ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ৯ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৪১

প্রিন্ট

সেই বাড়িওয়ালার মেয়ে কুলসুমও মারা গেলেন

সেই বাড়িওয়ালার মেয়ে কুলসুমও মারা গেলেন
ফাইল ছবি
নরসিংদী প্রতিনিধি

নরসিংদীর শিবপুরে পারিবারিক কলহের জের স্ত্রী ও বাড়িওয়ালাসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় আহত বাড়িওয়ালার মেয়ে কুলসুম মারা গেছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় বুধবার কুলসুম মারা যায়।

পুলিশ জানিয়েছে, কাঠমিস্ত্রি স্বামী বাদল মিয়া শিবপুরের কুমড়াদি গ্রামের তাজুল মিয়ার বাড়িতে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন। পারিবারিক ও দাম্পত্য কলহের জের ধরে স্ত্রী নাজমা বেগমের মনমালিন্য চলে আসছিল। এর জেরে ধরে প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগে থাকতো।

এরই মধ্যে রোববার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে নিহত নাজমার ঘর থেকে হৈইচৈই এর শব্দ শুনতে পাওয়া যায়। শব্দ পেয়ে বাড়িওয়ালা তাজুল ইসলাম, তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম ও নিহত নাজমা বেগমের ছেলে নাদিমসহ আশপাশের লোকজন এগিয়ে যায়। এসময় তারা বাদল মিয়াকে থামানোর করার চেষ্টা তরে। এতে সে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে বাড়িওয়ালা ও উপস্থিত লোকজনকে কোপাতে থাকে। এতে ৫ জন আহত হয়।

আহত ৫ জনকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেয়ার পর নাজমা ও মনোয়ারা বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। অবস্থার অবনতি হলে তাজুল ইসলাম, তার মেয়ে কুলসুম ও নিহত নাজমার ছেলে সোহাগকে ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে ঢাকায় নেয়ার পথে ওইদিনই তাজুল মারা যায়। ঘটনার পর ৪ দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর বুধবার সকালে কুলসুমও মারা যান।

শিবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তদন্ত আবুল কালাম বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকালে কুলসুমের মৃত্যু হয়। অন্যদিকে অভিযুক্ত বাদল মিয়াও নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। চিকিৎসা শেষে তাকে আদালতে তোলা হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত