ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:০১

প্রিন্ট

১০টির বেশি ছবি ফিরিয়ে দিয়েছি: সিয়াম

১০টির বেশি ছবি ফিরিয়ে দিয়েছি: সিয়াম
ইমরুল নূর

সিনেমার ক্যারিয়ার খুব বেশি না হলেও অল্প সময়েই দর্শক হৃদয়ে ঠাঁই করে নিয়েছেন সিয়াম আহমেদ। এখন পর্যন্ত মুক্তি পাওয়া তিনটি ছবিতেই নিজেকে ভেঙেছেন। এই সময়ে ব্যস্ত থাকা তিন ছবিতেও নিজেকে দর্শকদের জন্য হাজির করবেন নতুনত্ব নিয়ে। প্রতিটি ছবিটির জন্য নিজেকে তৈরি করেছেন ভিন্নভাবে। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে এম রাহিম পরিচালিত ‘শান’, চয়নিকা চৌধুরী পরিচালিত ‘বিশ্বসুন্দরী’ ও দীপঙ্কর দীপন পরিচালিত ‘অপারেশন সুন্দরবন’ ও রায়হান রাফি পরিচালিত ‘ইত্তেফাক’ সিনেমা চারটি। সাম্প্রতিক ব্যস্ততা নিয়ে বাংলাদেশ জার্নালের সাথে কথা বলেন ‘পোড়ামন ২’ ও ‘দহন’ খ্যাত এই নায়ক। তাকে নিয়ে লিখেছেন ইমরুল নূর

সরকারি অনুদানে নির্মিত ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ সিনেমায় কাজ করতে যাচ্ছেন। এটা নিয়ে জানতে চাই...

সিয়াম: মোহাম্মদ জাফর ইকবালের উপন্যাস ‘রাতুলের রাত রাতুলের দিন’ অবলম্বনে এই ছবিটি নির্মিত হবে। আমার সাথে কথাবার্তা চূড়ান্ত হয়েছে। আমরা যারা হূমায়ুন আহমেদ, জাফর ইকবাল স্যারদের উপন্যাস পড়ে বড় হয়েছি তাদের গল্প কিংবা উপন্যাসে কাজ করতে পারাটা সত্যিই আনন্দের। কে না চায় এই কাজ করতে! আমারও ইচ্ছে কাজটা করার। এখনও সাইনিং হয়নি, কারণ আমার অন্য দুটি ছবির শিডিউলের কারণে পরিচালককে ডেট দিতে পারিনি। তবে এরমধ্যে ইনশাহআল্লাহ ডেট বের করে কাজটিতে অংশ নিবো।

শুরু থেকেই ‘শান’ সিনেমাটি নিয়ে চিত্রপাড়ায় বেশ আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। ছবির কাজ কতটুকু সম্পন্ন হলো?

সিয়াম: আলহামদুলিল্লাহ। সবার আগ্রহ দেখেই কাজটাকে খুব যত্ন নিয়ে করছি। মাঝখানে অনেক দিন বিরতি ছিল। অন্যান্য ছবির কাজ কিছুটা শেষ করে আবারও শানের লুকে নিজেকে প্রস্তুত করে তারপর আবারও এটার কাজ শুরু করেছি। ছবির বেশিরভাগ অংশের কাজই শেষ। এখন গানের শুটিং চলছে। চলতি সপ্তাহেই ছবিটির সম্পূর্ণ কাজ শেষ হয়ে যাবে আশা করি। এরপর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শুরু হবে ঈদে মুক্তির লক্ষ্যে। শুধু এতটুকুই বলবো এখন পর্যন্ত যা করেছি তা পর্দায় দেখলে দর্শক চমকে যাবেন।

ছবিটিতে একটি বিশেষ চমক থাকছে বলে এর আগে জানিয়েছিলেন। সেটা কি?

সিয়াম: সেটা এখনই বলতে চাচ্ছি না। আমরা দর্শকদের জন্যই কাজ করি। একটা ভালো আউটপুটের জন্য যা করা দরকার আমরা সেটাই করে যাচ্ছি। প্রত্যেকটা প্রজেক্টের জন্য যথেষ্ঠ পরিশ্রম করছি, কষ্ট করছি। আর কতটা কষ্ট করছি সেটা পর্দায় দেখলেই বোঝা যাবে। ছবি দেখার পর যখন দর্শকরা হাততালি দিবে সেটাই হবে আমাদের প্রাপ্তি। আর চমক কি থাকছে সেটা সময়মত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ও পরিচালক জানিয়ে দিবেন।

অন্যান্য অনেক নায়কের চেয়ে এই সময়টাতে আপনি খুব ব্যস্ততা পার করছেন। পরপর হাতে ছবি আসছে, বিরতি না দিয়ে টানা শুটিং করে যাচ্ছেন। নিজেকে কতটা সময় দিতে পারছেন বা সবকিছু একসাথে কিভাবে সামলাচ্ছেন?

সিয়াম: অন্যান্য অনেকের চেয়ে বেশি ব্যস্ত কিনা ঠিক জানিনা, তবে আমি আমার কাজটা ঠিকমত করে যাওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমি কমিটমেন্টে বিশ্বাসী, তাই কাউকে কমিটমেন্ট দিলে সেটা নড়চড় হতে দেই না। হাতে বেশকিছু কাজ থাকায় হয়তো নিজেকে ঠিক ওইভাবে সময় দিতে পারছিনা। দেখা গেছে একটা ছবির কাজ টানা শেষ করে অন্য কাজে যেতে হচ্ছে কারণ আগে থেকেই সময় দেওয়া। তাই এই সময়টাতে নিজেকেই সময় দিতে পারছিনা। সেটা করতে গেলে দেখা যাবে কোন পরিচালক ফেঁসে যাচ্ছেন। আর আমি সেটা করতে পারি না।

প্রতিটা কাজেই যেহেতু নিজেকে নতুন করে উপস্থাপন করতে চেষ্টা করছি, সেজন্য আমার কিছুটা সময় দরকার। একটা চরিত্র থেকে বের হয়ে অন্য একটা চরিত্রে নিজেকে ধারণ করতে কিছুটা সময় দেওয়া উচিত। কিন্তু সবাইকে আগে থেকেই কমিটমেন্ট দেওয়ার কারণে এরমধ্যেই যতটা সম্ভব সেই চরিত্রের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করেই কাজটা শুরু করছি, প্রতিটা কাজের ক্ষেত্রেই। ‘অপারেশন সুন্দর’ ছবিতে একজন র‍্যাবের কর্মকর্তা হিসেবে দেখা যাবে আমাকে। সেটার জন্য র‍্যাবের ক্যাম্পে গিয়ে ট্রেনিং নিয়েছি, তাদের কৌশল আয়ত্ত করছি। এরপর কাজ শুরু করেছি। আমার কষ্ট হলেও কাজের ক্ষেত্রে ভ্যারিয়েশনটা আনতে চাই।

‘অপারেশন সুন্দর’ ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

সিয়াম: এক কথায় দারুণ। সুন্দরবনের বিভিন্ন লোকেশনে প্রথম লটে কাজ করেছি। জঙ্গলে, নদীতে গল্পের প্রয়োজনে বিভিন্ন দৃশ্যে হাজির হয়েছি। সেগুলোর অভিজ্ঞতাটা আসলেই অন্যরকম ছিল আমার জন্য। যদিও অনেক কষ্ট হয়েছে তারপরও অনেক এনজয় করেছি। টিমের সবাই অনেক পরিশ্রম করছেন। দ্বিতীয় লটের শুটিং শুরু হবে ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে। এরপর চলতি মাস টানা কাজ করবো। এরপর ‘স্বপ্ন বাজী’র কাজ শুরু করবো।

‘পোড়ামন ২’ ও ‘দহন’ সিনেমা দিয়ে রীতিমত আলোচনায় চলে আসেন। ক্যারিয়ারের প্রথম ছবি দিয়েই করেছেন বাজিমাত। পরের ছবিতেও সাফল্য পান। অনেকেই শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের পর আপনাকে নির্ভরযোগ্য নায়ক হিসেবে দেখছে। বিষয়টা কিভাবে দেখেন?

সিয়াম: ‘পোড়ামন ২’ ছবিটা আমাকে শুরু এখন এখন পর্যন্ত অনেক কিছু দিয়েছে। এরজন্য দর্শকদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তাদের ভালোবাসা ও সাপোর্টেই আজকে আমি এখানে কাজ করতে পারছি। আর একটা কথা, আমি কখনও তুলনা করতে পছন্দ করি না। শাকিব ভাই ইন্ডাস্ট্রির জন্য অনেক কিছু করেছেন। তিনি আসলেই সেরা, এটাই সত্যি। আমার তো মাত্র ক্যারিয়ার শুরু। এখনও অনেক পথ চলার বাকি। তবে যারা এমনটা ভাবছেন তাদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা থাকলো। তারা যে আমাকে এতটা ভেবেছেন এতেই আমি অনেক সম্মানিত বোধ করছি।

ব্যস্ত নায়ক হিসেবে এখনও হাতে অনেক ছবি রয়েছে আপনার। আনুমানিক কতগুলো ছবির প্রস্তাব পেয়েছেন?

সিয়াম: এটা খুব কঠিন একটা প্রশ্ন। আমার কোনকিছুই আসলে গোপন নেই। দেখা যায় যে, আমি বলার আগেই অনেকেই জেনে যায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের বায়োপিকে কাজ করার জন্য অডিশনের ডাক পেয়েছিলাম। অডিশন দিয়েছিও। যেহেতু তাদের জায়গা থেকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া আছে তাই কিছুই বলতে পারছি না। আর অন্যান্য ছবির কথা যদি বলি তাহলে বলবো, প্রস্তাব পেয়েছি অনেক ছবির। তার মানে এই না যে আমি প্রতিদিনই ছবির প্রস্তাব পাই! খুবই কমন গল্প বা কপি গল্পের ছবিতে কাজ করতে চাই না আমি। গত কয়েকমাসে ১০টারও বেশি ছবি ফিরিয়ে দিয়েছি। গল্প পছন্দ না হওয়ার কারণে। আর একই গল্প বা চরিত্রে বারবার হাজির হতে চাই না আমি।

বাংলাদেশ জার্নাল/ আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত