ঢাকা, শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর ২০২০, ২৩:৩১

প্রিন্ট

সিলেটে পৃথক গ্রামে ২ কিশোরী ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার

সিলেটে পৃথক গ্রামে ২ কিশোরী ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার
সিলেট প্রতিনিধি

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় পৃথক এলাকায় দুই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একটি উপজেলার কাঁঠালবাড়ি গ্রামে এবং অন্যটি চাটিবহর গ্রামে।

কোম্পানীগঞ্জ থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কাঁঠালবাড়ি গ্রামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর পিতা বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

অন্যদিকে উপজেলার চাটিবহর গ্রামে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একই গ্রামের ফখরুল ইসলাম (২০) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভুক্তভোগীর কিশোরীর মা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

থানার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চাটিবহর গ্রামের ফখরুল ইসলাম একই গ্রামের ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরীকে গত ১৮ অক্টোবর রাতে মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এর আগে ১০ অক্টোবর কিশোরীকে বসত ঘরে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এই ঘটনায় ধর্ষণের শিকার কিশোরীর মা বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

সোমবার বিকালে চাটিবহর এলাকা থেকে অভিযুক্ত ফখরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ।

কাঁঠালবাড়ীর স্থানীয়রা জানান, কাঁঠালবাড়ী গ্রামের ধর্ষণের শিকার ওই শিক্ষার্থী গত ১৭ অক্টোবর রাত ৮টায় বাড়ির উঠোন থেকে কলসি দিয়ে পানি আনতে যায়। এ সময় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা একই গ্রামের মিরাজ আলী (৪০) কিশোরীর মুখ চেপে ধরে পাশের ক্ষেতে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে স্বজনেরা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সিলেটে ওসমানী মেডিকেলে ভর্তি করে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি কেএম নজরুল ঘটনা দুটির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, চাটিবহর গ্রামে সাড়াশি অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদিকে কাঁঠালবাড়ী মিরাজ আলীকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যহত রয়েছে।

আরও পড়ুন- অপহরণ করে ঢাকায় এনে পাঁচদিন আটকে রেখে ধর্ষণ

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত