ঢাকা, শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০, ২৭ চৈত্র ১৪২৬ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৯:০৩

প্রিন্ট

ছবিতে বইমেলা

ছবিতে বইমেলা

Evaly

সৈয়দ মেহেদী হাসান

মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলার মধ্যভাগ নাগাদ নতুন বই এসেছে দুই হাজার ৪৭৫টি, এর মধ্যে বিভিন্ন প্রকাশনী থেকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৭৫টি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলা একাডেমির শহীদ মুনীর চৌধুরী সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বইমেলার বিভিন্ন দিক নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির ভারপ্রাপ্ত সচিব ও পরিচালক অপরেশ কুমার ব্যানার্জী, মেলা কমিটির সদস্য-সচিব জালাল আহমেদ ও স্থপতি এনামুল করিম নির্ঝর।

হাবীবুল্লাহ সিরাজী জানান, এসব প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে গল্পগ্রন্থ ৩৩৮টি, উপন্যাস ৩৯৯টি, প্রবন্ধগ্রন্থ ১৩৫টি, কবিতাগ্রন্থ ৭২০টি, গবেষণাগ্রন্থ ৪৭টি, ছড়ার বই ৪৭টি,

শিশুতোষ গ্রন্থ ১০৮টি, জীবনীগ্রন্থ ৮০টি, রচনাবলী ৪টি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ ৮৮টি, বঙ্গবন্ধু বিষয়ক গ্রন্থ ৭৫টি, নাটক ১১টি, বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থ ৫২টি, ভ্রমণ কাহিনী ৪৪টি, ইতিহাসমূলক গ্রন্থ ৫৪টি,

রাজনীতি বিষয়ক গ্রন্থ ৫টি, চিকিৎসা-স্বাস্থ্য সংক্রান্ত গ্রন্থ ১৬টি, রম্য বা ধাঁধা বিষয়ক ১৮টি, ধর্মীয় গ্রন্থ ৯টি, অনুবাদ গ্রন্থ ২৭টি, অভিধান বিষয়ক ৫টি, সায়েন্স ফিকশন/গোয়েন্দা কাহিনী ৪১টি এবং অন্যান্য ১৫২টি।

একাডেমির মহাপরিচালক বলেন, আমাদের পরিকল্পিত বঙ্গবন্ধু বিষয়ক শতগ্রন্থের অংশ হিসেবে আজ পর্যন্ত বাংলা একাডেমির ১৮টি নতুন গ্রন্থ প্রকাশ পেয়েছে।

মেলায় বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর ‘আমার দেখা নয়াচীন’ ঘিরে পাঠকের বিপুল আগ্রহ তৈরি হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা আমাদের আনন্দিত করেছে।

ইতিমধ্যে ‘আমার দেখা নয়াচীন’ বইটির প্রথম দুই সংস্করণ ২০ হাজার ও ৩০ হাজার করে মোট ৫০ হাজার বই বিক্রি শেষ হয়েছে।

সোমবার পর্যন্ত বাংলা একাডেমির নিজস্ব বিক্রি এক কোটি ৯ লাখ ৭৯ হাজার টাকা বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবারের নতুন বই

মঙ্গলবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার সপ্তদশ দিনে নতুন বই এসেছে ১৪৭টি। এর মধ্যে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর পাবলিশিং লিমিটেড (বিপিএল) থেকে এসেছে আনন্দময়ী মজুমদারের শিশু বিষয়ক বই ‘মা-বেলার ডায়েরি’,

তন্ময় ইমরানের উপন্যাস ‘জোনাক স্নানে জয়তী’ এবং হাসান মাহমুদ রচিত ধর্ম বিষয়ক গ্রন্থ ‘অতঃপর-শারিয়া কী বলে?’।

এছাড়া গ্রন্থকুটির এনেছে মো. জাকির হোসেনের উপন্যাস ‘নীল জোছনায় রূপালী আঁধার’,

এশিয়া পাবলিকেশন্স এনেছে ফাতেমা খাতুন মুক্তার উপন্যাস ‘দিগন্ত ছুঁয়েছে নীল আকাশ’, আপন প্রকাশ এনেছে কান্তা কানিজ ফাতিমার কবিতার বই ‘বল্লিবিতান’,

অনন্যা এনেছে দীপু মাহামুদ রচিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই ‘মুক্তিযুদ্ধে সাধারণ একজন’, সাহস পাবলিকেশন্স এনেছে হাবীবুল্লাহ সিরাজীর কাব্যগ্রন্থ ‘স্বপ্নহীনতার পক্ষে’,

পুথিনিলয় এনেছে ড. মোহাম্মদ আমীনের গবেষণা বিষয়ক বই ‘ছোটোদের বাংলা উচ্চারণ’।

বুধবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার ১৮তম দিন। মেলা চলে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় জালাল ফিরোজ রচিত ‘বঙ্গবন্ধু গণপরিষদ সংবিধান’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।

প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মুজতবা আহমেদ মুরশেদ।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ডালেম চন্দ্র বর্মণ, মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ও সাব্বীর আহমেদ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন। সন্ধ্যায় রয়েছে কবি কণ্ঠে কবিতাপাঠ, আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত