ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ৮ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭:১৫

প্রিন্ট

দলের বিদ্রোহীদের মনোনয়ন নয়: কাদের

দলের বিদ্রোহীদের মনোনয়ন নয়: কাদের
ফাইল ছবি

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

দলের বাহিরে গিয়ে যারা নির্বাচন করেছে তাদের আগামী স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়া হবে না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিগত নির্বাচনে যারা দলের নির্দেশ অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে বিজয়ী হয়েছেন বা জয়ী হয়েছেন তাদেরকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে না। দয়া করে তারা যেন মনোনয়নপত্র না কেনে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় (ভার্চুয়াল) অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

লক্ষ্মীপুরের স্থানীয় সরকার নির্বাচন গুলোতে মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দল এখন অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে আছে।আমাদের দলের ইমেজ ঠিক রাখতে হবে। উন্নয়ন করে কোন লাভ নেই, ভাবমূর্তি যদি অপকর্মের জন্য নষ্ট হয়ে যায়। কাজেই আমরা দলের ভাবমূর্তি উন্নয়নের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। জেলায় জেলায় অন্তঃকোন্দল। নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থাকবে, আবার নিজেরা বসেই সেটা মিটিয়ে নেবেন। কিন্তু প্রকাশ্যে একে অন্যের বিরুদ্ধে গেলে সেটা দলের ইমেজের জন্য খুবই খারাপ।’

তিনি বলেন, ‘কর্মীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কঠোর বার্তা- ‘দলের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে।’

বক্তব্য দিচ্ছেন ড. আনোয়ার হোসেন খান এমপি। ছবি: প্রতিনিধি​

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকার অপকর্মকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে। দলীয় পরিচয়ে শেখ হাসিনার কাছে কোন অপরাধী নিজেদের আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না। তাই দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ যেন কোন অপকর্ম করতে না পারে সেদিকে আপনাদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখতে হবে। ক্ষমতার অপব্যবহারের জন্য দলের পদ কাউকে ইজারা দেয়া হয়নি। মনোনয়ন বাণিজ্য কোন অবস্থাতেই নেত্রী বরদাস্ত করবেন না। এসব বিষয়ে নজরদারি আছে। কাজেই আপনাদের সর্তক থাকতে হবে।’

কাদের বলেন, ‘বিজয়ের মাসে একটি উগ্র ও সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী ভাস্কর্য আর মূর্তির নামে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা ও সম্প্রতি বিনষ্টের অপচেষ্টা করছে। লক্ষ্মীপুরে এ সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর দাপট আমরা অতীতে দেখেছি। যারা নির্বাচনে প্রত্যাখ্যান হয়েছে জনগণ দ্বারা, তারা এখন ষড়যন্ত্রের দৌঁড়াদৌঁড়ি করছে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। ভাস্কর্যের বিষয়টি সারা দুনিয়ায় স্বীকৃত। বিভিন্ন দেশে ভাস্কর্য আছে। এটাকে ইস্যু করে সাম্প্রদায়িক মহল যড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। এর বিরুদ্ধে আপনাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে জবাব দিতে হবে। যারা এর বিরুদ্ধে উস্কানি দিচ্ছে এবং অর্থের যোগান দিচ্ছে তাদের সম্পর্কে সরকার সজাগ রয়েছে। সরকারের সফলতাকে দুর্বল ভাববেন না। জনগণের শান্তি বিনষ্ট করলে জনগণই রুখে দাঁড়াবে।’

লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বক্তব্য দিচ্ছেন মাহবুব-উল আলম হানিফ। ছবি: প্রতিনিধি

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘রাষ্ট্রবিরোধী কোন বক্তব্য বরদাস্ত করা হবে না। ধর্মীয় ইস্যুকে সামনে এনে শান্তি বিনষ্টের যে কোন অপচেষ্টা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। নির্বাচনে এবং আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করছে। তারা আবার ‘আগুন সন্ত্রাস’ বেছে নিয়েছে। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনে সকল রাজনৈতিক দলের অধিকার আছে। কিন্তু কর্মসূচির নামে জনগণের শান্তি বিনষ্টের অপচেষ্টা করলে আওয়ামী লীগ সরকার জনগণকে সাথে নিয়ে তাদের সঠিক জবাব দেয়ার জন্য প্রস্তত আছে। সন্ত্রাস এবং দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর। বিএনপি বলেছে- আওয়ামী লীগ সরকার করোনার চেয়ে ভয়ানক, তারা ঠিকই বলেছে- আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরকার ভয়ানক অবস্থানে থাকবে। রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র করলে তাদের মুখোশ উন্মোচন করা হবে। দলমত নির্বিশেষে শেখ হাসিনা সরকার অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে।’

সবশেষে কাদের বলেন, ‘লক্ষ্মীপুরে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। সড়ক বিভাগেও উন্নয়ন হয়েছে। আশা করি আপনারা শতভাগ বিদ্যুৎ পেয়েছেন। শেখ হাসিনা সরকারের আরো অনেক উন্নয়ন লক্ষ্মীপুরে আছে। কিন্তু অন্যান্য জেলার চেয়ে লক্ষ্মীপুর পিছিয়ে আছে- একথা আমি মন্ত্রণালয়ে বলেছি। সবাই এগিয়ে গেলে লক্ষ্মীপুর কেন পিছিয়ে থাকবে? রাস্তাঘাটের আরো উন্নতি করতে হবে। আমি বৃহত্তর নোয়াখালীর সন্তান হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব।’

লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা। ছবি: প্রতিনিধি

সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হারুনুর রশিদ, লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শাহজাহান কামাল এবং লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান প্রমুখ।

সভার সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক এড. নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন। সভায় মাহবুব-উল আলম হানিফ অচিরেই লক্ষ্মীপুরের মেয়াদোত্তীর্ণ উপজেলা এবং পৌর কমিটির সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করার জন্য জেলার নেতাদের নির্দেশ দেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত