ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:৫৫

প্রিন্ট

হ্যালিকারনেসাসের সমাধি মন্দির

হ্যালিকারনেসাসের সমাধি মন্দির
ফিচার ডেস্ক

খ্রিস্টপূর্ব ৩৫০ অব্দে তুরস্কের দক্ষিণ-পশ্চিম কোনে অবস্থিত কারিয়া রাজ্যে নির্মিত হয়েছিলো হ্যালিকারনেসাসের সমাধি মন্দির। রাজা মোসোলাসের মৃত্যুর পর তার স্মরণে এটি বানিয়েছিলেন রাণী আর্তেমিসিয়া (তিনি ছিলেন মোসোলাসের আপন বোন, তখনকার সময়ে আপন বোনকে বিয়ে করা সামাজিকভাবে ট্যাবু ছিলোনা)।

বর্তমান তুরস্কের বোদরাম-এ, যেখানে ছিল প্রাচীন শহর কারিয়া, তারই হ্যালিকারনেসাস নামক স্থানে এক বিশালাকায় সমাধি মন্দির (মন্দির শব্দের অর্থ কিন্তু ‘ঘর’) বানানো হয়।

জানা যায়, তখনকার দিনের সেরা ভাস্করদের দিয়ে সম্পূর্ণ মার্বেল পাথরে বানানো হয়েছিলো এই মন্দিরটি। এর জাঁকজমকই এটির সুমাম চারদিকে ছড়িয়ে দিয়েছিলো।

মন্দিরটি মূলত তিন স্তরে বিভক্ত ছিলো। প্রথম স্তরে আয়তাকার বিশাল এক প্রস্তর ভিত্তি। দ্বিতীয় স্তরে ছিল ৩৮টি থাম, যার প্রতিটির উচ্চতা ছিল ৫৬ ফুট। তৃতীয় স্তরটি ছিল সোজা ঊর্ধ্বাকাশে উঠে যাওয়া বিশালাকৃতির পিরামিড আকারের গম্বুজ। গম্বুজের উচ্চতা ছিলো ৫০ ফুট।

ধারণা করা হয় ভূমিকম্পের কারণে এ বিখ্যাত মন্দিরটি ধ্বংস হয়ে গিয়েছিলো। কিন্তু এ তথ্য নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। বলা হয়ে থাকে মন্দিরটির ধ্বংসাবশেষ লোকজন বাড়ি–ঘর বানাতে কাজে লাগিয়ে ফেলেছিলো। তাই এখন এর ধ্বংসাবশেষও খুঁজে পাওয়া যায়না।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত