনের (আপাত) পরাজয় কি ব্যক্তি শোভনের? নাকি সংগঠনের? সাবেক ছাত্রলীগ কর্মী হিসেবে বলছি, বিক্ষুব্ধ কর্মীদেরকে নিবৃত করতে আমরা শুধু ব্যক্তি শোভনকেই দেখেছি। ব্যক্তি শোভন নিজ কর্মগুণে সবার অন্তরকে জয় করেছে। আমাদের প্রত্যাশা ছিল, গোটা ছাত্রলীগ আমাদের মন জয় করুক। কিন্তু সেটি হয় নি।

প্রত্যাশা, ছাত্রলীগ শুধু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নয়, গোটা জাতির মন জয় করুক। অভিনন্দন ডাকসু'র নবনির্বাচিত সবাইকে। আর দাঁড়িয়ে স্যালুট, শোভন-সঞ্জিতকে।

(ফেসবুক থেকে)

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close