ঢাকা, রোববার, ০৭ মার্চ ২০২১, ২২ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৭:৫৭

প্রিন্ট

শীতে কাঁপছে লালমনিরহাট, নেই শীতবস্ত্র

শীতে কাঁপছে লালমনিরহাট, নেই শীতবস্ত্র
ছবি: প্রতিনিধি

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে প্রকৃতি। লালমনিরহাটে গত কয়েকদিন ধরে কুয়াশার কারণে সূর্যের দেখা মিলছে না। ফলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। যানবাহনগুলো হেডলাইট জ্বালিয়ে ধীরগতিতে চলাচল করছে। শীতের তীব্রতায় নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে দিনমজুর, রিকশা ও ভ্যানচালকদের জন্য এই সময়টা দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে।

কাজ কমে যাওয়া পরিবার-পরিজন নিয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা। নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বেরও হচ্ছেন না কেউ। সারাদিনে দেখা মিলছে না সূর্যের।

অন্যদিকে, শীতবস্ত্রের অভাবে ছিন্নমূল ও প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষদের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে। পাশাপাশি বেড়েছে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত শিশু ও বয়স্কদের সংখ্যা। সরকারি ও বেসরকারিভাবে এ পর্যন্ত যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। পাশাপাশি শীতবস্ত্র বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

শীতের তীব্রতায় খোলা বাজারের শীতবস্ত্রের দোকানে ভিড় করছেন মধ্য ও নিম্নবিত্ত মানুষেরা। শীত নিবারণে চর অঞ্চলের মানুষজন খড়-কুঠোয় আগুন ধরিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। চরাঞ্চলের নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়া মানুষ শীতবস্ত্র থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তাই আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে এসে চরাঞ্চলের অসহায় শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, এনজিও, শিল্প প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন এই অঞ্চলের অসহায় মানুষ।

এদিকে, শৈত্যপ্রবাহ চলতে থাকলে আলু ও গমসহ রবিশস্য মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। এরই মধ্যে বোরো ধানের বীজতলা হলুদ রঙ ধারণ করতে শুরু করেছে।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচী অব্যাহত রয়েছে। প্রতিদিন শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম চলছে। পাশাপাশি আরো শীতবস্ত্র চেয়ে চাহিদা পত্র পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত