ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৭ অক্টোবর ২০২০, ২১:১৬

প্রিন্ট

চালু হয়নি ব্যাংকের সঙ্গে মোবাইলে লেনদেন

চালু হয়নি ব্যাংকের সঙ্গে মোবাইলে লেনদেন
প্রতীকী ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ থেকে চারটি ব্যাংকের সঙ্গে মোবাইলে আর্থিক সেবাদাতা (এমএফএস) প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যে লেনদেন হওয়ার কথা ছিলো সেই সিদ্ধান্ত আপাতত স্থগিত করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে আন্তঃলেনদেন চালু করার বিষয়ে নিষেধ করে মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, মোবাইলে আর্থিক সেবাদাতা (এমএফএস) প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পারস্পরিক লেনদেন সুবিধা কারিগরির ত্রুটির কারণে চালু করা যায়নি। এ কারণে মৌখিকভাবে আগের নির্দেশনা স্থগিতের সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। ক্রটি সংশোধন করে শিগগিরই নতুন তারিখ জানানো হবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘পারস্পরিক মোবাইল ব্যাংকিং লেনদেনের ক্ষেত্রে কিছু কারিগরি সমস্যা দেখা দিয়েছে, যে কারণে সেবাটি চালু করা সম্ভব হয়নি। এটি সমাধানে টেকনিক্যাল টিম কাজ করছে।’

‘তবে এই সমস্যার সমাধান কতদিনে হবে তা ঠিক বলা যাচ্ছে না’ বলেও জানান নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম।

‘আন্তঃলেনদেন চালুর প্রক্রিয়াটি আরেকবার পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে’ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই পর্যালোচনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব ও ব্যাংকের হিসাবের মধ্যে লেনদেন শুরু করা সম্ভব হবে না।’

প্রসঙ্গত, গত ২২ অক্টোবর সার্কুলার দিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছিল, ২৭ অক্টোবর থেকে ইন্টার-অপারেবিলিটি সেবা চালু হবে। দেশে নগদ অর্থ লেনদেন কমানো ও মোবাইল ব্যাংকিং (মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস বা এমএফএস ) সেবা আরও জনপ্রিয় করতে এবার ইন্টার-অপারেবিলিটি (আন্তঃব্যবহারযোগ্যতা) সিস্টেম চালুর উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ সেবার মাধ্যমে বিকাশ থেকে নগদে এবং ইউক্যাশ থেকে বিকাশেসহ সব এমএফএস সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের গ্রাহক একে অপরের সঙ্গে পারস্পরিক লেনদেন করতে পারবে।

মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব (অ্যাকাউন্ট) থেকে বর্তমানে এমএফএস সেবা দেয়া ১৫টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পারস্পরিক অর্থ লেনদেন করা যাবে। অর্থাৎ, কোনো গ্রাহকের বিকাশ অ্যাকাউন্ট থাকলে তিনি ইউক্যাশ, রকেট, এমক্যাশসহ অন্যান্য সব গ্রাহকের সঙ্গে অর্থ লেনদেন করতে পারবেন। আবার ইউক্যাশের গ্রাহক বিকাশ, শিওর ক্যাশসহ সব প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকের হিসাবে অর্থ পাঠাতে পারবেন। শুধু তাই নয়, যে কোনো মোবাইল ব্যাংক থেকে যেকোনো মূল ব্যাংকের সঙ্গেও লেনদেন করা যাবে।

ব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চারটি মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান এই সেবা চালুর জন্য প্রস্তুত ছিল। মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান চারটি হলো— ব্র্যাক ব্যাংকের বিকাশ, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের ইউক্যাশ, ইসলামী ব্যাংকের এমক্যাশ ও আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ই-ওয়ালেট।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে মোট ১৫টি ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সঙ্গে জড়িত। গত আগস্ট মাস শেষে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে নিবন্ধিত গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়ায় নয় কোটি ২৯ লাখ ৩৭ হাজারে।

বেতন কমানোর খবরে ব্যাংকারদের ক্ষোভ

সব মোবাইল ব্যাংকিং-এ আন্তলেনদেন

বেতন কমছে যেসব চাকরিজীবীদের!

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন কমেছে ২৪ শতাংশ

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত