ঢাকা, শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ৫ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০২ মার্চ ২০২১, ২০:৪৩

প্রিন্ট

সোশ্যাল মিডিয়ায় এত আসক্তি কেন?

সোশ্যাল মিডিয়ায় এত আসক্তি কেন?
সংগৃহীত ছবি

রিয়াজুল হক

কয়েকদিন আগে মুরগি কেনার উদ্দেশ্যে আমার মেজো ভাই মনজুকে সাথে নিয়ে কাঁচা বাজারে ঢুকলাম কারণ সে বাজার করার ক্ষেত্রে সিদ্ধ হস্ত। ২৫/২৬ বছর বয়সী এক ছেলে মুরগি ব্যবসায়ী। হাতে মোবাইল নিয়ে খুবই ব্যস্ততা। দোকানের মধ্যেই WiFi’র কানেকশন নিয়েছে। তার পাশে প্রায় সমবয়সী আরেকটি ছেলে। সেও মুরগির ব্যবসা করে।

সন্ধ্যার সময় বাজারে অনেক ভিড়। অফিস ফেরত অনেক ক্রেতার সমাহার। এসবের মধ্যেই মুরগির ব্যবসায়ী ছেলেটা একজন অন্যজনকে জিজ্ঞেস করছে, আমার মোবাইলে WiFi’র কানেকশন ঠিক মত পাচ্ছি না। তোর মোবাইলে কি ঠিক আছে? এর মধ্যে মনজু প্রথম ছেলেটাকে জিজ্ঞেস করলো, মুরগির কেজি কত? ব্যবসায়ী ছেলে: ২৮০ টাকা।

মনজু: কম কত?

ব্যবসায়ী ছেলে: এক দামেই বিক্রি করি। আপনি ৫ টাকা কম দিয়েন। কেজি ২৭৫ টাকা।

মনজু: দুইটা মুরগি দেখিয়ে বলল, এই দুইটা মুরগি দাও।

ব্যবসায়ী ছেলেটা মোবাইলের স্ক্রিনে চোখ রেখেই দুইটা মুরগি বড় খাঁচা থেকে বের করে ডিজিটাল স্কেলে রাখলো। আমরা খেয়াল করলাম, ডিজিটাল স্কেলে কেজি ২৮০ টাকা ফিক্সড করা ছিল। যেহেতু আমাদের কাছে কেজিতে ৫ টাকা কম নেবে বলেছে, সেই হিসেবে ২৭৫ টাকা ফিক্সড করার কথা।

কিন্তু কেজির রেট চেঞ্জ করার সময় লক্ষ্য করলাম, ২৭৫ টাকার পরিবর্তে ভুল করে সে ১৭৫ টাকা ফিক্সড করল। আরে এই ভুল করার মূল কারণ হচ্ছে, সে ফেসবুকিং করা নিয়ে ব্যস্ত ছিল। রেট চেঞ্জ করার সময় খেয়াল করেনি। দুইটা মুরগি একসাথে মাপ দেয়ার পর আমাদের জানালো ৩২৫ টাকা। মনজু তাকে ৫০০ টাকা দিলে ১৭৫ টাকা ফেরত পেল।

১৭৫ টাকা ফেরত পাবার পর, মনজু জিজ্ঞেস করল, সব ঠিকঠাক আছে তো?

ব্যবসায়ী ছেলে: কেন ভাই, কোন সমস্যা?

মনজু: তুমি আবার মাপ দাও? ব্যবসায়ী ছেলে: মাপ দেয়া লাগবে না। এত বছর ব্যবসা করি।

মনজু: তুমি যে নেশা নিয়ে ব্যবসা করতে বসছো, তোমার আর বেশিদিন ব্যবসা করা লাগবে না। ‌ ব্যবসায়ী ছেলে: কী হইছে ভাই?

মনজু: মুরগি দুইটা তোমার মেশিনের উপর আবার রাখো। উপায় না দেখে মুরগি দুটো নিয়ে আবার ডিজিটাল স্কেলে রাখল এবং মোবাইল প্রেস করতে করতেই বললো দেখেন ভাই, সব ঠিকই তো আছো।

মনজু: তোমার মুরগির কেজি কত? ব্যবসায়ী ছেলে: এইবার ছেলেটা ডিজিটাল স্কেলের দিকে তাকিয়ে একটু লজ্জা পেল। ভুল হইছে ভাই।

এবার মুরগির দোকানের আরেকজন বয়স্ক মানুষ বলে বসলেন, সারাদিন মোবাইল নিয়ে থাকলে ব্যবসা করতে পারবি না। পুঁজিও উঠবে না।

সবকিছু মিলিয়ে ছেলেটা একটু বোকা বনে গেলো। সে ভাবতেই পারেনি তার ভুল ধরিয়ে দিয়ে আমরা তাকে আবার বাড়তি টাকা দেবো।

বাড়তি টাকা দেবার সময়, মনজু ছেলেটার উদ্দেশ্যে বললো, সবকিছু ফেলে রেখে যদি মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত থাকো, তাহলে ব্যবসা করবে কীভাবে?

বিষয়টা হয়তো এখন আর এক খুচরা মুরগির ব্যবসায়ীর মধ্যে সীমিত নেই। ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র।

লেখক: যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত