ঢাকা, সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শিরোনাম

আমি ঘোড়ার মত ফাস্ট দৌড়ে বিশ্বাসী না: শাওন

  ইমরুল নূর

প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:৫৮  
আপডেট :
 ১১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:১৫

‘কেউ যখন পরিশ্রমটা অনুসরণ করে তখন আর ভিউ ম্যাটার করে না’
অভিনেতা সাঈদ জামান শাওন
ইমরুল নূর

‘আমি কখনোই কোন রেইসে ছিলাম না। যার কারণে আমার সমসাময়িকদের অনেকে ভালো কাজ করলে আমারই ভালো লাগে। খারাপ লাগাটা আমার মধ্যে আসে না। ভিউ হলো কি হলো না সেসব নিয়ে মাথা ঘামাই না। শুধু মনোযোগ দিয়ে আমার কাজটা করে যাই’- কথাগুলো বলছিলেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা সাঈদ জামান শাওন। অভিনেতা পরিচয়ের বাইরেও তিনি একজন চাকুরীজীবি। বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্সে কর্মরত রয়েছেন। চাকুরীর পাশাপাশি সময় ব্যালেন্স করেই অভিনয় করেন তিনি।

আগামীকাল অর্থাৎ ১০ জানুয়ারি বায়োস্কোপে মুক্তি পেতে যাচ্ছে তার অভিনীত নতুন ওয়েব সিরিজ ‘কাবাডি’। ৭ পর্বের এ সিরিজটির গল্প লিখেছেন তামজিদ রহমান এবং পরিচালনা করেছেন রুবায়েত মাহমুদ। এখানে শাওনকে দেখা যাবে তুহিন চরিত্রে, তার বিপরীতে রয়েছেন সাদিয়া আয়মান।

‘কাবাডি’ প্রসঙ্গে এ অভিনেতা বলেন, ‘গল্পটা মূলত চার বন্ধুকে নিয়ে যারা আসলে উদ্যোক্তা, তারা নতুন কিছু শুরু করতে চায় কিন্তু সেটা করতে গিয়ে বিশাল এক ঝামেলায় পড়ে যায়। এরপর তাদের সাথে দেখা হয় ডিপজল এবং মিশা সওদাগরের। খুবই চমৎকার একটা গল্প এবং আমার চরিত্রটাও বেশ ইন্টারেস্টিং।

এই কাজটা করতে গিয়েই প্রথমবার সামনাসামনি ডিপজল ভাই ও মিশা ভাইয়ার সঙ্গে দেখা হয়েছে। আমি তো রীতিমত খুব ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম তাদেরকে দেখে। কারণ, পর্দায় মানুষগুলোকে যেভাবে ছোটবেলা থেকে দেখে বড় হয়েছি আসলে বাস্তবে তারা একদমই ভিন্ন। খুবই অমায়িক মানুষ, ভীষণ ভালো।’

নাটকে কম দেখা যায় কেন, এমন প্রশ্নে শাওন বলেন, ‘মাঝে এক বছরের মত একটা বিরতি নিয়েছিলাম। এরপর আবার চাকুরীর পাশাপাশি অভিনয়ের দিকে মনোযোগ দিয়েছি। তাছাড়া এখন যেসব ট্রেন্ডি গল্পের কাজ চলছে নাটকে, এসব কাজে আমার মন সায় দেয় না। এসব কাজের অংশ আমি হতে চাই না। কাজ একটু কম হোক সমস্যা নেই। আমরা একটা সময় অনেক সুন্দর সুন্দর কাজ করে এসেছি, এখনের মত নোংরা সময়ে থাকার কথা তো ছিলো না।

তাই এখন ওটিটির দিকে ঝুঁকছি যেন সুন্দর কিছু কাজ করা যায়। আমাদের পরিশ্রমটা যেন ক্যামেরায় ফুটে ওঠে। গল্পটা যেন সুন্দর হয় তাহলে সেটার অংশ হতে পারলে ভালো লাগবে। এর বাইরে যখন ফিকশনাল গল্প আসে তখন পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে যদি বুঝি না সে আসলেই সাধারণ একটা গল্পকে অসাধারণভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছে, তার সঙ্গে কাজটা করি। এছাড়া নাটকের কাজে একটু অনিয়মিতই বলা যায়।’

আপনার সমসাময়িক যারা তাদের অনেকেই টেলিভিশনে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন। সেখানে আপনি অভিনয়টাকে সিরিয়াসলি নেন নি। নয়তো আপনার অবস্থান আরও অনেক উপরে থাকতো। এমনটা অনেক পরিচালক বলে থাকেন। এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি? শাওনের স্পষ্ট উত্তর, ‘আমার কথা হচ্ছে ক্রিয়েটিভিটি ইজ নট অ্যা রেস। আমি তো কোন রেইসে নামি নি। আমি ঘোড়ার মত ঐ ফাস্ট দৌড়ে বিশ্বাসী না। আমি গতকাল যে কাজটা করেছি আগামীকালের কাজটা যেন তার চেয়েও ভালো হয়। আবার আগামীকালের কাজটার চেয়ে যেন পরশুর কাজটা ভালো হয়। আমি সবসময় এটা করার চেষ্টা করি, প্রতিযোগিতাটা একান্তই নিজের সাথে নিজের।

আর সমসাময়িক যারা কাজ করতেছে বা বেশি কাজ করতেছে, এটা তাদের সুবিধা বা স্ট্র্যাটেজি। ভালো কাজ হওয়া দিয়ে কথা, সেটা আমি করি বা আমার কোন বন্ধু করুক। এখন তৌসিফ মাহবুব ভাই যদি ভালো কাজ করে সেটা দেখতেও আমার ভালো লাগে আবার জোভান করলেও তাই। আমরা আমরাই তো। আমরা একসাথেই তো, সবাই মিলেই তো ইন্ডাস্ট্রি। ভালো কাজের জন্য আমার ভালো লাগা, ভালোবাসা সবসময়ই অনেক বেশি, সেটা যে কেউই করুক না কেন। কিন্তু করতে হবে বলে আবার যা-তা কাজ করার কোন মানেই হয় না।’

যোগ করে এই অভিনেতা আরও বলেন, ‘কোনকিছুতে খারাপ লাগার বিষয়টা আমার মধ্যে খুব কম। আমার ক্যারিয়ারের শুরু থেকে আমি যে খুব ভিউ কেন্দ্রিক কাজ করেছি, বিষয়টা এমনও না। ভিউ হলে ভালো লাগে অবশ্যই। তবে আমার কাছে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে তখন যখন কাজটা দেখার পর কারও মধ্যে সেটা ফিল্টার করে। মাবরুর রশিদ বান্নাহ ভাইয়ের সঙ্গে ‘বাবার ছেলে’ নাটকে কাজ করেছিলাম আমি। সেটা দেখার পর একজন আমাকে ফোন দিয়ে বলল, ভাই, ‘আপনার এই নাটকটা দেখার পর আমি এখন প্রতিদিন বাবার সঙ্গে কথা বলি।’ আরেকটা কাজ ছিলো ‘বানরের বাবা’, এটা থেকেও সেইম রিয়েকশন পেয়েছি। এই কাজগুলো আমার ভীষণ ভালো লাগে। আমার পরিশ্রম বা প্রচেষ্টাটা যখন কোন একটা মানুষের মধ্যে পরিবর্তন নিয়ে আসে দেখি তখন আমি অনেক বেশি খুশি হই। তখন আমার কাছে আর ভিউ ম্যাটার করে না। আমার একটা কাজ যদি দশ লাখ মানুষ দেখে কিন্তু বিশ মিনিট পরেই সেটা ভুলে যায়, এমন কাজের চেয়ে একটা কাজ একজন মানুষ দেখে যদি সেটা অনুসরণ করে তাহলেই আমি হ্যাপি।’

কিছুদিন আগে ইমরাউল রাফাতের পরিচালনায় ওয়েব সিরিজ ‘ওপেন কিচেন’ এর কাজ শেষ করেছেন শাওন। সামনে ভালোবাসা দিবসের জন্য বেশ কয়েকটি নাটক করবেন বলেও জানান। এর বাইরে তাকে দেখা যেতে পারে বঙ্গ ও চরকির দুটি ওয়েব কনটেন্টে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত