ঢাকা, রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ২ মিনিট আগে

চট্টগ্রামে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৭:০১

চট্টগ্রামে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী ও মৃত্যুর সংখ্যা
প্রতীকী মশা। সংগৃহীত ছবি
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও তিনজন মারা গেছেন। এর মধ্যে দু’জন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল ও একজন এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। শুধু এ তিনজনই নয়, গেল দুই সপ্তাহে চট্টগ্রামে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে পাঁচজনের মৃত্যু হয়। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি হন নগরীর পাহাড়তলী এলাকার বাসিন্দা শিউলি রানী। কিন্তু ভর্তির পরদিন বুধবার সকালে মৃত্যু হয় এই নারীর। একই এলাকা থেকে ১৬ সেপ্টেম্বর খুরশিদা বেগম নামে আরও এক নারী ভর্তি হন হাসপাতালটিতে। তিনিও বুধবার রাতে মারা যান ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে। সরকারি এ হাসপাতাল ছাড়াও একইসময়ের বেসরকারি এভারকেয়ার হাসপাতালে মৃত্যু হয় মোগলটুলি এলাকার দিলআরা বেগম রেশমী নামে আরেক নারীর। তিনিও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ছিলেন।

এর আগে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে মৃত্যু হয় হালিশহরের মরিয়ম আক্তার এবং রাউজানের পলাশ আশ্চার্য নামে আরও দুইজনের। তাদের মধ্যে মরিয়ম আক্তার গত ৬ সেপ্টেম্বর আর পলাশ আশ্চার্য মারা যান ১৫ সেপ্টেম্বর।

স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, মৃত্যু ছাড়াও গেল দুই সপ্তাহে উদ্বেগজনক হারে মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী বেড়েছে চট্টগ্রামে। এর মধ্যে আক্রান্তের ৮৫ শতাংশই হচ্ছে নগরীর বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। যার মধ্যে নগরীর পাহাড়তলী ও হালিশহরের আশপাশের এলাকাগুলোতেই রোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি লক্ষ্য করা গেছে। আর মৃত্যু ও আক্রান্ত বিবেচনায় নগরীর পাহাড়তলী ও হালিশহর এলাকাকে ডেঙ্গুর হটস্পট হিসেবে দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। হঠাৎ করেই ডেঙ্গু এমন টালমাটাল অবস্থায় উদ্বেগ বাড়িয়ে তুলেছে সংশ্লিষ্টদের।

জানা যায়, গেল একদিনে চট্টগ্রামে আরও ১২ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮ জনই হচ্ছেন নারী। ভর্তি হওয়া এ ১২ জন নিয়ে চট্টগ্রামে চলতি বছর ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ৫৮২ জনে এসে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে পাঁচজনের মৃত্যু হলেও ৫২০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তবে এখনও সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ৫৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে বেসরকারি হাসপাতালে ২৮ জন, চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ৪ জন এবং চমেক হাসপাতালে ২৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, নগরীর পাহাড়তলী, সরাইপাড়া, হাজিপাড়া, দেওয়ানহাট, হালিশহর, বড়পোল ও জেলার সাতকানিয়ায় সবচেয়ে বেশি রোগী পাওয়া যাচ্ছে। যাদের মধ্যে একই পরিবারের একাধিক রোগীও রয়েছেন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক অং সুই প্রূ মারমা বলেন, এখনও ২৩ ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। চলতি বছর এ হাসপাতালে ২০০ ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী জানান, চট্টগ্রামে ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি নিয়ে আমরা চিন্তিত। যদিও এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চিঠি দিয়েছিলাম। আর মশক নিধন বা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি আমাদের হাতে নেই। এটি সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্ব।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত