ঢাকা, সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শিরোনাম

লড়াই করে ক্যামেরুনের বিপক্ষে জয় সুইসদের

  ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর ২০২২, ১৮:১৭  
আপডেট :
 ২৪ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৪৪

লড়াই করে ক্যামেরুনের বিপক্ষে জয় সুইসদের
গোল উদযাপনে ব্রেল এমবোলো । ছবি: ইন্টারনেট
ক্রীড়া ডেস্ক

কাতারে ফিফা বিশ্বকাপ অভিযান জয় দিয়ে শুরু করল সুইজারল্যান্ড। প্রথমার্ধে খেলার ফল ছিল গোলশূন্য। ম্যাচের ৪৮ মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন ব্রেল এমবোলো। ক্যামেরুনের বিরুদ্ধে গোল করলেন! ভাবছেন তো এমন বিষ্ময় চিহ্ন কেন? এমবোলোর জন্ম ক্যামেরুনে। এখনও তার পরিবার সেখানে রয়েছে। কিন্তু খেলার সুযোগ পেয়েছেন সুইজারল্যান্ডে। সে কারণেই জন্মভূমির বিরুদ্ধে এমবোলোর গোল যন্ত্রণা বাড়াল ক্যামেরুনের। বিশ্বকাপের মঞ্চে এটি তাঁর প্রথম গোল।

বৃহস্পতিবার ‘জি’ গ্রুপের ম্যাচে আল জানোব স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল ক্যামেরুন এবং সুইজারল্যান্ড। যেখানে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে বিজয়ের হাসি হেসেছে সুইসরা। ক্যামেরুনের বিপক্ষে ১-০ গোল ব্যবধানের জয় দেখেছে সুইজারল্যান্ড।

সমান তালে লড়াই করে ক্যামেরুন আক্রমণ এবং গোলমুখে সুইজারল্যান্ডের চেয়ে বেশি শট নিয়েছে। তবে ম্যাচে একবারই বল জালে জড়াতে পেরেছে সুইজারল্যান্ডের ব্রিল এমবোলো।

এই ম্যাচে সুইজারল্যান্ড বল দখলে মাত্র ২ শতাংশ এগিয়ে ছিল। সুইসদের ৫১ শতাংশ বল দখলের বিপরীতে ক্যামেরুনের পায়ে বল ছিল ৪৯ শতাংশ। এদিকে আক্রমণ বিবেচনায় এগিয়ে ছিল ক্যামেরুন। আফ্রিকার দেশটি ৮ বার আক্রমণ করে ৫টি গোলমুখে শট করেছে। অন্যদিকে সুইসরা ৭টি আক্রমণ করে ৩টি গোলমুখে শট করে।

সুইজারল্যান্ডের জয়ের নায়ক এমবোলোর জন্ম ক্যামেরুনের রাজধানী ইয়াউন্দে-তে। ১৯৯৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি। তার বাবা ও মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এমবোলোর বয়স যখন পাঁচ বছর, তাকে নিয়ে তার মা ফ্রান্সে গিয়ে স্কুলে ভর্তি করান। সেখানে এমবোলোর মা সুইস ব্যক্তির প্রেমে পড়েন এবং বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এরপর এমবোলো পরিবারের সঙ্গে চলে যান বাসেলে। ২০১৪ সালে সুইস নাগরিকত্ব পান। ২০১৮ সালে এমবোলোর বান্ধবী কন্যা নালিয়ার জন্ম দেন। ২০১৫ সালে সুইৎজারল্যান্ড দলে সুযোগ পান ৬ ফুট ২ ইঞ্চি উচ্চতার ফরওয়ার্ড এমবোলো। ২০১৬ সালের ইউরো, ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ, ২০২০ সালে ইউরো খেলেছেন।

সুইসদের জয়ের নায়ক এমবোলোর জন্ম ক্যামেরুনের রাজধানী ইয়াউন্দে-তে। ১৯৯৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি। তাঁর বাবা ও মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এমবোলোর বয়স যখন পাঁচ বছর, তাঁকে নিয়ে তাঁর মা ফ্রান্সে গিয়ে স্কুলে ভর্তি করান। সেখানে এমবোলোর মা সুইস ব্যক্তির প্রেমে পড়েন এবং বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এরপর এমবোলো পরিবারের সঙ্গে চলে যান বাসেলে। ২০১৪ সালে সুইস নাগরিকত্ব পান। ২০১৮ সালে এমবোলোর বান্ধবী কন্যা নালিয়ার জন্ম দেন। ২০১৫ সালে সুইৎজারল্যান্ড দলে সুযোগ পান ৬ ফুট ২ ইঞ্চি উচ্চতার ফরওয়ার্ড এমবোলো। ২০১৬ সালের ইউরো, ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ, ২০২০ সালে ইউরো খেলেছেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই জেতালেন সুইসদের, তারই জন্মভূমির বিরুদ্ধে। সোমবার সুইসদের ম্যাচ ব্রাজিলের বিরুদ্ধে। শুক্রবার শেষ ম্যাচ সার্বিয়ার বিরুদ্ধে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত