প্রথমার্ধ্ব শেষে গোলশূন্য সমতায় বিরতিতে দুই দল

প্রকাশ : ২৯ মে ২০২২, ০২:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

ছবি- ফেসবুক

প্যারিসের স্তাদে দ্য ফ্রান্সে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালের মহারণ যেন রঙ ছড়িয়েই যাচ্ছে। মাঠের বাইরে থেকে শুরু করে মাঠের খেলাতেও ফাইনালের দাপটই টেনে এনেছেন সালাহ-মানে আর বেঞ্জেমা-মদ্রিচরা।

নির্ধারিত সময় থেকে দুই দফা পিছিয়ে বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত ১ টা ৩৬ মিনিটে শুরু হওয়া খেলার প্রথমার্ধ্ব শেষে দুই দলই বিরতিতে গেছে ০-০ গোলের সমতা নিয়ে। তবে ম্যাচের শুরু থেকেই কেউ যেন কাউরে ছেড়ে কথা বলার পাত্র নয়। একেবারে শুরু থেকেই রিয়াল মাদ্রিদের রক্ষণভাগে ত্রাস ছড়াতে শুরু করে লিভারপুল। রিয়াল কি কম যাবে নাকি? সময়য় গড়ানোর সাথে সাথে লিভারপুলের সাথে সমানে সমানে টক্কর দিতে শুর করে তারাও।

ম্যাচের প্রথম বড় সুযোগটি আসে ২০১৮’র ফাইনালের প্রতিশোধের সুর তোলা মোহাম্মদ সালাহর পা থেকে। ম্যাচের মাত্র ১৬ মিনিটে ছয় গজ বক্সে জটলার মধ্যে থেকে শট নেন মিশরীয় রাজা। পুরোপুরি পারফেক্ট না হলেও লক্ষ্যেই ছিল সালাহর শট। শেষ মুহুর্তে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেই শট আটকে দেন মাদ্রিদ গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া।

এরপর পরপর দু মিনিটে দুটি সুযোগ পান থিয়াগো আর সালাহ। তবে দুজনই শট নেন কোর্তোয়ার বরাবরই। 

২১ মিনিটে এসে প্রথমার্ধ্বের সবচেয়ে বড় সুযোগ পায় লিভারপুল। তবে ভাগ্যের বিড়ম্বনায় এ যাত্রা বেঁচে যায় রিয়াল মাদ্রিদ।  সাদিও মানের জোরাল নিচু শটে ঝাঁপিয়ে পড়ে কোনোমতে হাত ছোঁয়ান কোর্তোয়া। তবে সেই বলও চলে যেত জালে, যদি না গোলপোস্টে বাধা পেতো।

আস্তে আস্তে আক্রমণ শুরু করে রিয়াল মাদ্রিদও। তবে তাদের সবচেয়ে বড় সু্যোগটি আসে প্রথমার্ধ্বের একেবারে শেষে এসে। জটলা থেকে বল পেয়ে করিম বেনজেমা বল জালেও জড়ান। তবে এবার ভাগ্যদেবী লিভারপুলের পক্ষে। অফসাইডের ফাঁদে পড়ে বাতিল হয় সেই গোল। গোলশূন্য সমতা নিয়েই প্রথমার্ধ্বের বিরতিতে যায় দুই দল।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস