ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১৫:১৭

প্রিন্ট

রাজশাহীর বিপক্ষে ঢাকার টার্গের ১৭০

রাজশাহীর বিপক্ষে ঢাকার টার্গের ১৭০

স্পোর্টস ডেস্ক

অবশেষে ফিরেছে ঘরোয়া ক্রিকেট। মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ’ টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়ে ২৫১ দিন পর ফিরেছে ঘরোয়া ক্রিকেটের প্রতিযোগিতা। পুরো টুর্নামেন্টটি দেখা যাবে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো চালু হতে যাওয়া ক্রীড়া চ্যানেল টি-স্পোর্টসে।

টুর্নামেন্টের পর্দা উঠছে বেক্সিমকো ঢাকা ও মিনিস্টার রাজশাহীর মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে। প্রথম ম্যাচে টসে জিতে বেক্সিমকো ঢাকার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর মিনিস্টার রাজশাহীকে।

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকে বিপাকে পড়ে নাজমুল হোসেন শান্তের নেতৃত্বাধীন রাজশাহী। আর শুরুতেই বিপর্যয়ের মুখে পড়ে দলটি। দলীয় ৬৫ রানে যখন পাঁচ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে দলটি। তখন হাল ধরেন মেহেদী হাসান ও নরুল হাসান সোহান।

সাত নম্বরে ব্যাট করতে নামা মেহেদী, শুরু থেকেই মারকুটে ব্যাটিং করতে থাকেন। এক পর্যায়ে ৩১ বলে আসরের প্রথম অর্ধশতক তুলে নেন তিনি। ষষ্ঠ উইকেট সোহানকে নিয়ে ৮৯ রানের অনবদ্য এক জুটি গড়েন মেহেদী।

অর্ধশতক হাঁকালেও দলকে শেষ পর্যন্ত টেনে নিতে পারেননি মেহেদী। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার আগে ৩২ বলে ৪ ছক্কা ও ৩ চারে ৫০ রান করেন। ১৫৬ স্ট্রাইক রেটে রান করেছেন মেহেদী। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে রাজশাহীর সংগ্রহ ১৬৯ রান।

ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদসম্মেলনে মুশফিক জানালেন, ‘আশা করছি বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে যাতে খুব ভালো একটা শুরু করতে পারি এবং সেটা যেন শেষ করতে পারি। আমাদের প্রথম লক্ষ্য থাকবে শীর্ষ চারে যাতে যেতে পারি। অবশ্যই তারপর যাতে ফাইনালটা খেলতে পারি। এরপর যেটা বললেন আল্টিমেটলি লক্ষ্য তো হচ্ছে চ্যাম্পিয়নশিপ। সেদিকেই আমাদের লক্ষ্য আছে। আশা করছি শুরুটা যাতে ভালো করতে পারি।’

মুশফিকদের হারাতে বেশ আত্মবিশ্বাসী ভঙ্গিতেই শান্ত জানালেন, ‘আমার দলে তরুণ ক্রিকেটারও অনেক আছে। চারদিকে চিন্তা করলে কম্বিনেশন ভালো। মনে হয় না সমস্যা হবে। পাশাপাশি আমার রেগুলার পারফর্ম করা রান করা। ওই জায়গায়টায় ভালোভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। নজর দিচ্ছি কীভাবে ভালো রান করা যায়। অবশ্যই শেষ দুই তিনটা ইনিংস খুব ভালো ছিল টি-টোয়েন্টির। ওই ইনিংসগুলো চিন্তা করলে অবশ্যই আত্মবিশ্বাসী আছি।’

রাজশাহী একাদশ:

মোহাম্মদ আশরাফুল, ফরহাদ রেজা, আরাফাত সানি, নুরুল হাসান সোহান, ফজলে রাব্বি, রনি তালুকদার, নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), শেখ মেহেদি, এবাদত হোসেন, মুগ্ধ, আনিসুল ইমন।

ঢাকার একাদশ:

মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), নাইম শেখ, তানজিদ হাসান তামিম, রুবেল হোসেন, নাসুম আহমেক, আকবর আলী, ইয়াসির রাব্বি, সাব্বির হোসেন, মেহেদি রানা, মুক্তার আলি, নাইম হাসান।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত