ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ২৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০২০, ১৭:৩০

প্রিন্ট

মেঘনার ভাঙন রোধে মানববন্ধন

মেঘনার ভাঙন রোধে মানববন্ধন
কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

মেঘনার ভাঙন রোধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার স্থানীয় জনগণ।

সোমবার উপজেলার পাটারিরহাট মেঘনাতীরে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে 'পাটারিরহাট বাঁচাও মঞ্চ' নামের একটি সংগঠন। এছাড়া ভাঙন রোধে প্রতিনিয়ত আন্দোলন করে চলছে স্থানীয়রা।

তারা জানান, দ্রুত ভাঙন রোধে কাজ বা বাঁধ না দিলে মেঘনার ভাঙন থেকে রক্ষা পাবে না কমলনগর। হয়তো কয়েক বছরের মধ্যে মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে এ উপজেলা।

মানববন্ধন শেষে নদী ভাঙন রোধে গড়িমসির অভিযোগ এনে বিক্ষোভ মিছিল করেন স্থানীয়রা। এতে অংশ নেন মেঘনার ভাঙন কবলিত কয়েক হাজার মানুষ।

স্থানীয় মানুষজনের দাবি, দীর্ঘ তিন যুগ ধরে নদীর ভাঙনে কমলনগরের বিস্তীর্ণ জনপদ বিলীন হতে চলছে। ভাঙন রোধে স্থায়ী কোন প্রদক্ষেপ নেয়া হয়নি। ফলে মানুষের বাড়ি-ঘর, ভিটে-মাটি, সরকারি-বেসরকারি বহু গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে প্রতিনিয়ত। মানববন্ধন ও বিক্ষোভকারী জনগণের মাঝে হতাশার চাপ দেখা যায়।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী আন্দোলনের জেলা যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ.হ.ম নোমান সিরাজী, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক রাকিব হোসেন সোহেল, পাটারিরহাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হোসেন লোটাস, ইউনিয়ন আ.লীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক হাজী জামাল উদ্দিন প্রমুখ।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভে একাত্মতা জানিয়ে অংশ নেয় কমলনগর স্টার ক্লাব, নিউ তারুণ্য তরুঙ্গ সংসদ, পাটারিরহাট জুনিয়র একতা সংঘ, পপুলার ফোকাস খায়েরহাট ও স্টুডেন্ট একাদশ।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, কমলনগরের মেঘনা তীরের সীমান্তবর্তী এলাকা ১৭ কিলোমিটার। এর মধ্যে মাত্র এক কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণ হয়েছে। বাকি ১৬ কিলোমিটার এলাকা নদীতে বিলীন হচ্ছে ৩৬ বছর ধরে।

কমলনগরের মেঘনার ভাঙন কবলিত এলাকাগুলোর মধ্যে পাটারিরহাট এলাকায় মেঘনার ভাঙন প্রবল। দ্রুত মেঘনা তীরের এ বিশাল এলাকায় সেনাবাহিনীর মাধ্যমে ব্লক বাঁধের দাবি জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত