ঢাকা, শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪:৫৩

প্রিন্ট

শিশু নির্যাতনকারী গৃহকর্ত্রীর রিমান্ড শুনানি হয়নি

শিশু নির্যাতনকারী গৃহকর্ত্রীর রিমান্ড শুনানি হয়নি

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরের শ্রীবরদীতে শিশু গৃহকর্মী সাদিয়া পারভিনকে নির্যাতনকারী আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রী রুমানা জামান ঝুমুরের রিমান্ড শুনানি হয়নি। সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের ওসি রুহুল আমিন তালুকদার রোববার সকালে বলেন, ‘ঝুমুর এজমাইটিক, ডায়াবেটিস ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভোগছেন’।

চিকিৎসকদের কাছ থেকে তার সুস্থতার প্রমাণপত্র পাওয়ার পর রিমান্ড আবেদন করা হবে।

গেল শুক্রবার দিবাগত রাত ১১টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব শাকিলের স্ত্রী ঝুমুরের বর্বরোচিত নির্যাতনের শিকার হয় ১০ বছর বয়সী গৃহকর্মী শিশু সাদিয়া। এ ঘটনায় নির্যাতনকারী গৃহকর্ত্রী ঝুমুরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শিশু সাদিয়া উপজেলার পৌর শহরের মুন্সীপাড়া মহল্লার দরিদ্র ট্রলিচালক সাইফুল ইসলামের মেয়ে।

এদিকে নির্যাতনে গুরুতর অসুস্থ সাদিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শনিবার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি জনসম্মুখে আসার পরপরই এলাকায় তোলপাড় চলছে।

পুলিশ ও নির্যাতনের শিকার শিশুটির স্বজনরা জানায়, শ্রীবরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফ হোসেন খোকার ছেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব শাকিলের বাড়িতে দুই বছর আগে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করে। এরপর থেকে নানা অজুহাতে শিশু সাদিয়ার উপর শারীরিক নির্যাতন চালাতে শুরু করে শাকিলের স্ত্রী রুমানা জামান ঝুমুর। দিন যত যাচ্ছিল সেই সাথে নির্যাতনের মাত্রাও বাড়াচ্ছিল ঝুমুর। গরম খুন্তির ছ্যাকা দিয়ে জখম করা হয় সাদিয়ার মাথা, পিঠ ও কাঁধ। চিকিৎসা না পাওয়ায় সাদিয়ার কচি শরীরে দগদগে ক্ষতের সৃষ্টি হয়। গত কয়েকদিন আগে নির্যাতনে মাত্রা আরো তীব্র আকার ধারণ করে।

এক পর্যায়ে শুক্রবার রাতে ঝুমুর শিশু সাদিয়াকে নির্যাতন শুরু করলে শিশুটি বাঁচার তাগিদে আর্তচিৎকার শুরু করে। পরে এক প্রতিবেশী ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। পরে শ্রীবরদী থানা পুলিশের এসআই মোফাখিখর হোসেন বিথি টাওয়ারের ৬ তলার বাড়ি থেকে গুরুতর আহতাবস্থায় সাদিয়াকে উদ্ধার করে।

পরে রাত দেড়টার দিকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ সময় সাদিয়ার অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় জেলা সদর হাসপাতাল ও পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নির্যাতনের ঘটনায় শিশু গৃহকর্মী সাদিয়ার বাবা বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন এএসপি (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলাম ।

ওসি রুহুল আমিন তালুকদার জানান, রুমানা জামান ঝুমুর সুস্থ হওয়ার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের কাছে কমপক্ষে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হবে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি আরো জানান, শিশু সাদিয়া বর্তমানে কিছুটা সুস্থ আছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত