ঢাকা, বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ১০ মিনিট আগে
শিরোনাম

গ্রুপ শীর্ষে থেকেই শেষ ষোলোয় নেদারল্যান্ডস

  ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ২৩:৫২

গ্রুপ শীর্ষে থেকেই শেষ ষোলোয় নেদারল্যান্ডস
গ্রুপ শীর্ষে থেকেই শেষ ষোলোয় নেদারল্যান্ডস । ছবি: ইন্টারনেট
ক্রীড়া ডেস্ক

এক পয়েন্ট পেলেই নক-আউটে জায়গা নিশ্চিত! এই সমীকরণেই গ্রুপ ‘এ’র ম্যাচে কাতারের মুখোমুখি হয়েছিল নেদারল্যান্ডস। আল বাইত স্টেডিয়ামে কাতারকে ২-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ শীর্ষে থেকেই নক আউটে নেদারল্যান্ডস। ২৬ মিনিটে কডি গাকপো প্রথমে গোল করে এগিয়ে দেন ডাচ বাহিনীকে। এরপর ৪৯ মিনিটে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং করেন জয়সূচক গোল।

৯২ বছরের ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম দল হিসেবে লজ্জার রেকর্ডের শিকার হলো আয়োজক কাতার। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে নেমে টানা তিন হারে সবার আগে বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে গেল মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।

স্বাগতিক দেশ কাতার ম্যাচের শুরুতে কিছুটা প্রতিরোধ গড়তে পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে কেবল সময় কাটানো ছাড়া আর কিছুই করতে পারেনি দলটি। অন্যদিকে দারুণ খেলেছে লুইস ফন গালের শিষ্যরা। এরমধ্যে প্রথমার্ধে কোডি গাকপোর গোলে ১-০ ব্যবধানের লিড নিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল অরেঞ্জ আর্মিরা।

১৯৭৪ সালে ইওহান নিসকেন্স, ১৯৯৪ সালে ডেনিস বার্গক্যাম্প ও ২০১০ সালে ওয়েসলি স্নেইডারের পর চতুর্থ ডাচ হিসেবে বিশ্বকাপের পরপর তিনটি ম্যাচেই গোল করার কৃতিত্ব অর্জন করলেন গাকপো। বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে তিনটি ম্যাচেই দেশের হয়ে প্রথম গোলটি করার ক্ষেত্রে গাকপো হলেন নেদারল্যান্ডসের প্রথম ফুটবলার, বিশ্বে দ্বিতীয়। ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপে এমন নজির গড়েছিলেন ইতালির আলেজান্দ্রো আলতোবেল্লি।

বিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেই ব্যবধান দ্বিগুণ করে ডাচরা। ম্যাচের ৪৯তম মিনিটে অরেঞ্জ আর্মিদের পক্ষে ব্যবধান বাড়িয়ে দেন ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং। ডেভি ক্লাসেনের দারুণ এক ক্রস ফাঁকায় পেয়ে গোলমুখে শট করেন মেম্পিস ডেপাই। তবে কাতারের গোলরক্ষক বারশাম দারুণ এক সেইভ দেন। কিন্তু ফলো থ্রুতে বল পেয়ে সহজ গোল করেন ডি ইয়ং। ২৫ বছরের ডি ইয়ং এদিন কেরিয়ারের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক গোলটি পেলেন, যা নেদারল্যান্ডসের জয়ের ব্যবধান বাড়ায়িছে।

ম্যাচের ৬৮তম মিনিটে আরেকটি সহজ গোলের দেখা পান গাকপো। তবে এই গোলটি বাতিল করতে রেফারির কাছে হ্যান্ডবলের আবেদন তোলেন কাতারের ফুটবলাররা। ভিএআরে রেফারি দেখেন গোল দেওয়ার আগে মাঝমাঠে ডাচ এক প্লেয়ারের হাতে বল লাগে। ফলে বাতিল হয় সেই গোলটি। ম্যাচের বাকি সময় আর কোনো দলই গোল পায়নি।

এ জয়ের ফলে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের টেবিলে সবার শীর্ষে নেদারল্যান্ডস। ২টি জয়ের পাশাপাশি একটি ম্যাচে ড্র করেছিল তারা। শেষ ষোলোয় তাদের সঙ্গী হয়েছে সাদিও মানেহীন সেনেগাল। ২ জয় ও এক হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়েছে আফ্রিকার দেশটি।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত