ঢাকা, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৪ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ২১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৯ মে ২০২০, ১৭:৪২

প্রিন্ট

আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তর ঘর নির্মাণ করে দিলো সেনাবাহিনী

আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তর ঘর নির্মাণ করে দিলো সেনাবাহিনী
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার জলিরপাড় ইউনিয়নের উত্তর জলিরপাড় গ্রামের হতদরিদ্র মাঝি জগদীশ বন্ধু দাস। বয়স প্রায় সত্তোরের কাছাকাছি। জলিরপাড় ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে চলা মধুমতি নদীতে নৌকা চালিয়ে সংসার চালাতেন তার বাবা হরে কৃষ্ণ দাস। অর্থিক অভাবের কারণে পড়াশোনা করতে না পারায় ছোটবেলা থেকেই সংসারের জন্য বাবার সাথে নৌকা চালাতেন তিনি। অনেক বছর আগে গত হয়েছেন তার বাবা। করছেন বিয়ে, পেতেছেন নিজ সংসার। সংসারে এখন স্ত্রী, এক মেয়ে ও এক প্রতিবন্ধি ছেলে। সংসার সামলাতে গিয়ে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে নৌকা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

কিন্তু সামান্য বসত ভিটাটুকুও রক্ষা পায়নি ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে। গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে তার বসতঘরটি বিধ্বস্ত হয়। নষ্ট হয় মালপত্র। এরপর থেকে সে পরিবার নিয়ে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছিলেন।

এ প্রতিবেদকের কাছে এভাবেই কথাগুলো জানাচ্ছিলেন জীবন যুদ্ধে লড়ে চলা খেয়া ঘাটের মাঝি জগদীশ বন্ধু দাস।

হতদরিদ্র জগদীশ বন্ধু দাসের দূরাবস্থার কথা জানতে পেরে ঘর পুনর্নির্মাণ করে দিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৪ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার সকালে সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘর নির্মাণের মালামাল নিয়ে জগদীশ বন্ধু দাসের ভিটায় উপস্থিত। বিকাল থেকে শুরু হয় ঘর পূর্ণনির্মাণের কাজ। সন্ধ্যায় অক্লান্ত পরিশ্রমের পর সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘর নির্মাণের করে দেয়ার পাশাপশি প্রয়োজনীয় নতুন মালামাল ঘরে তুলে দেন।

এ সময় লে. তানভীর হাসান, ওয়ারেন্ট অফিসার অব্দুল বারী, জলিরপাড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব মজুমদার উপস্থিত ছিলেন।

মাঝি জগদীশ বন্ধু দাস আরো জানান, প্রতিবন্ধী ছেলে কোন কাজ করতে না পারায় পুরো সংসারে ভার তার কাঁধে। নৌকা চালিয়ে যে কয় টাকা আয় রোজগার হয় তা দিয়ে কোনরকমে সংসার চালিয়ে নিচ্ছেন। ঝড়ে ঘর ভেঙে যাওয়া খোলা আকাশের নিজে রাত কাটাচ্ছিলাম। সেনাবাহিনী আমার ঘর ঠিক করে দেয়ার পাশাপাশি মালপত্রও দিয়েছে। আমি সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই।

ঘর নির্মাণ শেষে ওয়ারেন্ট অফিসার অব্দুল বারী বলেন, উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ হতদরিদ্র জগদীশ বন্ধু দাসের ঘর পুনর্নির্মাণ করে দিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যরা। সেনাবাহিনীর জনকল্যাণমূখী এ কায্যক্রম আগামীতেও অব্যহত থাকবে।

প্রসঙ্গত, গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে খেয়াখাটের মাঝি হতদরিদ্র জগদীশ বন্ধু দাসের ঘরটি বিধ্বস্ত হয়। এরপর থেকে সে পরিবার নিয়ে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছিলেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত